please click here to view dainikshiksha website

শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণে দরকার শুধু সরকারের সদিচ্ছা

মোঃ শরিফুল ইসলাম | আগস্ট ৬, ২০১৭ - ৬:৩৭ অপরাহ্ণ
dainikshiksha print

কোন ভূমিকা ছাড়াই আমার এ লেখাটি। বিষয় সমগ্র শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করণ। তবে কিছু কথা না বললেই নয়। দেশের ৯৫-৯৭ ভাগ শিক্ষার্থী পড়াশোনা করে বেসরকারি স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসাতে। অথচ মাত্র ৩-৫ ভাগ শিক্ষার্থী এবং এদের শিক্ষক-কর্মচারিগণ সরকারি সকল সুযোগ-সুবিধা পায়। যা একই দেশে একই সিলেবাসে মোটেই কাম্য নয়।
যাক সে কথা। এখন দেখা যাক কী ভাবে সহজে সকল প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ সম্ভব। তার আগে দুটি সংখ্যা বলি। ২০১৭ খ্রিস্টাব্দে ১০টি শিক্ষা বোর্ড এর অধীনে এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল যথাক্রমে ১৮ লাখ এবং ১২ লাখ প্লাস। দুই পরীক্ষার গড় পরীক্ষার্থী ১৫ লাখ। এখন ধরি, ৬ষ্ঠ-দ্বাদশ পর্যন্ত সাতটি ক্লাস। তাহলে ১৫ লাখ গুণ ৭ = ১০৫ কোটি।
যেহেতু ৬ষ্ঠ-৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থীর সংখ্যা আরও বেশি হবে এবং বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানে ক,খ,গ শাখা আছে তাই মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১৩০ কোটি ধরলেও কম ধরা হবে। তবুও ১৩০কোটি ধরে যদি বাৎসরিক সেশন চার্জ পাঁচশ টাকা করে নেয়া হয় তাহলে এ খাতে আদায় হবে ৬৫ হাজার কোটি টাকা। মাসিক ১৫ টাকা বেতন নিলে এ খাতে আদায় হবে ২৩ হাজার চারশ কোটি টাকা। অর্থাৎ মোট বাৎসরিক আয়= ৬৫০০০+২৩৪০০=৮৮৪০০ কোটি টাকা।


সাবেক শিক্ষা সচিব নজরুল ইসলাম খান বিদায়ী সাক্ষাতে (নভেম্বর, ২০১৫) মাননীয় প্র্রধানমন্ত্রীকে বলেছিলেন সমগ্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের জন্য সরকারের অতিরিক্ত খরচ হবে এক হাজার দুইশ পঞ্চাশ কোটি টাকা। অর্থাৎ সমগ্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ করা হলে সরকারের লাভ হবে কমপক্ষে ৮৮৪০০–১২৫০ = ৮৭১৫০ কোটি টাকা বাৎসরিক।

মোঃ শরিফুল ইসলাম: সহকারি শিক্ষক, বাজার গোপালপুর স্কুল এণ্ড কলেজ, ঝিনাইদহ।
[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নন]

সংবাদটি শেয়ার করুন:


পাঠকের মন্তব্যঃ ২১টি

  1. হুমায়ুন কবির says:

    অরণ্যে রোদন!

  2. সাব্বির রহমান, সংবাদ প্রতিনিধি, স্থানীয় পত্রিকা, দিনাজপুর says:

    বেসরকারী শিক্ষক কর্মচারীদের চাকুরি জাতীয়করনের বিষয়ে অর্থ মন্ত্রীর মত লোকদের সদিচ্ছাই যথেষ্ঠ।

  3. shahin ali says:

    প্রধানমণ্ত্রীর সুনজর পড়লে কোন হিসাবের প্রয়োজন নেই।

  4. বিপ্রদাস বিশ্বাস says:

    মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সদিচ্ছা জ্ঞাপন করবেনতো?

  5. অজিত চন্দ্র দেব says:

    ১০৫ কোটি নয় ,১.০৫ কোটি
    ১৩০ কোটি নয়, ১.৩০ কোটি
    জাতীয়করণ করলে,নগদে লাভ না হলেও
    শিক্ষা ব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন আসবে।তবে এই হিসাবেও নগদে ক্ষতির কোন সম্ভাবনা নেই।

  6. Md. samrat, says:

    Nationalization is the key solution but it requires proper presentation to pm.

  7. মোঃ শাহ্‌ আলম, বি, বি, দাখিল মাদ্রাসা। আগস্ট ১৯, ২০১৬ at 10:55 অপরাহ্ণ says:

    স্যারের হিসাবের জন্য ধন্যবাদ।

  8. Shohel says:

    Sir ki gaja kheye likhesen? deshe manus 17cr r students 105 cr? k chakri diyese apnake. 15 lak x 7= 1cr 5 lak, 105 cr noi. gaja khowa saren.

  9. Md.NurulIslamKhan Zindani College says:

    স্যারকে ধন্যবাদ। যদিও হিসাবগত ভাবে ৬ষ্ঠ থেকে একাদশ শ্রেণী পর্যন্ত মোট শিক্ষার্থী ১.৩ কোটি এবং সেশনচার্জ-মাসিক বেতন বাবৎ (650+234=884)কোটি টাকা আয় হবে। জাতীয়করণে ঘাটতি হবে(1250-884=366) কোটি । কিন্তু মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পক্ষেই এমন সূদুর প্রসারী পদক্ষেপ গ্রহণ সম্ভব । তাই আমরা একান্তভাবে তাঁর ঘোষণা কামনা করছি।

  10. Md. Shahidul Islam, Sr. Assi. Teacher, Chapadaha B.L. High School,Kuptala , Gaibandha. says:

    আপনার হিসাব সরকারের সুনজরে আসবেতো !

