শিক্ষক নিয়োগে ঘুষ গ্রহণ অভিযোগের তদন্ত - স্কুল - Dainikshiksha

শিক্ষক নিয়োগে ঘুষ গ্রহণ অভিযোগের তদন্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক |

শ্রীমঙ্গল উপজেলার মহাজিরাবাদ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে একই বিদ্যালয়ের চাকরিচ্যুত অপর এক শিক্ষক এর কাছ থেকে চাকরিতে নিয়োগকালে ঘুষ গ্রহণের অভিযোগ জেলা প্রশাসকের নির্দেশে গঠিত তিন সদস্য কমিটির সরজমিন তদন্ত অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত সোমবার দুপুরে মহাজিরাবাদ উচ্চ বিদ্যালয়ে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আবু সাঈদ মো. আব্দুল ওয়াদুদ, সহকারী পরিদর্শক মেহেদী হাসান ও সহকারী পরিদর্শক মোহাম্মদ মহিবুল হাসান এ তদন্ত পরিচালনা করেন।

তদন্তকালে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক, অভিযোগকারীসহ সংশ্লিষ্টদের লিখিত বক্তব্য নেন। জেলা প্রশাসক বরাবরে লিখিত অভিযোগকারী মোহাজিরাবাদ গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল হান্নান অভিযোগে উল্লেখ করেন তার ছেলে সরোয়ার হোসেন ২০১৩ সালের মার্চ মাসে ওই স্কুলের সহকারী লাইব্রেরীয়ান পদে নিয়োগ দিতে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কামরুল হাছান সাড়ে তিন লক্ষ টাকা ঘুষ নেন। ২০১৩ সালের ২৫শে মার্চ তার ছেলের নিয়োগকালে বিভিন্নস্থানে নানা খরচের কথা বলে প্রথমে ২ লক্ষ টাকা নেন। এর পর এমপিওভুক্তির জন্য ৭০ হাজার ও পরে আরো ৮০ হাজারসহ মোট সাড়ে তিন লাখ টাকা ঘুষ নেন। এর কয়েকদিন পর ওই প্রধান শিক্ষক জানান, দারুল ইহসান বিশ্ববিদ্যালয় হাইকোর্ট অবৈধ ঘোষণা করেছে। তাই ওই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে নেয়া তার সনদ অবৈধ। ফলে তার এমপিওভুক্ত হবে না। নিয়োগ বাতিল হবে।

তখন ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা ফেরত চাইলে তিনি দিতে অনীহা প্রকাশ করেন। এরই মাঝে গত ১৭ই মে সরোয়ার হোসেনকে স্কুল থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়। অভিযোগ প্রসঙ্গে প্রধান শিক্ষক কামরুল হাছান বলেন, ‘ঘুষ লেনদেনের সাথে আমি জড়িত না। এসসব মিথ্যা ও বানোয়াট। দুইজন শিক্ষকছাড়া বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক আমার হাতে নিয়োগ হয়েছে। উনারই ভাল বলতে পারবেন তাদের বেলায় ঘুষ লেনদেন হয়েছে কিনা’। দারুল ইহসান বিশ্ববিদ্যালয় ২০০৬ সালের পর থেকে সকল একাডেমিক সনদপত্র হাইকোর্ট অবৈধ ঘোষণা করায় অভিযোগকারীর ছেলেকে ম্যানেজিং কমিটি বিধিমোতাবেক চাকরিচ্যুত করেছে। সে কারণে তারা ক্ষুব্ধ হয়ে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করেছেন’।

জানতে চাইলে জেলা শিক্ষা অফিসার আবু সাঈদ মো. আব্দুল ওয়াদুদ বলেন, সরেজমিনে গিয়ে প্রধান শিক্ষক,অভিযোগকারীসহ সংশ্লিষ্টদের লিখিত গ্রহণ করেছি। এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সকলের বক্তব্য গ্রহণপূর্বক  আমার মতামতসহ যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে প্রতিবেদন দাখিল করব।’

আসছে দ্বিতীয় ধাপের নিয়োগ সুপারিশ - dainik shiksha আসছে দ্বিতীয় ধাপের নিয়োগ সুপারিশ স্টুডেন্টস কেবিনেট নির্বাচন ১৪ মার্চ - dainik shiksha স্টুডেন্টস কেবিনেট নির্বাচন ১৪ মার্চ এনটিআরসিএর ভুল, আমি পরিপত্র মানি না.. (ভিডিও) - dainik shiksha এনটিআরসিএর ভুল, আমি পরিপত্র মানি না.. (ভিডিও) এমপিওভুক্তির নামে প্রতারণা, মন্ত্রণালয়ের গণবিজ্ঞপ্তি - dainik shiksha এমপিওভুক্তির নামে প্রতারণা, মন্ত্রণালয়ের গণবিজ্ঞপ্তি শিক্ষকদের কোচিং করাতে দেয়া হবে না: শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha শিক্ষকদের কোচিং করাতে দেয়া হবে না: শিক্ষামন্ত্রী জারির অপেক্ষায় অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ নিয়োগ যোগ্যতার সংশোধনী - dainik shiksha জারির অপেক্ষায় অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ নিয়োগ যোগ্যতার সংশোধনী ৬০ বছরেই ছাড়তে হবে দায়িত্ব - dainik shiksha ৬০ বছরেই ছাড়তে হবে দায়িত্ব ফল পরিবর্তনের চার ‘গ্যারান্টিদাতা’ গ্রেফতার - dainik shiksha ফল পরিবর্তনের চার ‘গ্যারান্টিদাতা’ গ্রেফতার নকলের সুযোগ না দেয়ায় শিক্ষিকাকে জুতাপেটা - dainik shiksha নকলের সুযোগ না দেয়ায় শিক্ষিকাকে জুতাপেটা প্রাথমিকে সায়েন্স ব্যাকগ্রাউন্ড প্রার্থীদের ২০ শতাংশ কোটা - dainik shiksha প্রাথমিকে সায়েন্স ব্যাকগ্রাউন্ড প্রার্থীদের ২০ শতাংশ কোটা ১৮২ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিও বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু - dainik shiksha ১৮২ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিও বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু প্রাথমিকে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ১৫ মার্চ - dainik shiksha প্রাথমিকে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ১৫ মার্চ ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website