please click here to view dainikshiksha website

শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণের বিকল্প নেই: অধ্যক্ষ শাহজাহান আলম  

অধ্যক্ষ মো. শাহজাহান আলম সাজু | আগস্ট ১৪, ২০১৭ - ১১:৫৯ অপরাহ্ণ
dainikshiksha print

শিক্ষা এমন এক অপার শক্তি, যা সংস্কৃতি ও সভ্যতার মূল ভিত্তি। শিক্ষা ব্যক্তির অন্তর্নিহিত সত্তাকে জাগ্রত, বিকশিত, শানিত করে ব্যক্তিকে বাস্তববাদী, আত্মপ্রত্যয়ী এবং স্বাবলম্বী করে তোলে। প্রকৃত শিক্ষার লক্ষ্য হচ্ছে মানবিক গুণাবলির উৎকর্ষ সাধন, গণতান্ত্রিক চেতনা ও দেশাত্মবোধসম্পন্ন উন্নত জীবনযাপন উপযোগী সুনাগরিক তৈরি করা। শিক্ষার সঠিক বিস্তার এবং যথার্থ প্রয়োগের মাধ্যমে পৃথিবীর বহু জাতি সমৃদ্ধি ও সুখ্যাতির স্বর্ণ শিখরে পৌঁছতে সক্ষম হয়েছে। কাজেই একটি উন্নত ও মর্যাদাশীল জাতি গঠনে শিক্ষার কোনো বিকল্প নেই। সেজন্যই বলা হয়ে থাকে ‘শিক্ষাই জাতির মেরদণ্ড’।

সুদীর্ঘ কালের ঔপনিবেশিক শাসনামলে শিক্ষার এই মাহাত্ম্য কৌশলে পাশ কাটিয়ে শোষক শ্রেণী কায়েমি স্বার্থে এ দেশে বৈষম্যমূলক শিক্ষাব্যবস্থা চালু করেছিল। যে কারণে সৃষ্টির সূচনা থেকেই শোষণের নতুন ক্ষেত্র পাকিস্তানের প্রাচীর ভেঙে বাঙালিদের ইতিহাস-ঐতিহ্যমণ্ডিত একটি স্বাধীন দেশ প্রতিষ্ঠায় নিজেকে উৎসর্গ করেছিলেন যিনি তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তাঁর সুদূরপ্রসারী চিন্তা-চেতনা, আপসহীন সংগ্রাম, সীমাহীন ত্যাগ এবং সুদৃঢ় নেতৃত্বে শংকর জাতির বাঙালিরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে ১৯৫২, ’৬২, ’৬৬, ’৬৯ এবং ১৯৭০-এর উত্তাল সংগ্রামের সিঁড়ি বেয়ে চূড়ান্ত পর্যায়ে ১৯৭১-এ মরণপণ মুক্তিযুদ্ধে লক্ষপ্রাণের বিনিময়ে স্বপ্নের আবাসভূমি, লাল-সবুজের বাংলাদেশের অভ্যুদয় ঘটে। জাতির অবিসংবাদিত নেতা, স্বাধীনতার মহান স্থপতি, জাতির জনক হিসেবে সম্পূর্ণ শূন্য হাতে যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশের শিক্ষাব্যবস্থা পুনর্গঠনের গুরুদায়িত্ব গ্রহণ অন্য কথায় দ্বিতীয় মুক্তি সংগ্রাম শুরু করেন। কারণ তিনি মনেপ্রাণে বিশ্বাস করতেন জাতিকে প্রগতিমুখী, সমৃদ্ধিশালী করার প্রধান হাতিয়ার হচ্ছে শিক্ষা। কিন্তু উত্তরাধিকার সূত্রে প্রাপ্ত ঔপনিবেশিক শিক্ষা পদ্ধতি বহাল রেখে জাতি গঠন কখনো সম্ভব নয়। দীর্ঘদিনের পরিকল্পনানুযায়ী তিনি একটি শোষণমুক্ত সমাজ তথা সোনার বাংলা নির্মাণের লক্ষ্যে বাঙালির ইতিহাস, ঐতিহ্য এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় আধুনিক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিনির্ভর যুগোপযোগী একটি কল্যাণমুখী শিক্ষানীতি বাস্তবায়নের কার্যক্রম গ্রহণ করেন যার সার্থক রূপায়ণ প্রখ্যাত ড. কুদরত-এ-খুদা শিক্ষা কমিশন অর্থাৎ শিক্ষা জাতীয়করণ।

