বিশেষ প্রণোদনা চান বাদপড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১৬ হাজার শিক্ষক - স্কুল - দৈনিকশিক্ষা

বিশেষ প্রণোদনা চান বাদপড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১৬ হাজার শিক্ষক

নিজস্ব প্রতিবেদক |

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এ পরিস্থিতিতে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা বেতন পেলেও বরাবরের মতোই আর্থিক সুবিধাবঞ্চিত সরকারিকরণের তালিকা থেকে বাদপড়া ৪ হাজারের বেশি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রায় ১৬ হাজার শিক্ষক। জীবিকা নির্বাহের জন্য এসব শিক্ষকরা খণ্ডকালীন কাজ, ক্ষুদ্র ব্যবসা, টিউশন, কৃষি কাজসহ বিভিন্ন কাজের সাথে জড়িত ছিলেন। চলমান পরিস্থিতিতে এসব কাজও বন্ধ রয়েছে। ফলে পরিবার-পরিজন নিয়ে আর্থিক অনিশ্চয়তায় পড়ার আশঙ্কা করছেন তারা। করোনা সংক্রমণ মোকাবেলায় বিশেষ প্রণোদনা ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কিন্তু সে প্রণোদনায় শিক্ষকদের জন্য কোন বরাদ্দ আছে কিনা তা উল্লেখ করা হয়নি। তাই বিশেষ প্রণোদনা চেয়েছেন সরকারিকরণের প্রক্রিয়া থেকে বাদপড়া চার হাজারের বেশি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রায় ১৬ হাজার শিক্ষক। এর আগেও প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে বিশেষ আর্থিক প্রণোদনা দেয়ার আবেদন জানিয়েছিলেন শিক্ষকরা।

বাংলাদেশ বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী বরাবর একটি খোলা চিঠির মাধ্যমে মঙ্গলবার (২১ এপ্রিল) ফের আর্থিক প্রণোদনার আবেদন জানানো হয়। সংগঠনটির সভাপতি মো. মামুনুর রশিদ খোকন দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, ‘আমরা দীর্ঘদিন ধরেই আর্থিক সহযোগিতা ছাড়া শিক্ষার্থীদের পাঠদান করে আসছি। জীবিকার জন্য অন্য কাজ করতে হতো। করোনার কারণে এখন তাও বন্ধ রয়েছে। এ অবস্থায় সরকার প্রধান আমাদের প্রতি সদয় না হলে স্ত্রী-সন্তান, বাবা-মা ভাই-বোন নিয়ে অনাহারে থাকতে হবে।তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে আমরা বিশেষ প্রণোদনা প্রদানের আবেদন জানিয়েছি।’

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপে ও ৩১ টি নির্দেশনার মাধ্যমে বর্তমানে করোনা ভাইরাস মোটামুটি নিয়ন্ত্রণে আছে। সরকারের নির্দেশনা দেশবাসী যেমন মেনে চলছে, তেমনি বেসরকারি প্রাথমিক শিক্ষকেরাও আপনার নির্দেশনা মেনে চলছে  এবং সংগঠন থেকে মেনে চলার আহ্বান করা হয়েছে। কিন্তু দুঃখের বিষয় হলো বেসরকারি শিক্ষকেরা কোন বেতন ভাতা পায়না। ঘরে বসে থাকায় অনেক শিক্ষক শিক্ষিকাদের খাদ্য অভাব দেখা দিয়েছে। প্রয়োজনে উপজেলা শিক্ষা অফিসারের মাধ্যমে অথবা সংগঠনের মাধ্যমে এই অসহায় শিক্ষকদের পাশে দাড়ানোর জন্য ভোটার আইডি কার্ড সংগ্রহ করে আর্থিক সহায়তার ব্যবস্থা করার আবেদন জানাচ্ছি। আর পরবর্তীতে জাতীয়করণের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

