ভুলবশত গুলি করে বিমান ভূপাতিত : ইরান - বিবিধ - দৈনিকশিক্ষা

ভুলবশত গুলি করে বিমান ভূপাতিত : ইরান

দৈনিকশিক্ষা ডেস্ক |

১৭৬  আরোহীসহ ইউক্রেনের বিমান ভুলবশত গুলি করে ভূপাতিত করার কথা স্বীকার করেছে ইরান। সেইসঙ্গে এ ঘটনাকে অমার্জনীয় ভুল বলে উল্লেখ করেছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জারিফও  দুঃখ প্রকাশ করেন। দেশটির রাজধানী তেহরানে ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে, নাকি কারিগরি ক্রটির কারণে উড়োজাহাজটি বিধ্বস্ত হয়েছে, এ নিয়ে সৃষ্ট ধূম্রজালের মধ্যে এই স্বীকারোক্তি জানালো তেহরান। দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে এক বিবৃতিতে এই স্বীকারোক্তি জানিয়েছে প্রশাসন। এ আঘাতটিকে মানবীয় ভুল বলে উল্লেখ করেছে তারা। খবরের সূত্র এপি। 

যদিও মাত্র একদিন আগে ঘটে যাওয়া এই ঘটনার পর, ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে উড়োজাহাজ ভূপাতিত হওয়ার অভিযোগ সরাসরি নাকচ করে দিয়েছিলেন ইরানের বিমানবাহিনীর প্রধান আলী আবেদজাদেহ। কানাডা ও যুক্তরাজ্যের দিক থেকে অভিযোগের আঙুল ওঠার পর রাজধানী তেহরানে এক সংবাদ সম্মেলনে এই দাবি করেছেন আলী আবেদজাদেহ।

বিবৃতিতে ইরানি সামরিক বাহিনী জানায়, উড়োজাহাজটিতে ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাত লাগার বিষয়টি ইচ্ছাকৃত ছিল না। এটা ছিল ভুল। এ ঘটনার জন্য দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

গত বুধবার ইরানের তেহরান বিমানবন্দর থেকে ওড়ার খানিক পরই ইউক্রেনের উড়োজাহাজটি বিধ্বস্ত হয়। এতে ১৭৬ জন আরোহীর সবাই মারা যায়।

এদিকে, ইরান ও যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধ উন্মাদনা আর টান টান উত্তেজনার আবহেই ইরানের বিরুদ্ধে নতুন নিষেধাজ্ঞা ঘোষণা করেছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন। ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের নির্বাহী আদেশ দিয়েছেন ট্রাম্প। সে আদেশের অনুলিপি হোয়াইট হাউজ প্রকাশ করেছে।  

এতে বিশ্বে সন্ত্রাসের বড় ধরনের মদদদাতা, সামরিক শক্তি ব্যবহার করে যুক্তরাষ্ট্রের ঘাঁটি ও সেনাদেরকে হুমকির মুখে ফেলাসহ ইরান-সমর্থিত মিলিশিয়া গোষ্ঠীগুলোকে সহায়তাকারী দেশ হিসাবে ইরানকে নিষেধাজ্ঞার আওতায় রাখতে বলা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের অর্থমন্ত্রী স্টিভ মিউচিন বলেছেন, ইরানের বিভিন্ন শিল্প নতুন নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়বে। এর মধ্যে আছে নির্মাণ শিল্পসহ, শিল্প উৎপাদন, বস্ত্র, খনি, ইস্পাত ও লোহা শিল্প। 

অন্যান্য আরও কিছু নিষেধাজ্ঞার আওতায় আসছেন ইরানের ৮ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা। ট্রাম্প প্রশাসন বলছে, এই কর্মকর্তারা এ সপ্তাহে ইরাকের মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে ইরানের ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় জড়িত ছিলেন। বিশ্বে ইরানের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বন্ধ করাই এ নিষেধাজ্ঞার লক্ষ্য বলে উল্লেখ করা হয়।

ইরানের ‘অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা বলয়’এ শাস্তিমূলক নিষেধাজ্ঞার টার্গেট বলে জানিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। এর আগে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বৃহস্পতিবার নিষেধাজ্ঞার ধরন সম্পর্কে পূর্বাভাস দিয়ে বলেছিলেন, ইরানের ওপর যে নিষেধাজ্ঞা বহাল আছে তা অনেক কঠোর। কিন্তু এখন এগুলো আরও অনেক বেশি বাড়িয়ে দেয়া হবে।

