শিক্ষকতা শুধুই পেশা, নাকি আরও কিছু - বিবিধ - দৈনিকশিক্ষা

শিক্ষকতা শুধুই পেশা, নাকি আরও কিছু

বিজ্ঞাপন প্রতিবেদন |

`স্যার যাবেন না প্লিজ...’ -শিক্ষার্থীদের কাতর মিনতি শুনে শিক্ষকের চোখে পানি চলে আসে।প্রিয় শিক্ষকের বদলির খবর শুনে  স্থির থাকতে পারেনি শিক্ষার্থীরা। সরকারি আদেশ, যেতে তো হবেই। তবু প্রিয় শিক্ষকের চলে যাওয়ার মুহূর্তে হাতে হাত রেখে শিক্ষককে ঘিরে দাঁড়ালো খুদে শিক্ষার্থীরা। অশ্রু চোখে আর আকুল মিনতি মাখা কণ্ঠে সমস্বরে বলতে লাগলো, স্যার যাবেন না প্লিজ।

ভারতের তামিলনাডুর একটি হাই স্কুলের তরুণ শিক্ষক জি ভগবান। তাকে কেন্দ্র করেই ঘটে ঘটনাটি। কিন্তু কী এমন জাদু আছে তাঁর হাতে, যে জাদুর বলে শিক্ষার্থীদের কাছে এতো প্রিয় হয়ে উঠেছেন তিনি? কী এমন কারণ, যা কিনা এনে দিয়েছে জি ভগবান -কে এমন শ্রদ্ধা, ভালবাসা ও সম্মান?  মূলত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ছিল তাঁর দারুণ বন্ধুত্ব। শিক্ষকের থেকেও বেশি ছিলেন তিনি শিক্ষার্থীদের বন্ধু। অবসর সময়ে তাদের গল্প শোনাতেন, কার বাড়িতে কী অবস্থা সেসব খোঁজখবর রাখতেন নিয়মিত। কার কীসে সুবিধা-অসুবিধা তা তাঁর নখদর্পণে। শিক্ষার্থীরাও তাই মন খুলে শিক্ষককে বলতে পারতো সব কথা। আর এসব কারণেই তিনি হয়ে উঠেছিলেন সবার প্রিয়।

শিক্ষক-শিক্ষার্থীর এমন মধুর সম্পর্কের কারণেই শিক্ষকতা পেশা পেশাকে ছাপিয়ে পরিণত হয় এক মহান ব্রতে। শিক্ষার্থীর হৃদয়ে জ্ঞান তৃষ্ণা জাগিয়ে, মনের সুকুমার বৃত্তিগুলোর পরিচর্যা করে শিক্ষার্থীকে আদর্শ মানুষে পরিণত করার মাধ্যমে একজন শিক্ষক হতে পারেন মহান। সততা, নৈতিকতা, উদারতা, আধুনিকতা, ব্যক্তিত্ব তথা সামাজিক ও মানবিক মূল্যবোধ সম্পন্ন শিক্ষকই আদর্শ শিক্ষক। কেবল শ্রেণিকক্ষে পাঠদান করাই শিক্ষকের দায়িত্ব নয়। শিক্ষায় নীতি-নৈতিকতা, দেশপ্রেম, আদর্শ ও মূল্যবোধ শিক্ষার্থীর মাঝে ছড়িয়ে দেওয়া আদর্শ শিক্ষকের দায়িত্ব ও কর্তব্য। শিক্ষক সম্পর্কে উইলিয়াম আর্থার ওয়ার্ডের বিশ্লেষণ  যথার্থ। তিনি বলেন, ‘একজন সাধারণ শিক্ষক বক্তৃতা করেন, একজন ভাল শিক্ষক বিশ্লেষণ করেন, একজন উত্তম শিক্ষক প্রদর্শন করেন, একজন শ্রেষ্ঠ শিক্ষক অনুপ্রাণিত করেন’।

একজন প্রকৃত শিক্ষকই ধারাবাহিকভাবে একজন ছাত্রকে সহজ থেকে কঠিনের দিকে, জানা থেকে অজানার দিকে, জ্ঞানের বিন্দু থেকে নিয়ে যান জ্ঞানসমুদ্রের দিকে। আর এমনি করেই শিক্ষক হিসেবে তিনি হয়ে ওঠেন মহান, সকলের শ্রদ্ধার পাত্র।

একজন শিক্ষক তাঁর শিক্ষার্থীদের নিছক শিক্ষার্থী হিসেবে দেখেন না, বরং তিনি তাদের নিজের সন্তানের মত করে দেখেন এবং যত্ন নেন। শিক্ষকতা পেশার বাইরে যে অন্যতম গুনটি অন্যসব পেশার মধ্যে পাওয়া যায় না তা হলো একমাত্র শিক্ষকই নিজেকে কখনো জ্ঞান বিতরণের ক্ষেত্রে সীমাবদ্ধ রাখেন না।  মূলত একজন শিক্ষক পিতা-মাতা, বন্ধু, দার্শনিক এবং গাইডের মতো কাজ করেন। 

একটি চীনা প্রবাদ রয়েছে, If you are planning for a year, sow rice; if you are planning for a decade, plant trees; if you are planning for a lifetime, educate people.

