please click here to view dainikshiksha website

বাসায় গিয়ে পড়াতে রাজি না হওয়ায় শিক্ষিকাকে জুতাপেটা!

নিজস্ব প্রতিবেদক | ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৮ - ১১:৫৯ অপরাহ্ণ
dainikshiksha print

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় বাসায় গিয়ে পড়াতে রাজি না হওয়ায় শিক্ষিকাকে জুতাপেটা ও মারধরের অভিযোগে জেলা জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব আবদুল মজিদ খন্দকারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তবে  এখনও তার স্ত্রীকে গেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় ফতুল্লার হাজীগঞ্জের বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

শিক্ষিকা শাহীনূর পারভীন জানান, স্থানীয় প্রভাবশালী জাতীয় পার্টি নেতা ও আইনজীবী আবদুল মজিদ খন্দকার রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) রাত ১০টার দিকে স্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে তার বাসায় আসেন। এসময় তার তাদের নাতনীকে বাসায় গিয়ে পড়ানোর প্রস্তাব দেন।

এর আগেও কয়েকবার তার তাদের নাতনীকে পড়ানোর প্রস্তাব দিয়ে ছিলেন। কিন্তু দীর্ঘ ছয় মাস যাবত কিডনিজনিত রোগে অসুস্থ থাকায় তাদের ফিরিয়ে দেওয়া হয়। তাদের ফিরিয়ে দেওয়ার অপরাধে ওই আইনজীবী ও তার স্ত্রী প্রথমে আমাকে মৌখিকভাবে হুমকি দেন। এক পর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে তারা ছেলে-মেয়েদের সামনেই আমাকে মারধর করেন।

 

জানা গেছে, রাতেই তাকে শহরের খানপুরে নারায়ণগঞ্জ ৩শ’ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে থেকে সোমবার সকালে তাকে সদর উপজেলার হাজীগঞ্জের ভাড়া বাড়িতে নেওয়া হয়। দুপুরে ওই শিক্ষিকার সঙ্গে দেখা করে কথা বলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক সার্কেল) শরফুদ্দিন।

শাহীনূরের মা রাবেয়া ইসলাম জানান, তার মেয়ে শাহীনূর পারভীন শানু দীর্ঘ ছয় মাস যাবত কিডনিজনিত রোগে ভুগছেন। এ কারণে প্রাভভেট পড়ানো ছেড়ে দিয়েছেন। কিন্তু অন্যায়ভাবে একজন আইনজীবী ও তার স্ত্রী বাড়িতে ঢুকে ছেলে-মেয়ের সামনেই মেয়েকে মারধর ও জুতাপেটা করেছে। একজন আইনজীবী হয়ে তিনি এ বেআইনি কাজ কিভাবে করেছেন?

বাড়ির মালিক ও জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার অ্যাডভোকেট নূরুল হুদা ক্ষোভপ্রকাশ করে বলেন, তিনি একজন আইনজীবী তেমনি আমিও একজন আইনজীবী। অনুমতি ছাড়া বাড়িতে ঢুকে আমার ভাড়াটের গায়ে হাত তোলা ও জুতাপেটা করা দণ্ডনীয় সামাজিক অপরাধ। তার উচিত ছিলো আগে আমার সঙ্গে কথা বলা। কিন্তু তিনি সেটা না করে চরম অপরাধ করেছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জাপা নেতা

অ্যাডভোকেট আবদুল মজিদ খন্দকার বলেন, সস্ত্রী আমি নাতনীকে পড়ানোর জন্য ওই শিক্ষিকার বাসায় প্রস্তাব নিয়ে যাই। তিনি পড়াবেন না ভালো কথা। আমাদের মুখের ওপর না করে দিলো। আমাদের অপমান করলো। তাই অপমানের বদলে তাকেও অপমান করা হয়েছে। এসময় শিক্ষিকাকে মারধরের অভিযোগ অস্বীকার করে তাকে জুতাপেটা করার হুমকি দেওয়ার কথা স্বীকার করেন তিনি।

হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. তাহমিনা নাজনীন জানান, শাহীনূরের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। হাসপাতালে আনার পর তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল উদ্দিন জানান, সোমবার দুপুরে শাহীনূর পারভীনের বাবা সাইফুল ইসলাম বাদী হয়ে আবদুল মজিদ খন্দকার ও তার স্ত্রী রোকেয়া খন্দকারকে আসামি করে মামলা করেছে। সন্ধ্যায় মজিদ খন্দকারকে হাজীগঞ্জের বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপর আসামিকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

ঘটনার শিকার প্যাসিফিক ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের শিক্ষিকা শাহীনূর পারভীন শানু এক যুগেরও বেশি সময় ধরে ওই স্কুলে শিক্ষকতা করছেন। স্থানীয় আইনজীবী ও জেলা মুক্তিযোদ্ধা ডেপুটি কমান্ডার মো. নুরুল হুদার বাড়িতে পরিবার নিয়ে ভাড়া থাকেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন:


পাঠকের মন্তব্যঃ ২৬টি

  1. মোঃ মিলন হোসাইন says:

    দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি চাই৷

  2. md.shahinur rahman says:

    The autuctatic culprits should be caught and punished appropriately according to law.as an advocate he should have known about the banning of private coaching.here lies the question what will the teachers do?the government bans private coaching,on the other hand,the guardians pressurize for private coaching.

  3. MD.Shahin-Assistance teacher Bangla. Taltali Barguna says:

    শিক্ষকদের কপালে কি আছে তাহলে।এটা জাতির কাছে আমার প্রশ্ন?

