বিতর্কিত তালিকা থেকেই ১৪৫ জনকে টেকনোলজিস্ট পদে নিয়োগ - মেডিকেল - দৈনিকশিক্ষা

বিতর্কিত তালিকা থেকেই ১৪৫ জনকে টেকনোলজিস্ট পদে নিয়োগ

দৈনিকশিক্ষা ডেস্ক |

বিতর্কিত তালিকা থেকে ১৪৫ জন মেডিকেল টেকনোলজিস্ট নিয়োগ দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। রোববার অধিদফতরের ওয়েবসাইটে এ সংক্রান্ত নিয়োগপত্র প্রকাশ করা হয়। কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীদের জরুরি সেবা দেয়ার জন্যই এই নিয়োগ দেয়া হয়।

এতে বলা হয়, রাষ্ট্রপতির নির্দেশক্রমে ‘দ্য জেনারেল ক্যাজুয়াল অ্যাক্ট ১৮৯৭’ এর ১৫ ধারা মোতাবেক শিক্ষাগত যোগ্যতা ছাড়া অন্যান্য যোগ্যতা ও স্বাভাবিক নিয়ম প্রমার্জনা করে নিয়োগ দেয়া হল। ৩০ জুনের মধ্যে যোগদানের নির্দেশ। সোমবার (২৯ ‍জুন) যুগান্তর পত্রিকায় প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা যায়। 

প্রতিবেদনে আরও জানা যায়, করোনা আক্রান্তদের নমুনা সংগ্রহ ও পরীক্ষার আওতা বাড়াতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ১২০০ মেডিকেল টেকনোলজিস্ট দ্রুততম সময়ের মধ্যে নিয়োগের উদ্যোগ নেয়া হয়।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের অবসরপ্রাপ্ত এক কর্মকর্তার নেতৃত্বে একটি দুর্নীতিবাজ চক্র অস্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় আর্থিক লেনদেনের মাধ্যমে ১৮৩ জন মেডিকেল টেকনোলজিস্টের তালিকা চূড়ান্ত করেন। তালিকায় নানা অসঙ্গতি থাকায় এটা নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি হয়।

উত্থাপিত অনিয়মের বিষয়টি তদন্ত না করে ১৪ ও ১৫ জুন ১৮৩ জনকে সশরীরে হাজির হয়ে কাগজপত্র দাখিল করতে বলা হয়। ওই সময় ১৮৩ জনের মধ্যে ১৫৭ জন হাজির হয়ে কাগজপত্র জমা দেন। তাদের মধ্য থেকেই ১৪৫ জনকে নিয়োগ দেয়া হয়।

বিএসসি মেডিকেল টেকনোলজি কোর্স পাস করা ৯ জন, ডিপ্লোমা ইন ফার্মেসি কোর্স করা একজন, ডিপ্লোমা সনদবিহীন ২ জনসহ মোট ১২ জনকে নিয়োগ দেয়া হয়নি।

বাংলাদেশ রাষ্ট্রীয় চিকিৎসা অনুষদ থেকে পাস করা ৯৩ জন এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে পাস করা ৫২ জনসহ মোট ১৪৫ জন প্রার্থীকে নিয়োগ দেয়া হয়। ৩০ জুনের মধ্যে তাদের নিজ নিজ কর্মস্থলে যোগদান করতে বলা হয়েছে।


এ প্রসঙ্গে স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (প্রশাসন) মো. বেলাল হোসেন জানান, তিনি ওপরের নির্দেশই এই তালিকা প্রণয়ন ও নিয়োগ প্রদান করেছেন।

সংশ্লিষ্টরা জানান, জমাকৃত কাগজপত্র বাছাই করে দেখা গেছে, রাষ্ট্রীয় চিকিৎসা অনুষদ থেকে পাস করা প্রার্থী রয়েছেন ৯৩ জন, কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে পাস করা ৫২ জন, বিএসসি ইন হেলথ টেকনোলজি পাস ৯, সনদবিহীন প্রার্থী ২ এবং ডিপ্লোমা ইন ফার্মেসি পাস করা প্রার্থী ১ জন। তালিকায় ডুপ্লিকেট ১৪ প্রার্থীর নাম পাওয়া গেছে।

