মাদরাসা শিক্ষকদের বেতন দেরিতে ছাড়ের দায় অধিদপ্তরের: জমিয়াতুল মোদার্রেছীন - সমিতি সংবাদ - Dainikshiksha

মাদরাসা শিক্ষকদের বেতন দেরিতে ছাড়ের দায় অধিদপ্তরের: জমিয়াতুল মোদার্রেছীন

নিজস্ব প্রতিবেদক |

মাদরাসা শিক্ষক-কর্মচারীদের মে মাসের বেতন ও পবিত্র ঈদুল ফিতরের বোনাসের চেক দেরিতে ছাড় করায় মাদরাসা অধিদপ্তরের ওপর ক্ষুব্ধ হয়েছেন মাদরাসা শিক্ষক-কর্মচারীদের সংগঠন বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের নেতারা। সাধারণ স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের বেতন ও বোনাসের চেক গত সপ্তাহে ছাড় হয়েছে এবং তারা অনেকেই ঈদের আগেই বেতন-বোনাস তুলতে পারবেন। কিন্তু মাদরাসা শিক্ষকরা তা পারবেন না, কারণ আগামীকাল (বৃহস্পতিবার) বাদে  ঈদের আগে আর মাত্র একটি দিন ব্যাংক খোলা।

বুধবার (২৯ মে) সংগঠনের সভাপতি আলহাজ্ব এ এম এম বাহাউদ্দীন ও মহাসচিব অধ্যক্ষ শাব্বীর আহমদ মোমতাজীর পাঠানো এক বিবৃতিতে ক্ষোভ জানানো হয়। 

শাব্বির আহমদ মোমতাজী বুধবার সোয়া তিনটায় টৈলিফোনে দৈনিক শিক্ষাকে বলেন, ‘মাদরাসা ও কারিগরি বিভাগের সচিবের সাথে আমি সাক্ষাৎ করেছি। সচিব স্যার আমাকে বলেছেন, মাদরাসা অধিদপ্তর থেকে দেরিতে বিল পাঠানোয় এমন অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। দেরির দায় মন্ত্রণালয়ের নয়।’ 

বিবৃতিতে বলা হয়, ঈদের আগে মাদরাসা শিক্ষক-কর্মচারীদের মে মাসের বেতন ও বোনাস প্রদান না করায় তাঁরা এবার ঈদের আনন্দ থেকে বঞ্চিত হবেন। একই দেশের বসবাস করে, একই সরকারের অধীনে থেকে কেউ উল্লাসের মধ্যে ঈদ উপভোগ করবে, আবার কেউ অশ্রুসিক্ত থাকবে তা হতে পারে না। সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে যাদের চক্রান্তে বা অলসতায় কাঙ্ক্ষিত সময়ে মাদরাসা শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন-বোনাস থেকে বঞ্চিত হলেন তা ক্ষতিয়ে দেখার দাবি জানিয়েছেন সংগঠনটির নেতারা। এছাড়া বিবৃতিতে, ঈদের মাদরাসা শিক্ষকদের বেতন-বোনাস না পাওয়ার বিষয়ে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন সংগঠনটির নেতারা।

বিবৃতি নেতারা আরও বলেন, ‘মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তর প্রতিষ্ঠার পর থেকেই শিক্ষকদের বেতন ভাতা প্রদানে প্রায়ই এমন দেরী হয়। ভবিষ্যতে যাতে মাদরাসা শিক্ষক-কর্মচারীদের এমন দুর্ভোগ পোহাতে না হয় সে ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রধানমন্ত্রীর ও শিক্ষামন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে অনুরোধ করছি।’ 

শিক্ষার্থীদের ইউনিক আইডি: বহু অপেক্ষার পর আগামী বছর থেকে বাস্তবায়ন - dainik shiksha শিক্ষার্থীদের ইউনিক আইডি: বহু অপেক্ষার পর আগামী বছর থেকে বাস্তবায়ন একাদশে ভর্তি: ২য় দফার আবেদন শুরু - dainik shiksha একাদশে ভর্তি: ২য় দফার আবেদন শুরু এমপিওভুক্তির জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের তালিকা হচ্ছে - dainik shiksha এমপিওভুক্তির জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের তালিকা হচ্ছে বিসিএসেও তৃতীয় পরীক্ষক চালু - dainik shiksha বিসিএসেও তৃতীয় পরীক্ষক চালু ডিগ্রি ২য় বর্ষ পরীক্ষার ফরম পূরণের সময় বাড়লো - dainik shiksha ডিগ্রি ২য় বর্ষ পরীক্ষার ফরম পূরণের সময় বাড়লো ঢাকা বোর্ডে এসএসসির ট্রান্সক্রিপ্ট বিতরণ শুরু ২৫ জুন - dainik shiksha ঢাকা বোর্ডে এসএসসির ট্রান্সক্রিপ্ট বিতরণ শুরু ২৫ জুন ইআইআইএন নাম্বারের সিম কার্ড পাচ্ছে ঢাকা বোর্ডের সব প্রতিষ্ঠান, বিতরণ শুরু ২৫ জুন - dainik shiksha ইআইআইএন নাম্বারের সিম কার্ড পাচ্ছে ঢাকা বোর্ডের সব প্রতিষ্ঠান, বিতরণ শুরু ২৫ জুন পাবলিক পরীক্ষার গ্রেড: যা আছে আর যা হবে - dainik shiksha পাবলিক পরীক্ষার গ্রেড: যা আছে আর যা হবে স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদরাসা শিক্ষকদের এমপিও দিতে প্রস্তাব চেয়েছে মন্ত্রণালয় - dainik shiksha স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদরাসা শিক্ষকদের এমপিও দিতে প্রস্তাব চেয়েছে মন্ত্রণালয় প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় কঠোর নজরদারির নির্দেশ গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর - dainik shiksha প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় কঠোর নজরদারির নির্দেশ গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর শিক্ষক নিবন্ধন: ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস বিষয়ের নতুন সিলেবাস দেখুন - dainik shiksha শিক্ষক নিবন্ধন: ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস বিষয়ের নতুন সিলেবাস দেখুন সার্টিফিকেট ছাপার আগেই ২ কোটি টাকা তুলে নিলেন ছায়েফ উল্যাহ - dainik shiksha সার্টিফিকেট ছাপার আগেই ২ কোটি টাকা তুলে নিলেন ছায়েফ উল্যাহ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website