একজন শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীর মধ্যে জ্ঞান ও সমস্যার পারস্পরিক আদান-প্রদান খুব সহজ বিষয় নয়। এই ক্ষেত্রে শিক্ষককে হতে হবে উদারমনস্ক এবং সহানুভূতিশীল। শিক্ষক যদি শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সহজভাবে মিশতে চান, তাহলে শিক্ষার্থীদের মনে তাঁর প্রতি বিশ্বাস ও আস্থা জাগিয়ে তোলা একান্ত জরুরি।

কোন কোন গুণের জন্য একজন শিক্ষকের প্রতি ছাত্র-ছাত্রীদের আকর্ষণ জন্মায়—

•       স্বচ্ছ দৃষ্টিভঙ্গি

•       শিক্ষার্থীদের মতামতকে প্রাধান্য দেওয়া

•       বিভিন্ন বিষয়ে অভিজ্ঞতা থাকা

•       ভালো শ্রোতা হওয়া প্রয়োজন

•       একতাবদ্ধ থাকার মানসিকতা

•       দৃঢ়চেতা এবং অনুসন্ধিৎসু

•       সুসম্পর্ক স্থাপন করার মানসিকতা

•       শিক্ষার্থীদের মনের ভাব প্রকাশের স্বাধীনতা দেওয়া

•       অপ্রয়োজনীয়, অহেতুক মতামত প্রকাশ করা থেকে বিরত থাকা

•       নিজের ব্যক্তিগত পছন্দ-অপছন্দের প্রভাব শিক্ষার্থীদের মধ্যে না ফেলা

•       গোপনীয়তা রক্ষার জন্য আন্তরিক চেষ্টা করা

•       শিক্ষার্থীদের সামনে সর্বদা হাসিখুশি থাকা

শিক্ষার্থীরা যদি শিক্ষকের প্রতি বিশ্বাস ও আস্থা রাখতে পারে তবে শেখার ক্ষেত্রে তা খুবই ইতিবাচক ভূমিকা রাখে। তবে কেবল শিক্ষার্থীরাই কেন; শিক্ষকতা এমন একটি পেশা যেখানে শিক্ষকই কেবল শিক্ষার্থীদের শিক্ষা প্রদান করেন না, শিক্ষার্থীদের কাছে থেকে তারা নিজেরাও শেখেন। Georgia College State University এর প্রফেসর Haley Benefield-এর মতে, Teaching Is A Passion Not A Profession. তিনি মনে করেন, শিক্ষার্থীদের তিনি যতটুকু শিখিয়েছেন তার চেয়ে বেশি তাদের কাছ থেকে শিখেছেন। তিনি বলেন,

•       I have learned that chocolate milk can fix even the worst of days.

•       I have learned that laughter cures what band-aids cannot.

•       I have learned that ‘I love you’ is a promise.

•       I have learned that teaching is an investment.

•       I have learned that being a teacher is a passion, not a profession.

পেশার চেয়েও বেশি হিসেবে বিবেচিত শিক্ষকতা সমাজের শক্তিশালী স্তম্ভ। শিক্ষক একজন কুমোরের মতো, যিনি আমাদের চিত্তাকর্ষক মনকে সূক্ষ্মভাবে আকার দেন এবং এমন একটি পাত্রে রূপদান করেন যা আমাদের উপলব্ধি এবং উচ্চাকাঙ্ক্ষাকে সংজ্ঞায়িত করে। আর তাই তো অন্যসব পেশার চেয়ে শিক্ষকতা পেশা যেমন সম্মানের তেমনি এই পেশায় অনেকগুলো চ্যালেঞ্জও রয়েছে।

শিক্ষকতা পেশার চ্যালেঞ্জ:

•শিক্ষার্থীদের বিশেষ করে বাচ্চাদের পড়ানোর জন্য প্রচুর ধৈর্য এবং একাগ্রতা থাকতে হয়।

•আধুনিক তথ্য ও প্রযুক্তির সঙ্গে যুক্ত হয়ে নিজেকে প্রতিনিয়ত আপডেট করতে হয় এবং সারা জীবন শেখার মধ্যে থাকতে হয়।

•একজন শিক্ষকের উপর অনেক নৈতিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে, ফলে তাঁর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এমনকি গোটা সমাজেই সতর্কতার সঙ্গে চলতে হয়।

•শিক্ষককে একই সঙ্গে অনেকগুলো ভূমিকা পালন করতে হয়।

•একটি নির্ধারিত পাঠ্যক্রম বিভিন্ন ধরণের শিক্ষার্থীদের পড়াতে হয়।

•প্রশাসনিক কাজ দক্ষতার সঙ্গে পরিচালনা করতে হয়। পেশাগত জ্ঞানার্জন, প্রশিক্ষণ, দায়িত্ববোধের দিকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হয়।

যদিও এই পেশায় কিছু চ্যালেঞ্জ রয়েছে, কিন্তু এটি এখনো সর্বাধিক সম্মানজনক একটি পেশা। একজন শিক্ষকই ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, সেবিকা, বৈজ্ঞানিক, আইনজীবি ইত্যাদি তৈরি করার এবং সমাজকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত করে তোলার মূল কারিগর।

তাই একজন আদর্শ শিক্ষক হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে বা শিক্ষকতার মত এই মহৎ পেশায় যোগদান করার আগে নিজেকে নিজে কয়েকটি প্রশ্ন করার মাধ্যমে যাচাই করে নিতে পারেন:- 

•আপনি কি নিজে শিখতে এবং নিজেকে সময়ের সাথে আপডেট করতে পছন্দ করেন?