এ উদ্দেশ্যে বঙ্গবন্ধু শিক্ষার প্রাথমিক স্তর বা ভিত্তি হিসেবে ৩৭ হাজার প্রাথমিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ১ লাখ ৬২ হাজার শিক্ষককে জাতীয়করণের ঘোষণা দেন যা ছিল তৎকালীন প্রেক্ষিতে অত্যন্ত ব্যয়বহুল ও দুঃসাহসিক পদক্ষেপ। তিনি শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণের লক্ষ্যে বাজেটে প্রয়োজনীয় অর্থবরাদ্দের জন্য অর্থমন্ত্রীকে নির্দেশ দেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শুধু প্রাথমিক শিক্ষাকে জাতীয়করণ করে স্বস্তিবোধ করেননি, শিক্ষার বৈষম্য দূরীকরণ এবং ক্রমান্বয়ে একটি সুষম স্তরে উন্নীত করার প্রত্যয়ে তিনি মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা ক্ষেত্রেও কার্যক্রম গ্রহণ করেন। কিন্তু প্রতিক্রিয়াশীল ও পরাজিত শক্তি কর্তৃক ১৯৭৫ সালে তার পৈশাচিক হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে এ মহতী প্রয়াস ধামাচাপা পড়ে। দীর্ঘপথ পরিক্রমায় ১৯৯৬ সালে বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্যকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ এবং বর্তমান সরকার ২০০৮ সাল থেকে অদ্যাবধি ‘একটি আধুনিকতাশ্রয়ী গণমুখী শিক্ষাব্যবস্থা’ বাস্তবায়নের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

বর্তমানে বাংলাদেশে সরকারি, বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় বাংলা, ইংরেজি ও আরবি মাধ্যমে প্রাথমিক, মাধমিক, উচ্চ মাধ্যমিক, কারিগরি ও উচ্চশিক্ষা ইত্যাদি স্তরের শিক্ষার প্রচলন রয়েছে। এর মধ্যে প্রাথমিক স্তরের শিক্ষা অধিকাংশই সরকারি ব্যবস্থায় পরিচালিত হলেও একটি উল্লেখযোগ্যসংখ্যক শিক্ষা বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থা ও কিন্ডারগার্টেনের মাধ্যমে পরিচালিত হচ্ছে। কিন্তু মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে প্রায় ৯৭% শিক্ষা এখনো বেসরকারি উদ্যোগে পরিচালিত হচ্ছে। যদিও অধিকাংশ প্রতিষ্ঠান সরকারি এমপিওভুক্ত হওয়ায় এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীদের বৃহদাংশের বেতন ও নির্ধারিত ভাতা সরকার থেকে বহন করা হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করার পর বাংলাদেশে শিক্ষাখাতে ব্যাপক উন্নয়নের লেখচিত্র নিম্নে তুলে ধরা হলো:

এক. একটি সার্বজনীন গণমুখী শিক্ষানীতি প্রণয়ন। শিক্ষক, শিক্ষাবিদ, বুদ্ধিজীবী, পেশাজীবী, ব্যবসায়ী, কৃষক, শ্রমিক, সাংবাদিক, আলেম-ওলামা, পীর মাশায়েখ, সরকারি ও বিরোধীদলীয় সব রাজনৈতিক দলের মতামতের ভিত্তিতে ২০১০ সালে একটি সার্বজনীন শিক্ষানীতি প্রণয়ন করা হয়েছে।

দুই. শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ২০০৮ সালে গঠিত সরকারের শাসনামলে ২০০৯ সালে প্রদত্ত পে-স্কেলে বেসরকারি শিক্ষকরা স্বয়ংক্রিয়ভাবে জাতীয় বেতন স্কেলে অন্তর্ভুক্ত হওয়ায় শিক্ষকদের বেতন ৬৩%-৬৫% বৃদ্ধি পায়।

তিন. ওই সময়ে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ন্যায় বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের ২০% মহার্ঘ্য ভাতাও প্রদান করা হয়েছিল।

চার. বেসরকারি শিক্ষকদের বাড়ি ভাড়া ১০০ টাকা থেকে ১০০০ টাকা এবং মেডিকেল ভাতা ৩০০ টাকা থেকে ৫০০ টাকা উন্নীত করা হয় নতুন বেতন স্কেলে বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারীদের বেতন দ্বিগুণ বৃদ্ধি করা হয়।

পাঁচ. ১৯৯১-১৯৯৬ মেয়াদে বিএনপি সরকার কর্তৃক বন্ধ করে দেয়া বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারীদের এককালীন অর্থপ্রাপ্তির কেন্দ্রস্থল ‘কল্যাণ ট্রাস্ট’ পুনরায় চালুকরণপূর্বক সংশ্লিষ্টদের যথাযথ সেবা দান। ১৯৯০ সালে কল্যাণ ট্রাস্ট প্রতিষ্ঠার পর থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের সর্বমোট কল্যাণ সুবিধা প্রদান করা হয়েছে ২৭৯ কোটি টাকা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার ২০০৯ সাল থেকে গত মেয়াদে প্রদান করেছে ৭২০ কোটি টাকা।