এরা হলেন ক্রমিক নং ৪৯ ও ১৪২-এ একই ব্যক্তি মো. দাইমুল ইসলাম, ক্রমিক নং ৫০ ও ১৪৩ মো. আরাফাত হোসেন গনি, ক্রমিক নং ৫২ ও ১৪১ মো. কাফি আল মাহমুদ, ক্রমিক নং ৫৩ ও ১৪৪ মো. মশিউর রহমান, ক্রমিক নং ৬৩ ও ১৪৪ মো. হামিম, ক্রমিক নং ৭৮ ও ১৫৯ মো. আবদুল কায়উম, ক্রমিক নং ৮২ ও ১৭৮ মো. জিন্নাতুল নাইম, ক্রমিক নং ৮৪ ও ১৭৭ মো. ইউসুফ আলী, ক্রমিক নং ৮৬ ও ১২৬ মো. শিমুল আহমেদ, ক্রমিক নং ৮৯ ও ১৮৩ মো. নিশাত রায়হান, ক্রমিক নং ৯৬ ও ১৩৩ মো. শাহিন আলম, ক্রমিক নং ১০০ ও ১৫৮ মো. খোকন সরকার, ক্রমিক ১০৮ ও ১৪৫ মো. মোরশেদ রায়হান, ক্রমিক নং ১২২ ও ১৩৪ মো. মাসুদ বিল্লাহ। স্বাস্থ্য অধিদফতর কর্তৃক বাছাইকৃত ১৫৭ জনের মধ্যে মো. আবদুল কায়উম, শিমুল আহমেদ, মো. শাহিন আলম, মো. মোরশেদ রায়হান ছাড়া বাকি ১০ জনের নাম নিয়োগের চূড়ান্ত তালিকায় আছে।

এছাড়া গত ২৭ মে এনটিপি প্রোগ্রামের বিশেষ প্রকল্পে নিয়োগপ্রাপ্ত ২৭ জনের মধ্যে ৪ জন যারা কাজে যোগদান করেনি তাদের নাম ১৮৩ জনের তালিকায় রয়েছে। এরা হলেন ক্রমিক নং ৭০ ইসরাত জাহান, ক্রমিক নং ৭৫ মো. সিরাজুল ইসলাম, ক্রমিক নং ৮১ মাহমুদুল হাসান, ক্রমিক নং ১১০ প্রিন্সেস মেহের আফরোজ রুহানী।

এর মধ্যে ইসরাত জাহানের নাম ১৫৭ জনের চূড়ান্ত তালিকায় রয়েছে। এ ছাড়াও এনটিপি কর্মসূচির অধীনে ১৭ মে অস্থায়ী ভিত্তিতে ৩৩ জন নিয়োগ হয়। যারা ২৩ মে যোগদান করেন। একই কর্মসূচির অধীনে ২৭ মে আরও ২৭ জনের নিয়োগ হয়। তাদের অনেকে ১ জুন থেকে ৭ জুন যোগদান করেন।

সংশ্লিষ্টরা জানান, এদের অনেকে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত কাজে যোগদানের আগেই ২ জুন স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (প্রশাসন) স্বাক্ষরিত ১৮৩ জনের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন, যা ৩ জুন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব, উপসচিব ও অতিরিক্ত সচিব কর্তৃক অনুমোদিত হয়।