•আপনি বাচ্চাদের কাছাকাছি থাকতে পছন্দ করেন?

•আপনি কি অন্যকে সাহায্য করে সন্তুষ্টি পান?

•আপনি কি নিজের অর্জিত জ্ঞানকে অন্যের সঙ্গে ভাগ করে নিতে পছন্দ করেন?

•আপনি কি দলবদ্ধভাবে কাজ করতে পছন্দ করেন?

•আপনি কি সমাজে ইতিবাচক প্রভাব আনতে চান?

•পরিশেষে এবং সর্বাপেক্ষা গুরুত্বপূর্ণ, আপনার কি প্রচণ্ড ধৈর্য রয়েছে?

যদি উপরের বেশিরভাগ প্রশ্নের উত্তর ‘হ্যাঁ’ হয়ে থাকে তবে শিক্ষকতা আপনার জন্য সেরা একটি পেশা হতে পারে। কেননা মানুষকে মানুষের মর্যাদা দেওয়ার মধ্যেই সার্বিক কল্যাণ নিহিত। শিক্ষকতা পেশার মাধ্যমেই তা সম্ভব। একজন আদর্শ শিক্ষকই পারেন তাঁর অনুসারীদের জ্ঞান ও ন্যায় দীক্ষা দিতে। শিক্ষার্থীর মানবতাবোধকে জাগ্রত করে একজন শিক্ষক কেবল পাঠদানকে সার্থকই করে তোলেন না, পাশাপাশি দেশের উন্নয়নকে ত্বরাণ্বিত করেন। স্বীয় জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা শিক্ষার্থীদের মাঝে বিতরণ করে তাদেরকে দেশের যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলেন। তাই শিক্ষক হতে গেলে গতানুগতিক অন্যসব পেশার মত না ভেবে ভাবতে হবে খুব সুক্ষভাবে। সৎচিন্তা, সৎকাজ, সৎউপদেশ দিয়ে আলো হয়ে আলোকিত করতে হবে নিজেকে। শেষ করবো তুরষ্কের প্রথম রাষ্ট্রপতি মোস্তফা কামাল আতাতুর্কের একটি উক্তি দিয়ে। তিনি বলেছেন,  A good teacher is like a candle—it consumes itself to light the way for others.

আবরার হত্যা : বুয়েটের ২৬ ছাত্র আজীবন বহিষ্কার - dainik shiksha আবরার হত্যা : বুয়েটের ২৬ ছাত্র আজীবন বহিষ্কার বহিষ্কৃত সমাপনী পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা নিতে হাইকোর্টের রুল - dainik shiksha বহিষ্কৃত সমাপনী পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা নিতে হাইকোর্টের রুল শিক্ষক নিবন্ধনের ভাইভায় ফটো আইডি বাধ্যতামূলক : এনটিআরসিএ - dainik shiksha শিক্ষক নিবন্ধনের ভাইভায় ফটো আইডি বাধ্যতামূলক : এনটিআরসিএ শিক্ষক নিবন্ধন : ৭ম দিনের ভাইভায় যা জানতে চেয়েছে বোর্ড (ভিডিও) - dainik shiksha শিক্ষক নিবন্ধন : ৭ম দিনের ভাইভায় যা জানতে চেয়েছে বোর্ড (ভিডিও) অফিস সহকারী নিয়োগে ১০ লাখ টাকা ঘুষের অভিযোগ - dainik shiksha অফিস সহকারী নিয়োগে ১০ লাখ টাকা ঘুষের অভিযোগ মাদরাসার এমপিও কমিটির প্রথম সভা ২৫ নভেম্বর - dainik shiksha মাদরাসার এমপিও কমিটির প্রথম সভা ২৫ নভেম্বর মাধ্যমিকের শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষার ফল প্রকাশ - dainik shiksha মাধ্যমিকের শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষার ফল প্রকাশ ১৪ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ, শিক্ষা ভবনের শফিকুরের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা - dainik shiksha ১৪ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ, শিক্ষা ভবনের শফিকুরের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা প্রাক-প্রাথমিকে পরীক্ষা নেয়া যাবে না - dainik shiksha প্রাক-প্রাথমিকে পরীক্ষা নেয়া যাবে না সরকারি স্কুলে ভর্তির নীতিমালা প্রকাশ - dainik shiksha সরকারি স্কুলে ভর্তির নীতিমালা প্রকাশ এমপিও কমিটির সভা ২৪ নভেম্বর - dainik shiksha এমপিও কমিটির সভা ২৪ নভেম্বর জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন please click here to view dainikshiksha website