  11. আমিন উদ্দিন says:

    ধন্যবাদ স্যারকে । আপনার সাথে আরও কিছু add করতে চাই। আমাদের দেশে অতীতের তুলনায় উল্লেখযোগ্য হারে শিক্ষার্থী বেড়েছে ।
    তার সাথে সাথে বেড়েছে দরিদ্র শিক্ষার্থর সংখ্যা। এদেশে বর্তমানে অনেক গরীব (অর্থাৎ নুন আনতে পান্তা পুরায় ) পরিবারের সন্তানেরা পড়া লেখা করে। প্রায়ই দেখা যায় তাদের সন্তানদের পড়ার ব্যয় ভার বহন করতে না পারায় কলেজে এসে কাদছেন। সমগ্র শিক্ষা ব্যাবস্হা জাতীয়করণ হলে এক দিকে যেমন হত দরিদ্র পরিবারগুলোর কষ্ট লাগব হত তেমনি সমাজে শিক্ষিতের হার অনেক বেড়ে যেত যা দেশের জন্য একান্ত কাম্য। আর নতুন এই রেকর্ড এর কৃতিত্বের আধীকার বর্তমান সরকারের হাতই থাকতো ।যা সরকারের জন্য অনেক সাফল্য বয়ে আনতে পারে।

  12. namul palash says:

    এটা করার জন্য সরকারের খুব শীঘ্রই পদক্ষেপ নেওয়া উচিৎ

  13. মো:আমির হোসেন says:

    জুলাই এর এমপিওতে ৫% ইনক্রিমেন্ট না পাওয়ায় শিক্ষকদের মধ্যে প্রচন্ড ক্ষোভ বিরাজ করছে ।
    আশায় আশায় ২ বছর তো পার হলো, আশা যে পূরণ হলো না । বিভিন্ন সূত্র ও এমপিও শিক্ষকদের দেয়া তথ্য থেকে জানা যায় বকেয়াসহ জুলাইয়ের এমপিওতে ৫% ইনক্রিমেন্ট না পাওয়ায় এমপিও শিক্ষকদেরর চরম হতাশা ও ক্ষোভ বিরাজ করছে ।যে কোন সময় প্রতিষ্ঠানে অনির্দিষ্ট কালের জন্য তালা ঝুলিয়ে এই বিস্ফোরণ ঘটাতে পারে ।এমপিওভূক্ত প্রায় সাড়ে ৫ লক্ষ শিক্ষক-কর্মচারী অত্যান্ত আশাবাদী ছিলেন,জুলাই/১৭ এর এমপিওতে বকেয়াসহ ৫% ইনক্রিমেন্ট পাবেন । কিন্তু শিক্ষকরা মনে করেন, শিক্ষামন্ত্রীর উদাসীনতা এবং এমপিও শিক্ষকদের প্রতি বিমাতা সুলভ আচরণের কারণে ইনক্রিমেন্ট হতে বাদ পড়লেন ।উল্লেখ্য ৮ম পে-স্কেল কার্যকরের প্রথম হতেই এমপিও শিক্ষকদের ইনক্রিমেন্ট তুলে নেওয়া হয় ।
    মোঃ আমির হোসেন. প্রধান শিক্ষক, তৌহিদ মেমোরিয়াল হাইস্কুল পলাশ, নরসিংদী,০১৭১৯৭৫৭৮২০

  14. ভূপাল প্রামানিক, প্র:শি: নামুজা উচ্চ বি: & সেক্রেটারি, বা: প্রধান শিক্ষক সমিতি, বগুড়া সদর। 01711 515468 says:

    একমত

  15. আরিফ says:

    সরকারি পেনশনার দের আনুতোষিক এ ৫% ইনক্রিমেন্ট যোগ হল। আর শিক্ষক দের কপালে তা নেই।
    জন্মই আমাদের আজন্ম পাপ।
    যে টাকা বোনাস পাব মুরগি কোরবানি দিতে হবে।
    অথচ এনটিআরসিএ কর্তৃক নিয়োগপ্রাপ্ত।
    থানায় প্রথম(আশে পাশের ৫ টা থানায় হাইয়েস্ট মার্ক) হয়েও বিনা বেতনে চাকরি করছি প্রায় ১ বছর হতে চলল। এ মাসে ইন্ডেক্স পেলেও বকেয়ার কোন খবর নেই।
    এমন চাকরি আমার জন্মে দেখি নাই….

  16. Khagendra nath mondal says:

    আপনার মন্তব্য Only prime minister can Solved this .

  17. MD.. WAHIDUL Islam asst. teacher Borhanuddin Islamia Alim mad. Borhanuddin Bhola says:

    Very good idea

  18. কবির says:

    Where is our 5% increment? we demand July -16′ 5% + July -17′ 5%=10% increment. we are five lakhs teachers, have about one crore vote, so we should be United, for nationalization.our education minister can’t deliver real information to our honourable prime minister. where go ours students tution fee & others fee?

আপনার মন্তব্য দিন