শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণে দরকার শুধু সরকারের সদিচ্ছা - মতামত - Dainikshiksha

শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণে দরকার শুধু সরকারের সদিচ্ছা

মোঃ শরিফুল ইসলাম |

কোন ভূমিকা ছাড়াই আমার এ লেখাটি। বিষয় সমগ্র শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করণ। তবে কিছু কথা না বললেই নয়। দেশের ৯৫-৯৭ ভাগ শিক্ষার্থী পড়াশোনা করে বেসরকারি স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসাতে। অথচ মাত্র ৩-৫ ভাগ শিক্ষার্থী এবং এদের শিক্ষক-কর্মচারিগণ সরকারি সকল সুযোগ-সুবিধা পায়। যা একই দেশে একই সিলেবাসে মোটেই কাম্য নয়।
যাক সে কথা। এখন দেখা যাক কী ভাবে সহজে সকল প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ সম্ভব। তার আগে দুটি সংখ্যা বলি। ২০১৭ খ্রিস্টাব্দে ১০টি শিক্ষা বোর্ড এর অধীনে এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল যথাক্রমে ১৮ লাখ এবং ১২ লাখ প্লাস। দুই পরীক্ষার গড় পরীক্ষার্থী ১৫ লাখ। এখন ধরি, ৬ষ্ঠ-দ্বাদশ পর্যন্ত সাতটি ক্লাস। তাহলে ১৫ লাখ গুণ ৭ = ১০৫ কোটি।
যেহেতু ৬ষ্ঠ-৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থীর সংখ্যা আরও বেশি হবে এবং বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানে ক,খ,গ শাখা আছে তাই মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১৩০ কোটি ধরলেও কম ধরা হবে। তবুও ১৩০কোটি ধরে যদি বাৎসরিক সেশন চার্জ পাঁচশ টাকা করে নেয়া হয় তাহলে এ খাতে আদায় হবে ৬৫ হাজার কোটি টাকা। মাসিক ১৫ টাকা বেতন নিলে এ খাতে আদায় হবে ২৩ হাজার চারশ কোটি টাকা। অর্থাৎ মোট বাৎসরিক আয়= ৬৫০০০+২৩৪০০=৮৮৪০০ কোটি টাকা।


সাবেক শিক্ষা সচিব নজরুল ইসলাম খান বিদায়ী সাক্ষাতে (নভেম্বর, ২০১৫) মাননীয় প্র্রধানমন্ত্রীকে বলেছিলেন সমগ্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের জন্য সরকারের অতিরিক্ত খরচ হবে এক হাজার দুইশ পঞ্চাশ কোটি টাকা। অর্থাৎ সমগ্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ করা হলে সরকারের লাভ হবে কমপক্ষে ৮৮৪০০–১২৫০ = ৮৭১৫০ কোটি টাকা বাৎসরিক।

মোঃ শরিফুল ইসলাম: সহকারি শিক্ষক, বাজার গোপালপুর স্কুল এণ্ড কলেজ, ঝিনাইদহ।
[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নন]

জারির অপেক্ষায় অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ নিয়োগ যোগ্যতার সংশোধনী - dainik shiksha জারির অপেক্ষায় অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ নিয়োগ যোগ্যতার সংশোধনী প্রাথমিকে সায়েন্স ব্যাকগ্রাউন্ড প্রার্থীদের ২০ শতাংশ কোটা - dainik shiksha প্রাথমিকে সায়েন্স ব্যাকগ্রাউন্ড প্রার্থীদের ২০ শতাংশ কোটা ১৮২ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিও বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু - dainik shiksha ১৮২ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিও বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার অপেক্ষায় চাকরিতে প্রবেশের বয়স: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী - dainik shiksha প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার অপেক্ষায় চাকরিতে প্রবেশের বয়স: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী আরও ৯২ প্রতিষ্ঠানের তথ্য চেয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় - dainik shiksha আরও ৯২ প্রতিষ্ঠানের তথ্য চেয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় শিক্ষকতা ছেড়ে উপজেলা নির্বাচনে শিক্ষক - dainik shiksha শিক্ষকতা ছেড়ে উপজেলা নির্বাচনে শিক্ষক প্রতিষ্ঠান প্রধান ও সুপারিশপ্রাপ্তদের করণীয় - dainik shiksha প্রতিষ্ঠান প্রধান ও সুপারিশপ্রাপ্তদের করণীয় প্রাথমিকে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ১৫ মার্চ - dainik shiksha প্রাথমিকে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ১৫ মার্চ ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website