please click here to view dainikshiksha website

মানসম্মত শিক্ষার জন্য দরকার শিক্ষকের জীবন মান উন্নয়ন

বিশ্বজিৎ রায় | আগস্ট ১৬, ২০১৭ - ৫:১৯ অপরাহ্ণ
dainikshiksha print

অতি অল্পসময়ের মধ্যে আমাদের এই সোনার  বাংলাদেশ তার নির্দিষ্ট লক্ষ অর্জন করতে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে আমরা নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশ হওয়ার স্বীকৃতি লাভ করেছি। জিডিপি ৭ শতাংশের উপরে।  সরকার আশা করছে আগামী বছর জিডিপি ৭ দশমিক ৮৭ হবে। ২০২১  সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ ও ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বিশ্বের কাতারে যাবে আমাদের এ সোনার বাংলাদেশ। বাংলাদেশ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল। হবে দক্ষিণ এশিয়ায় অর্থনীতির পরাশক্তি। সংসদে প্রধানমন্ত্রী তার দেওয়া বক্তৃতায় বলেছেন আমরা সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষমাত্রা  অর্জন করেছি আর ২০৩০ এর মধ্যে এম, ডি, জি অর্জন করে বাংলাদেশ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল হবে। মাননীয় অর্থমন্ত্রী  ২০১৭-২০১৮ অর্থ বছরে ৪ লক্ষ ২৬৬ কোটি টাকার বাজেট বরাদ্দ  দিয়েছেন। এ যাবৎ কালের মধ্যে দেওয়া সর্বোচ্চ বাজেট। মাথা পিছু আয় ১৬০২ মার্কিন ডলার। বেকার সমস্যা সমাধান কল্পে ১০ টি অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ার কাজ চলছে। আরও ১০০টি অর্থ নৈতিক অঞল গড়ার পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে।

পদ্মা বহুমূখী সেতু, রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, পায়রা সমুদ্রবন্দর দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে নুতন সংযোজন। পদ্মা সেতু চালু হলে দেশের দক্ষিণ অঞ্চলে অভূত পূর্ব উন্নয়ন সাধিত হবে। শিক্ষাক্ষেত্রে অভূতপূর্ব অবদানের জন্য শিক্ষমন্ত্রী ব্যাক্তিগত ক্যাটাগরিতে ওয়ার্ল্ড এডুকেশন কংগ্রেস গ্লোবাল এওয়ার্ড ২০১৭ পাচ্ছেন। প্রতিবছর ১লা ৩৬ কোটি বই শিক্ষার্থীর হাতে পৌছিয়ে যাচ্ছে। মানব উন্নয়নে বাংলাদেশ পৃথিবীর ১৮৮ দেশের মধ্যে ১৩৯তম। ১লা  জানুয়ারি বৈশাখের মঙ্গল শোভাযাত্রা ও ২১ শে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেয়েছে। শান্তিরক্ষা মিশনে বাংলাদেশের সেনাবাহিনীর ভূমিকা প্রসংশনীয়। এমনই একটি গর্বিত দেশের নাগরিক হয়ে দেশের বেসরকারি শিক্ষকদের বেহালদশা ভাবাই যায়না। জুন মাসের বেতনের অর্ডার হয়েছে গত ২৪ জুলাই ২০১৭ খ্রিস্টাব্দ। অর্থাৎ জুন ও জুলাই এ দু মাস  বেতন পায়নি বেসরকারি  শিক্ষরা। যারা মুলত শুধুমাত্র সরকারি বেতন ভাতার উপর নির্ভরশীল তারা কী ভাবে  চলেছে তা ভাবার বিষয়। সামাজিক ভাবে যেমন বৈষম্যে স্বীকার হচ্ছে তেমনি রাষ্ট্রীয়ভাবে তো আছে। একই সিলেবাস পড়িয়ে সরকারি বেসরকারি বেতন বৈষম্য স্বাধীনতার ৪৬ বছর পরও থাকবে তা ভাবা যায়না। প্রধানমন্ত্রী স্বপ্রনোদিত হয়ে সাবর্বজনীন বৈশাখী ভাতা প্রচলন ঘটিয়েছিলেন।

