বেতন বাড়লেও খুশি নন প্রাথমিকের শিক্ষকরা, বাড়বে বৈষম্য - স্কুল - দৈনিকশিক্ষা

বেতন বাড়লেও খুশি নন প্রাথমিকের শিক্ষকরা, বাড়বে বৈষম্য

নিজস্ব প্রতিবেদক |

প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন গ্রেড ১৪ ও ১৫তম থেকে ১৩তম গ্রেডে উন্নীত করেছে সরকার। রোববার এ সংক্রান্ত আদেশ জারি হয়। কিন্তু গ্রেড উন্নীত হলেও শিক্ষকদের কোনো উচ্ছ্বাস নেই বরং ক্ষুব্ধ হয়েছেন তারা। এমনকি আন্দোলনের কথাও বলেছেন। তারা বলছেন, গ্রেড উন্নীত করে সহকারী শিক্ষকদের মধ্যেই একপ্রকার বৈষম্য তৈরি করা হয়েছে। শিক্ষকদের অভিযোগ, পদমর্যাদা অনুযায়ী প্রধান শিক্ষকদের নিচের ধাপে সহকারী শিক্ষকদের অবস্থান হলেও বেতন তিন ধাপ নিচে।

শিক্ষকরা বলছেন, তারা বেতন বাড়ানোর জন্য নয়, গ্রেড বৈষম্য নিরসনের দাবি জানিয়েছেন। প্রধান শিক্ষকদের একধাপ নিচে সহকারী শিক্ষকদের গ্রেড নির্ধারণের জন্য আন্দোলন করা হয়েছে। প্রধান শিক্ষকদের বেতন ১১তম গ্রেড থেকে ১০তম গ্রেডে এবং সহকারী শিক্ষকদের বেতন ১৫ ও ১৪তম গ্রেড থেকে ১১তম গ্রেডে উন্নীত করার দাবি করা হয়েছিল। কিন্তু সরকার সেই দাবি মানেনি বলে ক্ষোভ শিক্ষকদের। তারা বলেন, গ্রেড উন্নীত করায় নতুন নিয়োগ পাওয়া শিক্ষকদের সুবিধা বাড়বে। কর্মরতদের নগণ্য পরিমাণ বাড়বে, কারো কমতেও পারে।

তথ্য অনুযায়ী, জানা গেছে, এতদিন প্রশিক্ষণ পাওয়া সহকারী শিক্ষকেরা ১৪তম গ্রেডে (শুরুতে মূল বেতন ১০ হাজার ২০০) প্রশিক্ষণবিহীন শিক্ষকেরা ১৫তম গ্রেডে (৯ হাজার ৭০০) বেতন পেতেন। তাদের দাবি ছিল ১১তম গ্রেড প্রদান। এই গ্রেডে বেতন স্কেল ১২ হাজার ৫০০ টাকা। শিক্ষকরা বলছেন, তাদের বেতন বৃদ্ধির পরিমাণ খুবই নগণ্য। যা মেনে নেওয়া যায় না। ১৩তম গ্রেডে উন্নীত হওয়ায় তারা ১১ হাজার টাকা স্কেলে বেতনভাতা পাবেন।

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো. শামছুদ্দিন মাসুদ বলেন, একই যোগ্যতায় অন্য মন্ত্রণালয়/অধিদপ্তরের সরকারি চাকরিরত সবার বেতন গ্রেডই তাদের তুলনায় তিন থেকে চার ধাপ ওপরে। ক্ষেত্রবিশেষে শিক্ষকদের চেয়ে কম শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে অন্য মন্ত্রণালয়/অধিদপ্তরে সহকারী শিক্ষকদের তুলনায় বেশি বেতনে চাকরি করেন।