ইরাকে মার্কিন ঘাঁটিতে গত সপ্তাহে ইরানি ক্ষেপণাস্ত্র হামলার জবাবে ট্রাম্প বুধবার সামরিক শক্তি প্রয়োগের পথে না গিয়ে ইরানের ওপর বাড়তি এই নিষেধাজ্ঞা আরোপের সিদ্ধান্ত জানিয়েছিলেন হোয়াইট হাউজের ভাষণে।

ইরান ও আমেরিকার মধ্যকার প্রাথমিক উত্তেজনার পর্যায়টি এখন অনেকটাই প্রশমিত ধরে নেয়া হয়েছিল। আক্ষরিক অর্থে না হলেও মোটাদাগে যে যুদ্ধ-যুদ্ধ উন্মাদনা তৈরি হয়েছিল তার রাশ দুই পক্ষই টেনে ধরেছে। ইরান ইরাকে থাকা মার্কিন কিছু স্থাপনায় হামলা চালিয়ে তাদের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সমরবিদ কাশেম সোলাইমানি হত্যার প্রতীকী প্রতিশোধ নিয়ে সরাসরি বলে দিয়েছে যে, ‘যুদ্ধ চাই না’। তাদের ভাষ্য অনুযায়ী হামলায় ৮০ জন আমেরিকান নিহত হয়েছেন।

কিন্তু মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প স্পষ্ট প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বলে দিয়েছেন, কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। একই সঙ্গে তিনি এও বলে দিয়েছেন যে, সব ঠিকঠাকই আছে। নতুন কোনো আস্ফালন তিনি করেননি। তবে নতুন করে ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপে পিছপাও হননি।

এই পরিস্থিতি বলে দিচ্ছে যে, ইরান ও আমেরিকার মধ্যকার উত্তেজনা খুব শিগগিরই সরাসরি যুদ্ধের মতো কোনো দিকে যাচ্ছে না। তবে বিভিন্ন ফ্রন্টে চলমান ছায়াযুদ্ধ যে চলবে, তা এক রকম নিশ্চিত।

একাদশে ভর্তির আবেদন শুধুই অনলাইনে, শুরু ১০ মে - dainik shiksha একাদশে ভর্তির আবেদন শুধুই অনলাইনে, শুরু ১০ মে স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের ফেব্রুয়ারির এমপিওর চেক ছাড় - dainik shiksha স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের ফেব্রুয়ারির এমপিওর চেক ছাড় লেখাপড়ার সাথে জিপিএ-৫ এর কোনো সম্পর্ক নেই : মুহম্মদ জাফর ইকবাল - dainik shiksha লেখাপড়ার সাথে জিপিএ-৫ এর কোনো সম্পর্ক নেই : মুহম্মদ জাফর ইকবাল সমন্বিত ভর্তিতে বাধা হলে সেই স্বায়ত্বশাসন নিয়েও ভাবা উচিত : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha সমন্বিত ভর্তিতে বাধা হলে সেই স্বায়ত্বশাসন নিয়েও ভাবা উচিত : শিক্ষামন্ত্রী ঢাকা কলেজের ৫ ছাত্র ছুরিকাহত : সিটি কলেজের ৩ ছাত্র গ্রেফতার - dainik shiksha ঢাকা কলেজের ৫ ছাত্র ছুরিকাহত : সিটি কলেজের ৩ ছাত্র গ্রেফতার জেডিসিতে বৃত্তিপ্রাপ্ত ৯ হাজার শিক্ষার্থীর তালিকা প্রকাশ - dainik shiksha জেডিসিতে বৃত্তিপ্রাপ্ত ৯ হাজার শিক্ষার্থীর তালিকা প্রকাশ বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ভর্তি পরীক্ষা হবে চারটি পৃথক গুচ্ছে - dainik shiksha বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ভর্তি পরীক্ষা হবে চারটি পৃথক গুচ্ছে মাস্টার্স শেষ পর্ব পরীক্ষা শুরু ২৮ মার্চ - dainik shiksha মাস্টার্স শেষ পর্ব পরীক্ষা শুরু ২৮ মার্চ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া দৈনিক শিক্ষার আসল ফেসবুক পেজে লাইক দিন - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষার আসল ফেসবুক পেজে লাইক দিন শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন please click here to view dainikshiksha website