প্রজাতন্ত্রের সকল কর্মকর্তা কর্মচারি এ ভাতা পেয়ে মহা আনন্দে বৈশাখ উদযাপন করলেন। আর বেসরকারি  শিক্ষকরা  ভাতা ছাড়া আড়ম্বরে বৈশাখী  উৎসব পালন করল। লজ্জ্বায় মাথা নত হলো তাদের। অভিভাবকের বঞ্চনা পরিবার পরিজন দেখল। এ বঞ্চনা উত্তরণের কোন উপায় নেই তার হাতে। এ বঞ্চনা সরকারের উচ্চ মহলে জানানোর কম চেষ্টা করেনি তারা। সরকারের কিছু কিছু কর্তাব্যক্তি এ নিয়ে মন্তব্য করলেও তা কাজে আসেনি। আমরা বেসরকারি  শিক্ষরা আসান্বিত হয়েছিলাম সেই দিন যে দিন অর্থমন্ত্রী নিজেই বৈশাখী ভাতা নিয়ে কথা বলেছিলেন। তিনি বলেছিলেন “বেসরকারি  শিক্ষকদের বৈশাখী  ভাতা পাওয়া উচিৎ”। ৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধি সরকারি কর্মকর্তা- কর্মচারিরা পেলেও বেসরকারি শিক্ষকরা পচ্ছেনা। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ মারফত জানতে পারলাম যে বেসরকারিদের জন্য ৩ শতাংশ প্রবৃদ্ধি দেওয়ার বিষয়টি আলোচিত হচ্ছে। কিন্তু ৩ শতাংশ দেওয়ার বিষয়টি ২০১৫ এর বেতন গেজেট এর সঙ্গে সাংঘর্ষিক কী না প্রশ্ন থেকে যায়? টাইমস্কেল হোক আর অটোমেশন হোক সরকারি চাকুরীজীবীরা পেলেও বেসরকারি শিক্ষকরা না পাওয়ায় হাজার শিক্ষক আজ দুশ্চিন্তা গ্রস্থ। টাইম স্কেল বিষয়টি  মিমাংসিত বিষয়।

২০১৫ এর বেতন গেজেট প্রকাশের ফলে বিষয়টি অমিমাংসীত হয়েছে যার জট এখনও খুললো না। বদলি  হওয়াটা খুবই জরুরী। বদলী ব্যবস্থা না থাকায় জড় পদার্থের মত অবস্থা হয় বেসরকারি শিক্ষকদের।  পেশায় কোন বৈচিত্র নেই। সম্প্রতি  উদ্ভট এক সমস্যা শিক্ষদের দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছিল। সমস্যাটি হল কল্যাণ ও অবসর হতে ৪ শতাংশ অতিরিক্ত কর্তন। ক্ষোভে দু:খে ফেটে পড়েছিল শিক্ষক সমাজ। বিভিন্ন শিক্ষকসংঘঠনগুলো কর্মসূচি আওড়ালো। কিছু সংগঠন এখনো কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে। শিক্ষক সংগঠন গুলোর প্রতিনিধিদের নেওয়া সিদ্ধান্ত গুলো মানতে পারছেনা সাধারণ শিক্ষকবৃন্দ। সর্বশেষ মাননীয় শিক্ষামন্ত্রীর হস্তক্ষেপে তা অনির্দিষ্ট কালের জন্য স্থগিত  হয়েছে। কিন্তু শিক্ষকসংগঠন গুলো তা মানতে পারছেনা, তাদের দাবী কর্তনের প্রজ্ঞাপন একেবারে বাতিল হোক। শিক্ষকনেতাদের বক্তব্য, ক্ষমতার মসনদে থেকে যে নেতা শিক্ষদের কিছু দিতে  পারছেনা, তারা আবার নেওয়ার প্রস্তাব দেয় কী করে। বর্তমানে বাজারে চালের দাম ৫০ টাকা, খাসীর মাংস ৭৫০টাকা সোয়াবিন ১০০টাকা এবং নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য আকাশ চুম্বি। উচ্চ মূল্যের বাজারে ১২ হাজার ৫০০টাকার স্কেলে একজন শিক্ষকের মানসম্মত ভাবে বেচে থাকা কঠিন কাজ তারপরও বেতন সঠিক সময়ে আসেনা। ১২ হাজার ৫০০ টাকার স্কেলের একজন শিক্ষক সর্বসাকুল্যে বেতন আসে ১৩ হাজার ৫০০ টাকা যা একজন সরকারি পিয়ন থেকে অনেক কম। বর্তমান বাজরে দ্রব্যমূল্যের দাম যে ভাবে চড়া তাতে একজন রেজি:প্রাথমিকে যারা শিক্ষকতা করত তারা সম্মানি পেত ৫০০টাকা থেকে ১ হাজার ৫০০টাকা।

