মাদরাসা শিক্ষকরা উৎকন্ঠায়, আজও ছাড় হয়নি বেতন-বোনাসের চেক - এমপিও - Dainikshiksha

মাদরাসা শিক্ষকরা উৎকন্ঠায়, আজও ছাড় হয়নি বেতন-বোনাসের চেক

নিজস্ব প্রতিবেদক |

ঈদ-উল-ফিতরের আগে বেতন ও বোনাসের টাকা হাতে না পাওয়ার আশঙ্কা করছেন সারাদেশের এমপিওভুক্ত মাদরাসার শিক্ষকরা। আগামী ৫ জুন পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপনের কথা রয়েছে। কিন্তু আজ মঙ্গলবার (২৮ মে) পর্যন্ত মাদরাসা শিক্ষকদের চলতি মে মাসের বেতন-ভাতা ও ঈদ উৎসবের ভাতার চেক ছাড় হয়নি। চলতি সপ্তাহের মধ্যে এমপিও ও বোনাসের টাকা ব্যাংকে না পৌঁছালে ঈদের আগে টাকা তোলা সম্ভব হবে না বলে দৈনিক শিক্ষার কাছে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন শত শত মাদরাসার শিক্ষক। দৈনিক শিক্ষায় টেলিফোন  ও ইমেইল করে তাদের উৎকন্ঠার কথা জানিয়েছেন। 

ভোলার লালমোহন উপজেলার মাদরাসা শিক্ষক হাবিবুর রহমান জানান, আর মাত্র ৩ দিন ব্যাংক খোলা থাকবে। এখনো চেক ছাড় হয়নি। এ বিষয়ে কিছুই জানিনা আমরা। সাধারণত চেক ছাড় হবার পর যেদিন বেতন তোলার শেষ দিন বা তার আগের দিন বিল জমা দিতে পারি। টাকা ক্যাশ হতেও একদিন সময় লাগে। আগামীকাল বুধবারেও যদি চেক ছাড় হয় তাহলেও ঈদের আগে বেতন-বোনাস তুলতে পারবো না। ব্যাংকে গেলে কর্মকর্তারা বলবেন টাকা নেই। পরিবার পরিজন নিয়ে কিভাবে ঈদ উদযাপন করবো কিছুই জানিনা।

জামালপুর সদর উপজেলার মাদরাসা শিক্ষক আবদুল মতিন দৈনিক শিক্ষাকে জানান, আগামীকাল বুধবার চেক ছাড় হলেও আমরা ঈদের আগে বেতন-বোনাস তুলতে পারবো না। কারণ বেতন উত্তোলনের শেষ দিনে ব্যাংকগুলো বিল গ্রহণ করে। সেদিন বিল জমা দিলে তা ক্যাশ হতে আরও দু-একদিন লেগে যায়।

বিভিন্ন ব্যাংকের কর্মকর্তারা দৈনিক শিক্ষাকে জানান, মঙ্গলবার পর্যন্ত ব্যাংকে এমপিওভুক্ত মাদরাসা শিক্ষকদের বেতন বা ঈদ বোনাসের চেক ছাড় হয়নি। এইসপ্তাহের মধ্যে চেক ছাড় হয়ে আদেশ ব্যাংকে না পৌছালে ঈদের আগে মাদরাসা শিক্ষকদের বেতন ও বোনাস প্রদান করা অসম্ভব হয়ে যাবে। কর্মকর্তারা আরও জানান, আগামী সপ্তাহে শুধু ৩ জুন ব্যাংক খোলা থাকবে। ঈদের আগের শেষ কর্মদিবস হিসেবে এমনিতেই ব্যাংক ব্যস্ত থাকে। সেদিনই মাদরাসা শিক্ষকদের বেতন ও বোনাসের বিল ব্যাংকে জমা নিয়ে সেদিনই তা প্রত্যেক হিসাবে পোস্টিং করা সম্ভব হবে না। তার আগেতো চেক ছাড় হয়ে টাকা পৌছাতে হবে ব্যাংকে। 

শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্র মঙ্গলবার বেলা তিনটার দিকে দৈনিক শিক্ষাকে জানায়, মঙ্গলবার দুপুরে মন্ত্রণালয়ের উচ্চ পর্যায় থেকে মাদরাসা শিক্ষকদের চেক ছাড়ের সরকারি অনুমোদন মিলেছে। 

মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্র দৈনিক শিক্ষাকে জানায়, দুদিন আগেই বেতন ও বোনাসের হিসেব মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের আদেশের অপেক্ষায় ছিলেন কর্মকর্তারা। শুনেছি আজ (মঙ্গলবার) দুপুরে চেক ছাড়ের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। আমরা সে অপেক্ষাতেই ছিলাম। যদিও আদেশ হাতে পাইনি। কবে নাগাদ চেকছাড় হতে পারে তা দৈনিক শিক্ষার পক্ষ থেকে জানতে চাইলে আগামীকাল চেক ছাড় হতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের একজন কর্মকর্তা।    

সাধারণ স্কুল-কলেজ ও কারিগরির শিক্ষকদের চেক ইতিমধ্যে ব্যাংকে পাঠানো হয়েছে। 

প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায়ও থাকছে না জিপিএ ৫ - dainik shiksha প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায়ও থাকছে না জিপিএ ৫ প্রাথমিকের প্রতিটি শিশুই হবে ডিকশনারি: গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী - dainik shiksha প্রাথমিকের প্রতিটি শিশুই হবে ডিকশনারি: গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী সাধারণ শিক্ষায় কারিগরি ট্রেড ও শিক্ষামন্ত্রীর ব্যাখ্যা (ভিডিও) - dainik shiksha সাধারণ শিক্ষায় কারিগরি ট্রেড ও শিক্ষামন্ত্রীর ব্যাখ্যা (ভিডিও) জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্স ভর্তির যোগ্যতা নির্ধারণ - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্স ভর্তির যোগ্যতা নির্ধারণ নবজাগরণের অগ্রদূত আহমদ ছফা অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখতেন - dainik shiksha নবজাগরণের অগ্রদূত আহমদ ছফা অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখতেন মাদরাসায় নবসৃষ্ট পদ পূরণে টাকার হিসেব চেয়েছে মন্ত্রণালয় - dainik shiksha মাদরাসায় নবসৃষ্ট পদ পূরণে টাকার হিসেব চেয়েছে মন্ত্রণালয় এমপিওভুক্তিতে মহিলা কোটার পদ নির্ধারণে শাখাভিত্তিক আলাদা হিসাব নয় - dainik shiksha এমপিওভুক্তিতে মহিলা কোটার পদ নির্ধারণে শাখাভিত্তিক আলাদা হিসাব নয় ১৬তম শিক্ষক নিবন্ধনে আবেদন ১০ লাখ ৩৫ হাজার - dainik shiksha ১৬তম শিক্ষক নিবন্ধনে আবেদন ১০ লাখ ৩৫ হাজার ঢাকা বোর্ডে এসএসসির ট্রান্সক্রিপ্ট বিতরণ শুরু ২৫ জুন - dainik shiksha ঢাকা বোর্ডে এসএসসির ট্রান্সক্রিপ্ট বিতরণ শুরু ২৫ জুন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website