ছয়. বর্তমান সরকারের একটি উল্লেখযোগ্য প্রশংসিত সাফল্য হচ্ছে বছরের প্রথম দিনে বিনামূল্যে শিক্ষার্থীদের বই সরবরাহ করা। যা তৃতীয় বিশ্বে একটি অনন্য উদাহরণ। ২০১৫ শিক্ষাবর্ষে প্রাক প্রাথমিক থেকে নবম শ্রেণী পর্যন্ত ৪ কোটি ৪৪ লাখ ৫২ হাজার ৩৭৪ হাজার শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিনামূল্যে ৩২ কোটি ৬৩ লাখ ৪৭ হাজার ৯২৩টি বই প্রদান এবং ২০১৬ শিক্ষাবর্ষে নতুন বছরের প্রথম দিন প্রাথমিক থেকে মাধ্যমিক পর্যন্ত ৩৬ কোটি ২১ লাখ ৮২ হাজার ৪৫০টি রঙিন বই বিতরণ করা হয়েছে যা বিশ্বে এক নজিরবিহীন রেকর্ড।

সাত. ১৭ বছরের পুরনো পাঠ্যপুস্তক পরিবর্তন করে আধুনিক বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে যুগোপযোগী নতুন কারিকুলাম অনুযায়ী পাঠ্যসূচি প্রণয়ন।

আট. উপজাতীয়দের জন্য নিজস্ব ভাষায় এবং দৃষ্টিপ্রতিবন্ধীদের জন্য বিশেষ ধরনের বই প্রণয়ন।

নয়. এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষা এগিয়ে এনে সুনির্দিষ্ট তারিখ নির্ধারণ করতঃ সেশন জটের অবসান। প্রতিবছর ১ ফেব্রুয়ারি এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা এবং ১ এপ্রিল এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার তারিখ নির্ধারণ। পরীক্ষা গ্রহণ শেষে ৬০ দিনের মধ্যে ফল ঘোষণা।

দশ. প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের প্রায় ৭৮ লাখ এবং মাধ্যমিক স্তরে প্রায় ৪০ লাখ শিক্ষার্থীকে উপবৃত্তি প্রদান। অধিকন্তু শিক্ষার্থীদের মায়েদের জন্য ভাতা প্রদানের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। অতি সম্প্রতি সংযুক্ত ইবতেদায়ী মাদরাসার শিক্ষার্থীদের ও উপবৃত্তি দেয়ার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। এগারো. শিক্ষার্থীদের মায়েদের ভাতা প্রদানের উদ্যোগ টিকিউআই, এসইএসডিপি প্রকাশের মাধ্যমে বিপুলসংখ্যক শিক্ষককে প্রশিক্ষণ প্রদান। বারো. ঢাকায় টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়, রংপুরে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী আরবি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা। তেরো. তথ্যপ্রযুক্তি শিক্ষা, কাজে প্রয়োগ ও ব্যবহারে প্রভূত অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। ড়হষরহব ব্যবস্থায় শিক্ষার্থীদের নিবন্ধন, পরীক্ষার ফরমপূরণ, স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি, এসএমএসের মাধ্যমে ফল প্রকাশ প্রভৃতি ক্ষেত্রে সর্বাধুনিক প্রযুক্তির সেবা গ্রহণের সুযোগ সৃষ্টি। চৌদ্দ. বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কল্যাণ ট্রাস্ট ও অবসর সুবিধা বোর্ডে অনলাইন ব্যবস্থা চালু করা। ক্ষেত্রবিশেষে শিক্ষকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে কিংবা অসুস্থদের ক্ষেত্রে হাসপাতালে গিয়েও কল্যাণ ট্রাস্টের চেক তুলে দেয়া। কল্যাণ ট্রাস্ট ও অবসর সুবিধা বোর্ডের ফান্ড সংকট নিরসন কল্পে চলতি বছর ৮৫০ কোটি বরাদ্দ করা হয়েছে। কল্যাণ ট্রাস্ট প্রতিষ্ঠার পর বিগত ২৭ বছরে এটাই প্রথম সরকারি অনুদান। পনেরো. উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের রাজস্ব খাতে অন্তর্ভুক্ত করা। ষোলো. সরকারি কলেজের ৭০০ জ্যেষ্ঠ শিক্ষককে সিলেকশন গ্রেড (তৃতীয় গ্রেড) প্রদান। সতেরো. ঢাকা শহরে সরকারি উদ্যোগে নতুন ১১টি স্কুল ও ৬টি কলেজ প্রতিষ্ঠা এবং ২৮৫টি বেসরকারি কলেজকে জাতীয়করণের উদ্যোগ গ্রহণ।