আজ জাতীয়করণের পর তারা একজন বেসরকারি গ্রাজুয়েট  শিক্ষকের চেয়ে বেশী বেতন পাচ্ছে। সে জন্যেইতো সাবেক  শিক্ষাসচিব ও বঙ্গবন্ধু স্মৃতি যাদুঘরের  কিউরেটর এন আই খান মহোদয় বরাবরই সরকারি -বেসরকারি বেতন বৈষম্য দূর করার জন্য বেসরকারি শিক্ষকদের জাতীয়করণের কথা বলেছেন এবং তার বিদায়ী স্বাক্ষাৎকারে প্রধানমন্ত্রীকে জাতীয়করণের একটি হিস্যা দিয়েছিলেন। তার বিদায়ের পর বিষয়টি একেবারে এগোয়নি। ৩১ জুন প্রকাশিত এক সংবাদে শিক্ষার মান নিয়ে কুমিল্লার বোর্ডে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বক্তারা শিক্ষার মানের জন্য রাষ্ট্র, শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও ম্যানেজিং কমিটির সমন্বয়ের উপর জোর দিয়েছেন  অর্থাৎ আরও আরও রাষ্ট্রকে পৃষ্ঠপোষকতা করতে হবে। দৈনিক শিক্ষার সম্পাদক টিভি টক শোতে মানসম্মত শিক্ষার জন্য শিক্ষকদের জীবন মান উন্নয়নের কথা বলেছেন। তিনি আরও বলেছেন সময়মত বেতন না পাওয়াটাও মান সম্মত শিক্ষার ক্ষেত্রেও একটা বড় প্রতিবন্ধকতা। বিষয় গুলির প্রতিশিক্ষা সংশ্লিষ্ট সকলের দৃষ্টিআকর্ষন করছি।

বিশ্বজিৎ রায়: শিক্ষক, তালা, সাতক্ষীরা।

[মতামতের জন্য সম্পাদক]

সংবাদটি শেয়ার করুন:


পাঠকের মন্তব্যঃ ৪০টি

  1. মণি রহমান says:

    একদিকে সরকারের পক্ষ থেকে নানা সময়ে বেসরকারি শিক্ষকদেরকে বিভিন্ন সুবিধা থেকে বঞ্চিত করে তাদের মনে বারবার কষ্ট দেয়া হচ্ছে। আবার প্রতিষ্ঠানের কমিটি কর্তৃকও বিভিন্ন চাপ সৃষ্টি ও অপমান গঞ্জনা সহ্য করে টিকে থাকার সংগ্রাম করতে হচ্ছে! অর্থাৎ, শিক্ষকেরা থাকেন অভ্যন্তরীণ ও বাহ্যিক-উভয়মুখী চাপের মধ্যে! এখন বাস্তবে শিক্ষকের স্বাধীনভাবে জ্ঞান দানের সুযোগ কোথায়? এমতাবস্থায় দেশের সার্বিক শিক্ষার মানোন্নয়ন আদৌ কী সম্ভব?

  2. মোঃফিরোজুর রহমান. সহ সুপার ,চরফলকন এস, ডি মাদ্রাসা says:

    সঠিককথা,বলতেথাকুন একসময় কাজেআসবেই।

  3. md. billal hossain says:

    আগেত খাবার তারপর মান।
    আগে নন এমপিও শিক্ষকদের ব্যপারে সিদ্ধান্ত
    নেওয়া হোক।

  4. পার্থসারথি রায়, প্রভাষক, রসায়ন, গুঠিয়া আইডিয়াল কলেজ, বরিশাল। says:

    জনাব বিশ্বজিৎ রায় – এর সাথে আমি সহমত পোষণ করছি।

  5. জুলকার নাইন, কুটি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, কুটি, কসবা, ব্রাহ্মণ বাড়িয়া। says:

    মাল মহোদয়ের আমলে জাতীয়করন অধরাই থেকে যাবে ।

  6. মোহাম্মদ আলী, প্রধান শিক্ষক, বি.সি.ডি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, হিজলা, বরিশাল। says:

    বেসরকারি শিক্ষক সমাজের জীবন মানের উন্নয়ন না ঘটলে অর্থনৈতিক উন্নয়ন স্বপ্নই থেকে যাবে। শিক্ষা জাতির মেরুদন্ড হলে, আর্থিক অনটনে শিক্ষকদের মেরুদন্ড বেঁকে গেলে জাতির পঙ্গুত্ব রুখবে কে .???

  7. এইচ,এম বুলবুল says:

    এমপিও ভূক্ত শিক্ষকের পদোন্নতি,5%increment, 100% উৎসব ভাতা দেয়ার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিন নতুবা শিক্ষাক্ষেত্রে বৈষম্ম চরম আকার ধারন করবে এবং শিক্ষার মান নিয়ে আশংকা থেকেই যাবে।

  8. S.M.EUNUS ALI. ASST. TEACHER says:

    Thanks For All.

  9. Ashok Paul says:

    Thanks. আমি মনে করি এর সমাধান হবে। আমরা ভালো কিছু পাবো। শুধু একটু অপেক্ষা.. .

  10. yaminali says:

    আপনার মন্তব্যআদূর ভবিষ্যতে খোদ শিক্ষকেরা তাদের ছেলে মেয়েদের উচচশিক্ষিত করতে পারবেনা কারন যে বেতন পায় সংসার চালায় না বাচচাদের পড়া লেখা চালায়।এখন তো শিক্ষা হয়েছে পণ্য যে কিনবে সেহবে ধন্য। শিক্ষার মাননেই শিক্ষকের সমমান নেই।সবকিছুতেই যেন হ য ব র ল শ য়————-

  11. Ashek ullah,Assistant teacher,Mesera high school,Kishoreganj says:

    Sir apnaka dhonnobad satik kota bolar jonno.

  12. মো: আবুল কাশেম সহকারী শিক্ষক লাকেশ্বর দাখিল মাদ্রাসা ছাতক সুনামগঞ্জ says:

    শিক্ষকের মানোন্নয়নের একমাত্র সমাধান হচ্ছে বেসরকারি এমপিওভুক্ত স্কুল কলেজ মাদ্রাসা একযোগে জাতীয়করন। মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা করছি।

  13. Md Abul Hasan .DUMURIA KHULNA. 01921292045 says:

    THANKS,

  14. আহসান হাবীব says:

    আমার কথা হ‌চ্ছে, এখন যে‌হেতু এম‌পিওভূক্ত শিক্ষা প্র‌তিষ্ঠা‌নে শিক্ষক নি‌য়োগ বন্ধ র‌য়ে‌ছে;

    সেখা‌নে ডি‌গ্রি তৃতীয় শিক্ষক, আই‌সি‌টি শিক্ষক, শাখা শিক্ষক, ফিন্যান্স এন্ড ব্যাং‌কিং, উৎপাদন ব্যবস্থাপনা ও বিপণন সহ সব মি‌লি‌য়ে আমার ম‌নে হয় ১০০০০ শিক্ষকও হ‌বেন না, যাঁরা এম‌পিওভূ‌ক্তির অ‌পেক্ষায় র‌য়ে‌ছেন।

    আমা‌দের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কি পা‌রেন না মাত্র এই ১০০০০ শিক্ষক‌দের মু‌খে অন্ন তু‌লে দি‌তে ?

    অথচ প্র‌তি বছরই এম‌পিওর শত শত কো‌টি টাকা গা‌য়েব হ‌য়ে যায়।

  15. Nurul.islam says:

    Teacherder jibon man onnoyon chhara shikkhar onnoyon ar chhidro jukto patre pani dhala soman kotha.

  16. মোঃ জাকির হোসাইন সেলিম says:

    পত্রিকায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে যখন দেখি একজন ট্রাক ড্রাইভার নয় একজন ট্রাকের হেল্পার ২০,০০০ টাকার উপরে বেতন পায় আর এম এসসি পাশ করা একজন গণিতের শিক্ষক হিসাবে আমি মাত্র ১৩,৫০০ টাকা অনুদান পাই তখন নিজের কাছেই নিজে ছোট হয়ে যাই ।

  17. Md Rabiul Islam says:

    Non mpo teachers have nothing.