সংকট মোকাবেলায় স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে কিছু মেডিকেল টেকনোলজিস্ট এই কাজে সম্পৃক্ত হয়। কিন্তু তাদের ১৮৩ জনের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ৮ জুন মেডিকেল টেকনোলজিস্ট নিয়োগ ছাড়পত্রে দেখা যায়, জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বিভিন্ন হাসপাতালে, প্রতিষ্ঠানে কর্মরত এমন ১৮৩ জনকে নতুন পদে সরাসরি স্থায়ী নিয়োগ দেয়া হবে।

কিন্তু ২ জুন স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালকের (প্রশাসন) পাঠানো এবং মন্ত্রণালয়ের উপসচিব , যুগ্ম সচিব, অতিরিক্ত সচিব কর্তৃক ৩ জুনে অনুমোদিত তালিকায় ঢাকার ১০টি কমিউনিটি সেন্টার, ৪টি বেসরকারি ক্লাব, ৪টি স্কুল অ্যান্ড কলেজ, ৭টি বেসরকারি হাসপাতালে এনজিও ব্র্যাক কর্তৃক নিয়োজিত কর্মচারীদের নাম রয়েছে।

একইভাবে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান আইদেশি ৪ জন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫ জন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪ জন, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ জন কর্মচারীর নাম ১৮৩ জনের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছে।

মাদরাসা শিক্ষকদের জুনের এমপিওর জিও জারি - dainik shiksha মাদরাসা শিক্ষকদের জুনের এমপিওর জিও জারি করোনায় ৪৭ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২ হাজার ৬৬৬ - dainik shiksha করোনায় ৪৭ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২ হাজার ৬৬৬ শিক্ষার্থীর সংখ্যার ভিত্তিতে স্কুলের তথ্য চেয়েছে অধিদপ্তর - dainik shiksha শিক্ষার্থীর সংখ্যার ভিত্তিতে স্কুলের তথ্য চেয়েছে অধিদপ্তর আশ্রয়কেন্দ্র হিসাবে বন্যা দুর্গত এলাকায় স্কুল-কলেজ খুলে দেয়ার নির্দেশ - dainik shiksha আশ্রয়কেন্দ্র হিসাবে বন্যা দুর্গত এলাকায় স্কুল-কলেজ খুলে দেয়ার নির্দেশ তিন শিক্ষকের ডাবল এমপিও : দৈনিক শিক্ষায় প্রতিবেদন প্রকাশের পর অধ্যক্ষকে শোকজ - dainik shiksha তিন শিক্ষকের ডাবল এমপিও : দৈনিক শিক্ষায় প্রতিবেদন প্রকাশের পর অধ্যক্ষকে শোকজ দৈনিক শিক্ষায় প্রতিবেদন প্রকাশের পর : তথ্য গোপন করে নেয়া অনুদানের টাকা ফেরত - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষায় প্রতিবেদন প্রকাশের পর : তথ্য গোপন করে নেয়া অনুদানের টাকা ফেরত জটিলতার দ্রুত সমাধান চান এমপিওবঞ্চিত শিক্ষকরা - dainik shiksha জটিলতার দ্রুত সমাধান চান এমপিওবঞ্চিত শিক্ষকরা প্রভাষকের বিরুদ্ধে ভুয়া সনদে চাকরির অভিযোগ - dainik shiksha প্রভাষকের বিরুদ্ধে ভুয়া সনদে চাকরির অভিযোগ শিক্ষায় বঙ্গবন্ধুর অবদান নিয়ে লেখা আহ্বান - dainik shiksha শিক্ষায় বঙ্গবন্ধুর অবদান নিয়ে লেখা আহ্বান বিনামূল্যে আন্তর্জাতিক মানের ডিজিটাল কনটেন্ট দিচ্ছে টিউটর্সইঙ্ক - dainik shiksha বিনামূল্যে আন্তর্জাতিক মানের ডিজিটাল কনটেন্ট দিচ্ছে টিউটর্সইঙ্ক শিক্ষকদের ফ্রি অনলাইন প্রশিক্ষণ চলছে - dainik shiksha শিক্ষকদের ফ্রি অনলাইন প্রশিক্ষণ চলছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website