  4. Mohit Ray, Ass.Teacher, Char Filiz Joynob High School & College, Shariatpur. says:

    এমন আইনজীবীর অপরাধের বিচার প্রকাশ্য দিবালোকে হলে ভালো হয়। কিন্তু বাংলাদেশ তো এজন্য সম্ভব না… কারণ বিচার হলে হয়তো শিক্ষিকার চাকরি থাকবেনা…?

  5. মোহাম্মদ ইসকান্দার আলম চট্টগ্রাম। says:

    সরকারের অংশীদার হিসাবে ভাগ নিলো।

  6. chanchal das says:

    পড়ালে চাকরী নাই না পড়ালে জুতাপেটা হায়রে বেচারা শিক্ষক ৷কেন শিক্ষক না হয়ে রাজনীতিবিদ হতে পারলে না?

  7. afaz sherpur says:

    আপনার মন্তব্য
    প্রাইভেটভাবে প্রাইভেট পড়ানো যখন সরকার বন্ধ করতে যাচছে আর তখনই কিনা শিক্ষককের উপর আক্রমণ।
    এটা যেমন প্রাইভেট পড়ানোর গুরুত্ব প্রকাশ করে. তেমনি সরকার যে প্রাইভেট কোচিং নিয়ে নতুন আইন করতে যাচ্ছে তাকে দেখানো হচ্ছে বৃদ্ধাঙ্গুলি।
    অবশ্যই এই আইন ব্যবসায়র শাস্তি হওয়া দরকার।

  8. প্রেমানন্দ বালা(পুলক) সহকারী শিক্ষক (গণিত)। says:

    sala k soudiaroper ainer aotai ana dorkar.

  9. narayanhalder says:

    আমি ৩৯ বছর শিক্ষকতায় আছি।সত্যিকারে এমন ঘটনা যদি হয়ে থাকে তাহলে তিনি যতবড় মাপের প্রভাবশালী হয়েন না কেন তার দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি কামনা করছি।

  10. এইচ,এম,মোকসেদুল হাসান।প্রধান শিক্ষক বা শা বা উ বি বাসুদেবপুর, গোদাগাড়ী, র্াজশাহী। says:

    শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আর শিক্ষকের দরকার নেই।তাই শিক্ষকের মর্যদা নেই।শিক্ষককে ভাল বাসতে চাইলে যারা শিক্ষককে লাঙ্চিত করছে তাদের বিশেষ টাইবুনালে বিচার করুন।

  11. মোঃ কুতুব উদ্দিন, সহকারী শিক্ষক,শাক্যমুনি উচ্চ বিদ্যালয়, হারবাং,চকরিয়া, কক্সবাজার। says:

    মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী প্রাইভেট কোচিং নিয়ে যে আইন করেছেন তার বিরোধিতা করার কারণে রাষ্ট্রদ্রোহী আইনে সাজা হওয়া উচিত।

  12. saiful says:

    আপনার মন্তব্য বইয়ে পড়েছিলাম নীতির রাজা, রাজনীতি।
    সেটা ঠিক আছে কি?
    এখন দেখছি– রাজার নীতি – রাজনীতি।

  13. md.shahadat hossain padmapukur high school mithapukur rangpur says:

    এ বেটাকে ওখানকার পচাঁ পানি খাওয়ার পর ম্যাডামের পা ধরে মাপ নেওয়া দরকার কিনতু আমাদের দেশে তা হবেনা কারণ সে সরকারের 14 দলের সরিক দলের নেতা তাই আর কি?

  14. Hafijul says:

    এই শুওরদের জনগনের সামনে জুতা পেটা করতে হবে।

  15. নাজমুল ইসলাম says:

    ওকে ঝাটা পিটা দেওয়া উচিত। বেয়াদবির শাস্তি চাই।ও মুক্তি যোদ্ধা নয় বরং রাজাকার।

  16. জিয়া says:

    ভাষা নেই।তাকে প্রকাশ্যে জুতা পেটা করা দরকার।

  17. আবুল বাশার,সালামপুর আমিনিয়া ফাযিল মাদরাসা, দুমকি, পটুয়াখালী। says:

    উনিতো আইনজীবী, কিভাবে আইনের ফাক দিয়ে বের হবে তা জানাই আছে।

  18. খালিলুর রাহমান says:

    oi kukurtake prokashshe juta marte hobe.

  19. খলিল says:

    এর বিচার না হলে জানব আইন শুধু কাগজের পাতায়ই বাস্তবে নয় । অনতিবিলম্বে এর শাস্তি দাবী করছি ।

  20. নিজামুল শিপন says:

    অভিযুক্তের চরমতম শাস্তি দাবি করছি।

  21. নুরুল ইসলাম, সিনিয়র শিক্ষক,দক্ষিণ সাতকানিয়া গোলামবারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয় চট্টগ্রাম। says:

    বেটাকে জনসম্মুখে জুটা পেটা দেওয়া উচিত!

  22. Shaheb Hasan says:

    একে গুলি করে মারা হোক।

  23. মোশারফ হোসেন সহকারী শিক্ষক says:

    যে প্রাইভেট বন্ধ করতে আইন করছেন তার পরিবারের ছেলে মেয়েরা ও বাসায় প্রাইভেট পড়ে।এখানে লোকসান গরিব ছাত্রছাত্রীদের কারণ তারা তো আর বেশি টাকা দিয়ে বাসায় প্রাইভেট পড়তে পারে না।এই আইনজীবটির কঠিন শাস্তি হওয়া উচিত।

  24. মোঃ সেলিম ভূঞা says:

    কোথায় চলেছি অামরা?

আপনার মন্তব্য দিন