  18. জাহাংগীর কবির. নাজিরপুর কলেজ, পিরোজপুর says:

    সরকারের কর্তা ব্যক্তি আর আমলারা আজীবনই বেসরকারী শিক্ষকদের বন্ঞিত আর হেয় করে মজা পায়। They are by born enemy of non -goverment teacher.তারা মনে করেন বেসরকারী শিক্ষকরা তাদের সমান সুযোগ -সুবিধা পেলে নিজেদের সম্মান কমে যাবে। একমাত্র মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর একক সিদ্ধান্তই পারে এই বৈষম্য থেকে বেসরকারী শিক্ষকদের রক্ষা করতে।

  19. আবুল খায়ের, রামচন্দ্রপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজ,সারিয়াকান্দি,বগুড়া। says:

    MPO ভুক্ত শিক্ষকদের বেদরকারি ভাবার অবকাশ নেই। শিক্ষকদের মান উন্নয়নে দ্রুত কার্যকরি নীতিগত সিদ্ধান্ত গ্রহন প্রয়োজন । অন্যথায় ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার সপ্ন ধুলায় গড়াগড়ি খাবে।

  20. sharif master says:

    Thanks for your resonable writting . I agree with you and l do believe that only solution is making all the secondary level nationalised. I also believe that our honourable Prime minister deserves the credit of declearing nationalization and without delay she will declear nationalization alltogather

  21. Mausud..Rana... lecturer... English.. says:

    আন্দোলন,, ছাড়া,,,কিছু,,,পাওয়া,, যাবে,,,না,,,

  22. সুশীল চন্দ্র মিস্ত্রী,সভাপতি,বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি,কাঠালিয়া,ঝালকাঠি। says:

    শিক্ষাবিদগন ও সরকার বিষয়টি যত তাড়াতাড়ি অনুধাবন করবেন তত তাড়াতাড়ি জাতির মংগল হবে।

  23. Rofiqul Islam,Swapon Lect: Accounting, Purbadhala College,01926874021 says:

    জীবন মান উন্নয়ন শুধু শিক্ষামন্ত্রী আর তার পরিবারের হলেই হবে। শিক্ষকদের জীবন মান উন্নয়নের দরকার নাই। কারন কোন না কোন ভাবেই তাদের দিন তো চলেই যাচ্ছে।

  24. maksuds says:

    পেটে ভাত নেই ।ক্ষুধায় পেট জ্বলে ।খাবার চাই।শাখা শিক্ষক

  25. কাজী নজরুল ইসলাম-সহকারী শিক্ষক (গণিত),শেখপাড়া মাদ্রাসা-জয়পুরহাট। says:

    ১০০%সত্য।

  26. anisuzzaman Bhuiyan (samiul). Ass.Teacher Eng.Mesera High School. Hossainpur, Kishor gonj. says:

    আপনার মন্তব্য
    Education is our real right,
    Nationalization is compolsury to adjust it’s weight.

  27. munnaf hossain says:

    সবসময় সংসার চালানোর চিন্তা মাথায় নিয়ে মানসম্মত শিক্ষা হয়না। কেন যে বে শি দের সাথে উদ্বাস্তুদের মত আচরন ??

  28. রাজু সরকার সদর, সিলেট says:

    কতই
    শুনবো এসব কথা
    মনটা খুব খারাপ।
    আমিও এক জন গণিত শিক্ষক
    ১২২৫০ টকা বেতনে চাকরী করি
    চলেনা পরিবারপালন।
    আমিও
    সাত্রলীগ করি কিন্তু এখন আর
    করবো না।
    সারা শিক্ষক সমাজ দেখাবো
    এনার জাতীয়করণ না হলে
    জাতীয় নির্বাচনে….

