please click here to view dainikshiksha website

বাড়তি নম্বরের কথা বলে যৌন সম্পর্কে বাধ্য করতেন এই শিক্ষক

দৈনিকশিক্ষা ডেস্ক | আগস্ট ৯, ২০১৭ - ১:৩৭ অপরাহ্ণ
dainikshiksha print

ভারতের হুগলির চুঁচুড়া আইটিআই কলেজের শিক্ষক অমিয় কুমারের বয়স পঞ্চাশের কাছাকাছি। নম্বর বাড়ানোর টোপ দিয়ে প্রতিবছরই শিক্ষার্থীদের যৌন সম্পর্কে বাধ্য করতেন তিনি।

গত বছর প্র্যাকটিক্যাল রুমে এমন একটি ঘটনার ভিডিও তোলেন শিক্ষার্থীরা। যেখানে দেখা যায় শিক্ষক কুমারেরর লালসার শিকার হয়েছে এক ছাত্রী। সেটি পরে ফাঁস হয়ে যায়।

সম্প্রতি অমিয় কুমারের বিষয়ে এক শিক্ষার্থী কলেজ কর্তৃপক্ষকে জানায়। এরপর থেকে তাকে নানাভাবে হেনস্তা করেন অমিয় কুমার। ফেল করিয়ে দেওয়ার হুমকি দেন। কলেজ কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে তদন্ত কমিটি গঠনের নির্দেশ দেয়। অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় কমিটি অমিয় কুমারকে শোকজ করা হয়েছে।

গত মঙ্গলবার ৭-৮ জন সশস্ত্র দুষ্কৃতীকে নিয়ে অমিয় কুমার কলেজের গার্ডের বুকে আগ্নেয়াস্ত্র ঠেকিয়ে কলেজে ঢোকে। অভিযোগকারী ওই ছাত্রীকে তুলে নিতে চেয়েছিলেন তিনি। পুলিশ এসে পড়ায় শিক্ষক অমিয় কুমার পালিয়ে যান। তাকে গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছে পশ্চিমবঙ্গের কারিগরি শিক্ষা দপ্তর।

সংবাদটি শেয়ার করুন:


পাঠকের মন্তব্যঃ ৩টি

  1. এম.সোলায়মান এম.এ says:

    Mpo কর্তন কর হোক ঐ স্যারের

  2. হুমায়ুন কবির says:

    শুধু mpo কর্তন নয়! লিঙ্গও কর্তন করতে হবে। নইলে ক্রমাগত এমন চালাতেই থাকবে! সঠিক বিচার হলো- নিপীড়ণের যন্ত্রটি কেটে দেয়া।

আপনার মন্তব্য দিন