তিনি দৈনিক শিক্ষাডটকমকে আরও বলেন, এর আগেও আমরা বিশেষ প্রণোদনার আবেদন জানিয়েছিলাম। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করলেও সেখানে বেসরকারি প্রাথমিক শিক্ষকদের জন্য কোনো বরাদ্দ উল্লেখ করা হয়নি। তাই বেতনহীন জীবন-যাপন করা প্রায় ১৬ হাজার শিক্ষক হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন। খাবারের অভাবে অনেকেই রাস্তায় বের হতে হচ্ছে।

সংগঠনের নেতারা জানান, আমরা সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় বরাবর স্মারকলিপির মাধ্যমে আবেদন করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু করোনার কারণে অফিস বন্ধ থাকায় আমরা স্মারকলিপি জমা দিতে পারিনি। খোলা চিঠির মাধ্যমে আবেদন জানাচ্ছি। 

বাদপড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর শিক্ষকরা দৈনিক শিক্ষাডটকমকে জানান, ২০১৩ খ্রিষ্টাব্দে ৯ জানুয়ারি ২৬ হাজার ১৯৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণের ঘোষণা দিয়ে ইতিহাস রচনা করা হলেও দেশে আরো ৪ হাজার ১৫৯টি বিদ্যালয় সরকারিকরণ থেকে বঞ্চিত। এগুলোর মধ্যে রেজিঃ বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ৩৪টি, অস্থায়ী রেজিঃ বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ২৮৬টি, নন রেজিঃ বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ৩ হাজার ৩৩২টি ও মাদার স্কুলের নামে সমাপনী পরীক্ষায় অংশ নেয়া ৫০৭টি বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছিলেন, আজ থেকে বাংলাদেশে আর কোন বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থাকবে না। কিন্তু আজও আমদের স্কুলগুলো সরকারি হতে পারিনি। তাই, সরকারি কোন বেতন ভাতা বা আর্থিক সুবিধা আমরা পাই না।

বার্ষিক পরীক্ষা হবে না প্রমোশন পাবে সব শিক্ষার্থী - dainik shiksha বার্ষিক পরীক্ষা হবে না প্রমোশন পাবে সব শিক্ষার্থী ইবতেদায়ি শিক্ষকদের অনুদানের চেক ছাড় - dainik shiksha ইবতেদায়ি শিক্ষকদের অনুদানের চেক ছাড় বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার পক্ষে মন্ত্রণালয় - dainik shiksha বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার পক্ষে মন্ত্রণালয় টিউশন ফি আদায়ে স্কুল-কলেজগুলোকে নির্দেশনা দেবে অধিদপ্তর - dainik shiksha টিউশন ফি আদায়ে স্কুল-কলেজগুলোকে নির্দেশনা দেবে অধিদপ্তর জেএসসি পরীক্ষা না হলেও সনদ পাবে পরীক্ষার্থীরা - dainik shiksha জেএসসি পরীক্ষা না হলেও সনদ পাবে পরীক্ষার্থীরা প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের আবেদন করবেন যেভাবে - dainik shiksha প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের আবেদন করবেন যেভাবে অনার্সের শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা ছাড়া ডিগ্রি দেয়া ঠিক হবেনা : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha অনার্সের শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা ছাড়া ডিগ্রি দেয়া ঠিক হবেনা : শিক্ষামন্ত্রী শিক্ষক-শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অপপ্রচারে লিপ্ত ভুয়া অভিভাবকরা - dainik shiksha শিক্ষক-শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অপপ্রচারে লিপ্ত ভুয়া অভিভাবকরা বদরুন্নেছা কলেজে চাাঁদাবাজি: করোনাকালে সব ছাত্রীকে হাজির হওয়ার নির্দেশ - dainik shiksha বদরুন্নেছা কলেজে চাাঁদাবাজি: করোনাকালে সব ছাত্রীকে হাজির হওয়ার নির্দেশ please click here to view dainikshiksha website