  29. Md.Shahjahan Shaju Lecturer (Sociology) R A Goni School and college UP: Sadullapur . Dis:Gaibandha says:

    আপনার কাছে সব সম্ভব এমনি একজন সরকার। মানুষ দরদী সরকার আপনি। মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর নিকট আমার আকুল আবেদন আমাদের বেবস্তা করে দেবেন ,আমরা আপনার সন্থান। অনেক কষ্টে আসি পরিবার নিয়ে। শিক্ষা প্রতিষ্টান এম পি ও ।

  30. কবির says:

    শিক্ষা ক্ষেত্রে এমন বৈষম্য থাকলে শিক্ষার মান উন্নয়ন তো দুরের কথা, শিক্ষার মান তলানিতে পৌঁছবে খুব শিঘ্রিই!!!!!!!!!!!!!!

  31. কবির says:

    সাবেক মন্ত্রী পরিষদ সচিব আলী ইমাম মজুমদার স্যারকে স্যালুট, তিনি সম্পাদকীয় তে লিখে ছিলেন – কোন দেশকে যুদ্ধ বিহীন ধবংস করতে চাইলে,তার শিক্ষা ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দাও। এই কারণে কি শিক্ষা ব্যবস্থায় এত বৈষম্য ? এদেশের শিক্ষামন্ত্রী কিভাবে বলেন আমরা শিক্ষা পরিবার? ছি!ছি! কি লজ্জা!!!!!!!!!!!!

  32. মোঃ নাজিম উদ্দীন, সহকারী শিক্ষক, মদনা মাধ্যমিক বিদ্যালয়, দর্শনা, দামুড়হুদা, চুয়াডাঙ্গা। says:

    Thank you for your Excielent comment.

  33. Md.sagir uddin shaik says:

    Education.Education.Education.No nation can progress without education.as no alternative of education for prosperity.so authority should solve any education related problem.teachers have untold problem.we never can reach to goal until solve there problem.

  34. jahangir alam says:

    আপনার মন্তব্য thanks

  35. শফিকুর রহমান says:

    শিক্ষার মান উন্নয়ন করতে হলে শিক্ষাকে জাতীয় করন ও সাথে সাথে টাইমস্কেলের ব্যবস্তা করা দরক্র

  36. মলয় বল্লভ, সহকারী শিক্ষক,বি,ডি,সি,এইচ মাধ্যমিক বিদ্যালয়। says:

    মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনী বেসরকারে শিক্ষকদের অবিলম্বে জাতীয়করণ করুন। তা নাহলে যে একজন সরকারী পিওন যারা অস্টম বা এস এস সি পাস তারা যে বেতন পান তার চেয়ে একজন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সর্বনিম্ন স্নাতক পাস করা একজন এমপিওভূক্ত সহকারী শিক্ষকরা তার চেয়ে কম বেতন পাবেন এটা কোন সভ্য জাতী, দেশ মেনে নিতে পারে বাংলাদেশে ছাড়া আর কোন দেশে পাবেন। প্রধাবমন্ত্রী আপনি বিষয়টা অতিশিঘ্র হাত দিন। আর কত কষ্টে দিন কাটবে বেসরকারী শিক্ষকদের।

  37. মোঃ হান্নান মিয়া পাটিকেলবারি দরগাহ দাখিল মাদ্রাসা নেছারাবাদ,পিরোজপুর says:

    আপনার মন্তব্য শিক্ষার মান কখনও উন্নয়ন হবে না। যতখন পর্যন্ত দেশের নন- এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিভুক্ত না হবে। শিক্ষমন্ত্রী আপনি এসির মধ্যে বসে কথা বলেন আপনি এক মাস বেতন না নিয়া দেখেন আপনার মনের অবস্থা কেমন হয়। আর আমরা দীর্ঘ ১৫/১৬ বছর ধরে শিক্ষার কাজ করে যাচ্ছি বিনা বেতনে। কিভাবে মান উন্নায়ন হবে। দয়া করে মায়া করে নন এমপিও শিক্ষকের চিন্তা করে আমাদের এমপিও দিন। আপনার বয়স হয়েছে আমরা আপনার কথা আমরা মনে করব দোয়া করব দয়া করে আপনি প্রধানমন্তৃীর সাথে আলোচনা করে নন এমপিও প্রতিষ্ঠানের এমপিও দিন।

  38. Nargis says:

    শিক্ষকদের সুযোগ সুবিধা দিয়ে লাভ কি? তারা কি পারে ক্ষমতায়………

আপনার মন্তব্য দিন