বিরল রোগে আক্রান্ত দুই ভাই স্কুলে যেতে চায় - স্কুল - দৈনিকশিক্ষা

বিরল রোগে আক্রান্ত দুই ভাই স্কুলে যেতে চায়

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি |

যে বয়সে দৌড়ানোর কথা সেই বয়সে ওরা ক্লাসেই বসে থাকে। স্কুল আঙ্গিনায় অপেক্ষায় থাকে অভিভাবকদের জন্য। অন্যান্য ছাত্রদের ন্যায় তারা দৌড়াতে পারে না। ওদের পা চলে না। তারা উভয় অচল হিমুফিলিয়া রোগে আক্রান্ত। মা-বাবা অথবা বৃদ্ধ দাদা এসে এদের কোলে তুলে বাড়ি নিয়ে যায়। তাদের পড়ার আগ্রহ থাকায় পরদিন আবার স্কুলে দিয়ে যায়। এই হলো তাদের ছাত্র জীবন।

এদের গ্রামের বাড়ি উপজেলা সদর টেকানগর গ্রামে। তারা হতদরিদ্র দিনমজুর ফুল মিয়ার ছেলে। তারা উভয়ই টেকানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র। বড় ভাই সিরাজুল ইসলাম তৃতীয় শ্রেণিতে এবং ছোট ভাই ফয়সল ইসলাম প্রথম শ্রেণিতে পড়ে।

স্কুলে গিয়ে কথা হয় তাদের সঙ্গে। মা মনোয়ারা বেগম জানায়, প্রথমে সিরাজুলের নাকে একটি ক্ষত স্থান থেকে রক্ত ঝরতো। পরবর্তীতে একটি দাঁত পড়লে প্রায় দু’মাস দাঁতের মাড়ি দিয়া রক্ত ঝরে। স্থানীয় ডাক্তার, কবিরাজ, ঝারফুঁক, কোনো কাজেই আসেনি। যে যেখানে চিকিৎসার কথা বলেছে, অসহায় পিতা ফুল মিয়া রোগীদের নিয়ে সেখানেই হাজির হয়েছে। কিন্তু কোথায় কোনো ফল হয়নি।

অবশেষে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসলে তাদের ঢাকা বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে চিকিৎসার পরামর্শ দেয়া হয়। কিংকর্তব্যবিমূঢ় পিতা সহায় সম্বল বিক্রি করে সুদি মহাজনদের টাকায় চড়া সুদে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন। প্রথমে সিরাজ ও পরে ফয়সলকেও বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে ভর্তি করা হয়।

বঙ্গবন্ধু মেডিকেলের ছাড় পত্রে দেখা যায় গত ১১/০৭/২০১৮ইং ভর্তি হয়ে ১৯/০৭/২০১৮ইং পর্যন্ত চিকিৎসা নেন। ডাক্তার ফাতেমা ফারজানার চিকিৎসা সহায়তায় একটু সুস্থ হলে পরবর্তী ওষুধপত্র নিয়ে বাড়িতে আসেন। এখন পুনরায় বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে তাদের চিকিৎসার প্রয়োজন। তারা দিন দিন পঙ্গুত্বের দিকে ধাবিত হচ্ছে। এ ব্যয় বহুল চিকিৎসা দিনমজুর ফুল মিয়ার পক্ষে সম্ভব নয়। তাই সে লাজ লজ্জার মাথা খেয়ে বাচ্চাদের চিকিৎসার জন্য সমাজের বৃত্তবানদের কাছে হাত বাড়ায়। সেই সঙ্গে স্থানীয় সংসদ ও দেশের প্রধানমন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনাসহ জানায় সন্তানদের চিকিৎসার আকুতি।

মা মনোয়ারা বেগম আক্ষেপ করে বলেন, আমার সন্তানরা উন্নত চিকিৎসা পেলে ভালো হয়ে যেত। দাদা ইদু মিয়া (৭০) কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন, গত কাল বৈশাখীর ঝড়ে খেয়া পাড়াপাড়ের নৌকাটি ভেঙে ফেললে বাড়িতে এসে দেখি ঘরের চালাও উড়িয়ে নিয়ে গেছে। নাতিদের বসে পড়ার স্থানটিও দিতে পারছি না।

তারা লেখা পড়া করতে খুবই আগ্রহী। স্কুলের সভাপতি মো. কামাল উদ্দিন চৌধুরী এ প্রতিবেদককে জানান তাদের চিকিৎসার পুনঃউদ্যোগ নিলে ছাত্র শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির পক্ষে সাধ্যমতো সহায়তা করবো। এ ব্যাপারে প্রতিবেদনকারীর সঙ্গে কথা হয় নাসিরনগর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আলমগীর মিয়া, আশুতোষ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবদুর রহিম, ফান্দাউক পণ্ডিতরাম উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হাবিবুর রহমান, ভলাকুট কে.বি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাওলানা আতাউর রহমান গিলমানের।

তাদের দাবি সঠিক পরিচর্যার মাধ্যমে সু-চিকিৎসা হলে আমরাও সাধ্যমতো সহায়তা করবো। এ ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা উম্মে সালমা জানান, তারা নিয়মিত ছাত্র হলে আমার প্রতিষ্ঠানের পক্ষে থেকে সহায়তা দিতে চেষ্টা করবো। উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মো. আবুল খায়ের জানান, সমাজসেবা অফিসে থেকে তাদের প্রতিবন্ধী কার্ডের ব্যবস্থা করা হয়েছে। সম্ভবত অচিরেই আমরা উভয় ছাত্রকেই শিক্ষা সহায়তা দিয়ে চিকিৎসার সহায়তা করতে পারবো। 

শিক্ষা আইন যেন শুধু শিক্ষকদের শাসন করার জন্য না হয় - dainik shiksha শিক্ষা আইন যেন শুধু শিক্ষকদের শাসন করার জন্য না হয় হঠাৎ রাজধানীর ৩ স্কুলে প্রতিমন্ত্রী, ৫ শিক্ষককে শোকজ - dainik shiksha হঠাৎ রাজধানীর ৩ স্কুলে প্রতিমন্ত্রী, ৫ শিক্ষককে শোকজ ১৩ অক্টোবরের মধ্যে দাবি আদায় না হলে কর্মবিরতির হুমকি প্রাথমিক শিক্ষকদের - dainik shiksha ১৩ অক্টোবরের মধ্যে দাবি আদায় না হলে কর্মবিরতির হুমকি প্রাথমিক শিক্ষকদের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী নিয়োগের নীতিমালা প্রকাশ - dainik shiksha প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী নিয়োগের নীতিমালা প্রকাশ এইচএসসি পরীক্ষার সূচি প্রকাশ - dainik shiksha এইচএসসি পরীক্ষার সূচি প্রকাশ কোন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের কবে ভর্তি পরীক্ষা, এক নজরে - dainik shiksha কোন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের কবে ভর্তি পরীক্ষা, এক নজরে শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website