প্রধান শিক্ষকের গ্রেড উন্নীত সংক্রান্ত মামলা চলমান রয়েছে। প্রধান শিক্ষকরা ১১তম গ্রেড থেকে ১০তম গ্রেডে উন্নীত করার জন্য উচ্চ আদালতে মামলা করেন। আদালত শিক্ষকদের পক্ষে রায় দেয়। কিন্তু সরকার পক্ষ ঐ আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করলে প্রক্রিয়াটি ঝুলে যায়। এ কারণে আদালতে বিষয়টি নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত প্রধান শিক্ষকরা ১১তম গ্রেডেই বেতন পাবেন।

শামছুদ্দিন মাসুদ বলেন, গ্রেড উন্নীত করায় শিক্ষকদের বেতন কমার আশঙ্কা আছে। তিনি বলেন, উচ্চ ধাপে বেতন পুনর্নির্ধারণ করলে দীর্ঘদিন ধরে কর্মরত শিক্ষকদের বেতন সামান্য বাড়বে। তা ২০০, ৫০০ টাকা হতে পারে। নিম্নধাপে বেতন পুনর্নির্ধারণ অনেকের বেতন কমবে।

শিক্ষক নেতারা জানিয়েছেন, এতদিন প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকদের মধ্যে বৈষম্য ছিল। এবার বৈষম্য নিরসনের কথা বলে তাতে নিয়োগ বিধি ২০১৯ এর তপশিল ২(গ) এর শর্ত জুড়ে দিয়ে খোদ সহকারী শিক্ষকদের মধ্যেই বৈষম্য সৃষ্টি করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন : বেতন বাড়ল প্রাথমিকের সহকারী শিক্ষকদের

বর্তমানে প্রাথমিকে নিয়োগের জন্য সব শিক্ষকের (নারী ও পুরুষ) শিক্ষাগত যোগ্যতা ডিগ্রি পাশ নির্ধারণ করা হয়েছে। কিন্তু এর আগে নারীদের শিক্ষাগত যোগ্যতা নির্ধারণ ছিল এসএসসি/এইচএসসি। ফলে আগের বিধিমালায় যারা নিয়োগ পেয়েছেন তাদের গ্রেড উন্নীত হবে না।

গ্রেড উন্নীতকরণে প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে একইসঙ্গে তুলে দেয়া হয়েছে প্রশিক্ষণ আর প্রশিক্ষণবিহীনদের গ্রেড পার্থক্য। এরও প্রতিবাদ জানিয়েছেন শিক্ষকরা।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে সারাদেশে ৬৫ হাজার ৯০২টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এগুলোতে ৩ লাখ ৭৫ হাজার সহকারী শিক্ষক ও ৪২ হাজার প্রধান শিক্ষক রয়েছেন।

স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের আত্তীকরণ দ্রুত শেষ করতে হবে: শিক্ষামন্ত্রীর কড়া নির্দেশ - dainik shiksha স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের আত্তীকরণ দ্রুত শেষ করতে হবে: শিক্ষামন্ত্রীর কড়া নির্দেশ উপযুক্ত মানবসম্পদ তৈরিতে কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই : শিক্ষা উপমন্ত্রী - dainik shiksha উপযুক্ত মানবসম্পদ তৈরিতে কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই : শিক্ষা উপমন্ত্রী আমার কারণে কেন আত্মহত্যা করবে সালমান: শাবনূর - dainik shiksha আমার কারণে কেন আত্মহত্যা করবে সালমান: শাবনূর করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচবেন যেভাবে - dainik shiksha করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচবেন যেভাবে ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের কলেজের সংশোধিত ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের কলেজের সংশোধিত ছুটির তালিকা ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছুটির তালিকা ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা ২০২০ খ্র্রিষ্টাব্দে মাদরাসার ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০২০ খ্র্রিষ্টাব্দে মাদরাসার ছুটির তালিকা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া দৈনিক শিক্ষার আসল ফেসবুক পেজে লাইক দিন - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষার আসল ফেসবুক পেজে লাইক দিন শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন please click here to view dainikshiksha website