রাবিতে বিভাগ একীভূত করার দাবিতে ক্লাস বর্জন - বিশ্ববিদ্যালয় - Dainikshiksha

রাবিতে বিভাগ একীভূত করার দাবিতে ক্লাস বর্জন

রাবি প্রতিনিধি |

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ফলিত পদার্থবিজ্ঞান ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (এপিইই) বিভাগ ও ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগ একীভূত না হলে ক্লাসে ফিরবেন না বলে ঘোষণা দিয়েছেন এপিইই বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

রোববার (০২ ডিসেম্বর) বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম বিজ্ঞান ভবনের সামনে বিভাগের আয়োজনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষার্থীরা এ ঘোষণা দেন। একইসঙ্গে দুই বিভাগ একীভূত করা নিয়ে অনুষদের সিদ্ধান্তকে বর্জন করে শিক্ষার্থীরা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বিভাগের শিক্ষার্থী কাশিম পারভেজ ও প্রাক্তন শিক্ষার্থী মঞ্জুর মোর্শেদ বলেন, অনুষদের সভায় এপিইই বিভাগকে ইইই বিভাগের সঙ্গে একীভূত না করার যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, তা সম্পূর্ণ অযৌক্তিক। আমরা এ সিদ্ধান্ত বর্জন করছি।

বর্তমানে চাকরিতে আবেদনের জন্য এপিইই বিভাগের নাম থাকে না। তাই অনেক বিশ্ববিদ্যালয়ে এপিইই বিভাগকে ইইই বিভাগ করা হয়েছে। তাই আমরা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়েও এপিইই বিভাগকে ইইই বিভাগ চায়। এর আগেও আমরা দাবি তুলেছিলাম। কিন্তু আমাদের আশ্বস্ত করলেও বিশ্ববিদ্যালয় কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। এখন আমাদের দাবি আদায় না হলে আমরা ক্লাসে ফিরবো না। 

শিগগিরই দাবি মেনে না নেওয়া হলে কঠোর কর্মসূচির ডাক দেওয়া হবে বলে সংবাদ সম্মেলনে ঘোষণা দেন শিক্ষার্থীরা।

এর আগে, সকাল ১০টার দিকে একই দাবিতে কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে মানববন্ধন ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে শিক্ষার্থীরা।

প্রসঙ্গত, গত ১১ নভেম্বর থেকে বিভাগ দুটিকে একীভূতকরণের দাবিতে  ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে আসছিলো এপিইই বিভাগের শিক্ষার্থীরা। পরে বিভাগের শিক্ষকরা তাদের আশ্বস্ত করলে তারা কর্মসূচি স্থগিত করেন। এর প্রেক্ষিতে ২০ নভেম্বর ইইই বিভাগের শিক্ষার্থীরা দুই বিভাগকে এক না করার দাবিতে আন্দোলন শুরু করে। দুই পক্ষে পাল্টাপাল্টি কর্মসূচির মধ্যে গত ২৯ নভেম্বর প্রকৌশল অনুষদের মিটিংয়ে দুই বিভাগ একীভূত না করার সিদ্ধান্ত হয়। 

দুর্নীতিবাজরা সাবধান হয়ে যান: গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী - dainik shiksha দুর্নীতিবাজরা সাবধান হয়ে যান: গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী অর্ধাক্ষর শিক্ষকরা সিকিঅক্ষর শিক্ষার্থী তৈরি করছেন: যতীন সরকার - dainik shiksha অর্ধাক্ষর শিক্ষকরা সিকিঅক্ষর শিক্ষার্থী তৈরি করছেন: যতীন সরকার অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ নিয়োগ নিয়ে যা বলেছেন শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ নিয়োগ নিয়ে যা বলেছেন শিক্ষামন্ত্রী ১৮১ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিও বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু - dainik shiksha ১৮১ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিও বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু স্টুডেন্টস কাউন্সিল নির্বাচন ২০ ফেব্রুয়ারি - dainik shiksha স্টুডেন্টস কাউন্সিল নির্বাচন ২০ ফেব্রুয়ারি প্রাথমিকে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ১৫ মার্চ - dainik shiksha প্রাথমিকে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ১৫ মার্চ ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website