please click here to view dainikshiksha website

ভুলে ভরা প্রশ্নে পরীক্ষা

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি | আগস্ট ৮, ২০১৭ - ৭:৩২ অপরাহ্ণ
dainikshiksha print

দামুড়হুদা উপজেলায় ভুলে ভরা প্রশ্ন দিয়ে পরীক্ষা দিয়েছে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। সোমবার দামুড়হুদা আন্তঃপ্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২য় সাময়িক পরীক্ষার ১১৬টি স্কুলে ভুলে ভরা প্রশ্ন দিয়েই শুরু হয়েছে প্রথম দিনের ইংরেজি পরীক্ষা। ১ম এবং ২য় শ্রেণীর ইংরেজি প্রশ্নে পাওয়া যায় অসংখ্য ভুল।

সিলেবাসের বাইরে থেকে দেয়া হয়েছে প্রশ্ন। ইংরেজি ‘অ’ এর আগের বর্ণ লিখতে বলা হয়েছে। শিশুরা এরকম প্রশ্ন পেয়ে পড়েছে বিভ্রান্তিতে। কীভাবে তারা উত্তর করবে তা বুঝতে পারেনি। এছাড়াও ৩য় ও ৫ম শ্রেণীর প্রশ্নপত্রেও অসংখ্য ভুল পাওয়া গেছে। প্রশ্নে অসংখ্য ভুল থাকলেও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের এ নিয়ে কোনো মাথাব্যথা নেই। তবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ অভিভাবক মহলে তোলপাড় সৃৃষ্টি হয়েছে।

সোমবার বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, ইংরেজি প্রশ্নে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত প্রশ্নের বিভিন্ন জায়গায় অসংখ্য ভুল রয়েছে। মিসিং লেটার লিখতে বললেও কোনো বর্ণ দেয়া হয়নি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক শিক্ষক ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, কর্তৃপক্ষ যেভাবে পরীক্ষা নেবে আমরা সেভাবেই পরীক্ষা নিচ্ছি। এ ব্যাপারে শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক স্বরুপ দাস বলেন, উপজেলা শিক্ষা অফিস শিক্ষকদের কাছ থেকে প্রশ্ন চাই। তারপর উপজেলা শিক্ষা অফিস তা যাচাই-বাছাই করে প্রশ্নপত্র প্রেসে দেন।

সেখান থেকে প্রশ্নপত্র তৈরি হলে তা কারেকশন করেন উপজেলা শিক্ষা অফিস। কিন্তু কেন এত ভুল হল তা বোধগম্য নয়। এতে করে আমরা শিক্ষার্থীদের সঠিকভাবে মূল্যায়ন করতে পারি না। এ ব্যাপারে উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা আশরাফুল আলম বলেন, আমরা তো এক্সপার্ট শিক্ষককে দিয়ে প্রশ্ন করিয়েছি। কেন এমন ভুল হল তা বুঝতে পারছি না।

সংবাদটি শেয়ার করুন:


পাঠকের মন্তব্যঃ ১টি

  1. মোঃ হবিবর রহমান, প্রভাষক, পরিসংখ্যান, বীরগঞ্জ ডিগ্রী কলেজ, দিনাজপুর। says:

    সৃজনশীল প্রশ্নপদ্ধতির উপর যার অভিজ্ঞতা আছে তিনি যে কোন বিষয়ের প্রশ্ন দেখলেই বুঝবেন প্রশ্নগুলো সঠিক হয়েছে কিনা। বোর্ডের অনেক প্রশ্নপত্র দেখে বোঝা যায় তা ব্যাকরণ সম্মত হয়নি। শোনা যাচ্ছে পরীক্ষার খাতা অবমূল্যায়নকারীদের শাস্তির ব্যাবস্থা হচ্ছি। ভাল উদ্যোগ। পাশাপাশি প্রশ্ন প্রনয়নকারী এবং তাদের নিয়োগকারী কর্মকর্তাদেরও শাস্তির ব্যাবস্থা করতে হবে।

আপনার মন্তব্য দিন