বিশেষ প্রণোদনা পেতে ফের আবেদন বাদপড়া প্রাথমিকের ১৬ হাজার শিক্ষকের - সমিতি সংবাদ - দৈনিকশিক্ষা

বিশেষ প্রণোদনা পেতে ফের আবেদন বাদপড়া প্রাথমিকের ১৬ হাজার শিক্ষকের

নিজস্ব প্রতিবেদক |

করোনা সংক্রমণ মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ প্রণোদনা পেতে ফের আবেদন জানিয়েছেন বাদপড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১৬ হাজার শিক্ষক। আজ মঙ্গলবার (১৮ আগস্ট) সকালে প্রণোদনা চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আবেদন জমা দেন বাংলাদেশ বেসরকারি প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির ৩ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল। এর আগে গত ৬ ও ২১ এপ্রিল সংগঠনটির পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী বরাবর খোলা চিঠির মাধ্যমে আর্থিক প্রণোদনার আবেদন জানানো হয়।

জানা যায়, করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে গত মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। এ পরিস্থিতিতে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা বেতন পেলেও বরাবরের মতোই আর্থিক সুবিধাবঞ্চিত সরকারিকরণের তালিকা থেকে বাদপড়া ৪ হাজারের বেশি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রায় ১৬ হাজার শিক্ষক। জীবিকা নির্বাহের জন্য এসব শিক্ষকরা খণ্ডকালীন কাজ, ক্ষুদ্র ব্যবসা, টিউশন, কৃষি কাজসহ বিভিন্ন কাজের সাথে জড়িত ছিলেন। চলমান পরিস্থিতিতে এসব কাজও বন্ধ রয়েছে। ফলে পরিবার-পরিজন নিয়ে আর্থিক অনিশ্চয়তায় দিন কাটাচ্ছেন এসব শিক্ষকরা। এমন অবস্থায় ফের প্রণোদনা চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন জানালেন তারা।

আরও পড়ুন : বিশেষ প্রণোদনা চান বাদপড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১৬ হাজার শিক্ষক

আবেদনে শিক্ষকরা বলেন, সারা বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের প্রার্দুভাব যখন ভয়াবহ আকার ধারণ করেছিল সরকারের পক্ষ থেকে সব পেশার মানুষকে ঘরে থাকার আহ্বান করা হয়েছিল। সে সময় বাংলাদেশ বেসরকারি প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি ৬ এপ্রিল খোলা চিঠির মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে প্রণোদনা জন্য আবেদন করেছিল। করোনার কারণে বাংলাদেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ। এতে করে সরকারের অনুদানপ্রাপ্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বিপাকে না পড়লেও বিপাকে পড়েছিল বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা। 

এদিকে, নন-এমপি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা এককালীন প্রণোদনা পেলেও সরকারের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত কোনো প্রণোদনা বা আর্থিক সহায়তার ব্যবস্থা না হওয়ায় মানবেতর জীবন কাটাচ্ছেন বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা। বেতন ভাতা না থাকায় জীবনযাপনের জন্য এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা পাঠদান শেষে টিউশনি বা বিভিন্ন ক্ষুদ্র কাজে কর্মরত ছিলেন। করোনা ভাইরাসের কারণে তাও বন্ধ। কর্মহীন হয়ে পড়ায় স্ত্রী-সন্তান, মা-বাবা, পরিবার-পরিজন নিয়ে মহা-বিপদে আছেন তারা। এমনকি অনেক শিক্ষকের পরিবারে এখন খাবার পর্যন্ত নেই।

আবেদনে শিক্ষকরা আরও বলেন, এ সংকটকালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ৫০ লাখ মানুষের মধ্যে মানবিক সহায়তা ও নানা খাতে প্রণোদনা ঘোষণা করেছেন। আমাদের বিশ্বাস, আজকের এ আবেদনের মাধ্যমে এই অসহায় শিক্ষকদের জন্য তিনি নিশ্চয়ই প্রণোদনা ব্যবস্থা করবেন।

তারা বলেন, ১৯৭৩ খ্রিষ্টাব্দের ১ জুলাই বাংলাদেশের স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ৩৬ হাজার ১৬০টি বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সরকারিকরণ করেন। বর্তমান সরকার দায়িত্ব হাতে নিয়েই ২০১৩ খ্রিষ্টাব্দে ২৬ হাজার ১৯৩টি বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সরকারিকরণের ঘোষণা দেন। কিন্তু সেই সময় মাঠ পর্যায়ের পরিসংখ্যান ভুলের কারণে প্রায় ৪ হাজার ১৫৯টি বিদ্যালয় সরকারিকরণ হয়নি। এ বিদ্যালয়গুলো মধ্যে ১ হাজার ৩০০ বিদ্যালয় সরকারিকরণের জন্য যাচাই-বাছাই করা হয় যা এখনো মন্ত্রণালয়ে জমা রয়েছে।

ছাত্রাবাসে ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত কাউকে ছাড় দেয়া হবে না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী - dainik shiksha ছাত্রাবাসে ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত কাউকে ছাড় দেয়া হবে না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সংবাদ সম্মেলনে আসছেন শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha সংবাদ সম্মেলনে আসছেন শিক্ষামন্ত্রী করোনা: দেশে আরও ৩২ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১ হাজার ৪০৭ - dainik shiksha করোনা: দেশে আরও ৩২ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১ হাজার ৪০৭ অস্ত্র মামলায় সাহেদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড - dainik shiksha অস্ত্র মামলায় সাহেদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড মতিঝিল মডেল কলেজের টাকা আত্মসাতের ঘটনায় ২ জনের কারাদণ্ড - dainik shiksha মতিঝিল মডেল কলেজের টাকা আত্মসাতের ঘটনায় ২ জনের কারাদণ্ড বন্যার শুরুতেই আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে স্কুল-কলেজ খুলে দেয়ার নির্দেশ - dainik shiksha বন্যার শুরুতেই আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে স্কুল-কলেজ খুলে দেয়ার নির্দেশ এক কলেজেই জাল সনদধারী আট শিক্ষকের চাকরি! - dainik shiksha এক কলেজেই জাল সনদধারী আট শিক্ষকের চাকরি! শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণের দাবিতে শিক্ষক সমাবেশ ৫ অক্টোবর - dainik shiksha শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণের দাবিতে শিক্ষক সমাবেশ ৫ অক্টোবর প্রশ্নফাঁস করে কোটিপতি রংপুর মেডিকেল কলেজের পিয়ন - dainik shiksha প্রশ্নফাঁস করে কোটিপতি রংপুর মেডিকেল কলেজের পিয়ন please click here to view dainikshiksha website