আঠারো. বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে উচ্চশিক্ষা মানোন্নয়নসহ দুটি প্রকল্পের আওতায় বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে গবেষণার জন্য নিয়মিত অর্থবরাদ্দ প্রদান। বাছাই করা ২৭টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০৬টি গবেষণা উপ-প্রকল্পে ১৮৯ কোটি টাকা বরাদ্দ প্রদান। এ প্রকল্পের অধীন ইতিপূর্বেও ৯৩টি গবেষণা উপ-প্রকল্পে ১৮৩ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। উনিশ. উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে ছাত্রীদের পাশাপাশি ছাত্রদেরও উপবৃত্তির প্রদান। বিশ. প্রধানমন্ত্রী কর্র্তৃক এককালীন ১০০০ কোটি টাকা বরাদ্দপূর্বক ছাত্রছাত্রীদের বৃত্তির জন্য ট্রাস্ট ফান্ড গঠন। শিক্ষাব্যবস্থার আরো উন্নয়ন, আধুনিক বিশ্বমানে উন্নীত করার লক্ষ্যে সুপারিশগুলো: শিক্ষার মান রাতারাতি বৃদ্ধি করা সম্ভব নয়, এটি একটি চলমান প্রক্রিয়া। বর্তমান সরকারের শাসনামলে শিক্ষার মান পূর্বের তুলনায় অনেক বেড়েছে এ কথা বলার কোন অপেক্ষা রাখে না। তবে চূড়ান্ত লক্ষ্য অর্জন তথা শিক্ষাকে বিশ্বমানে পৌঁছানোর জন্য আরো কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ প্রয়োজন মনে করি। (১) অবিলম্বে শিক্ষা আইন বাস্তবায়ন করা।

(২) শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ আরো বৃদ্ধির ব্যবস্থা করা।

(৩) শিক্ষাঙ্গনের অবকাঠামোর আরো উন্নয়ন এবং শিক্ষা উপকরণের সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধি করা।

(৪) শিক্ষকদের আর্থিক সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধি করা। সরকার ঘোষিত শিক্ষকদের জন্য স্বতন্ত্র বেতন স্কেল বাস্তবায়ন করা। শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণ এ দেশের শিক্ষকদের প্রাণের দাবি। এক্ষেত্রে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সমস্ত আয় সরকারি কোষাগারে জমা নিয়ে শিক্ষাব্যবস্থার জাতীয়করণ করা যেতে পারে।

(৫) শিক্ষা প্রশাসন, বিভিন্ন অধিদফতর, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়সমূহে সৎ, যোগ্য এবং মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের কর্মকর্তাদের পদায়ন করা।

(৬) প্রশ্নপত্র ফাঁস, কোচিংবাণিজ্য, বইবাণিজ্য এবং নৈতিকতাবিরোধী কর্মকাণ্ডের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা।

(৭) পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণা খাতে বরাদ্দ বৃদ্ধি এবং বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়কে বাণিজ্যকরণের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা।

(৮) মাদরাসা শিক্ষাকে আরো আধুনিকীকরণ এবং যুগোপযোগী করার পাশাপাশি আরবি শিক্ষাকে আরো জোর দিয়ে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক যে বিশাল কর্মবাজার রয়েছে তা করায়ত্ত করার সুযোগ গ্রহণ করা।

(৯) সাধারণ শিক্ষার্থীরা যাতে কারিগরি শিক্ষার প্রতি আগ্রহী হয় সে জন্য কারিগরি শিক্ষাকে আরো গুরুত্ব দিয়ে এর কোর্স কারিকুলামকে আধুনিকীকরণ এবং কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসমূহের অবকাঠামো উন্নয়ন করা। (১০) শিক্ষার বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিরাজমান সমস্যাগুলো দূরীকরণের মাধ্যমে বিশেষ করে আইসিটি, অর্নাস ও মাস্টার্সের শিক্ষক, স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসাসহ এফিলিয়েশনভুক্ত সব স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসার নন এমপিও শিক্ষকদের এমপিওভুক্ত করা। বেসরকারি হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষকদের বেতন স্কেল পূর্বের ন্যায় সরকারি স্কেলের প্রধান শিক্ষকদের অনুরূপ একই কোডে উন্নীত, মাদরাসার সহকারী শিক্ষকদের বেতন স্কেল স্কুলের সহকারী শিক্ষকদের ন্যায় একই স্কেলে উন্নীত, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সমস্যা দূরীকরণের ব্যবস্থাগ্রহণ করা। (১১) সরকারি-বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতনবৈষম্য দূরীকরণে সরকার, বিত্তবান ব্যক্তি ও বেসরকারি সংস্থার উদ্যোগে ট্রাস্ট ফান্ড গঠন করা।

(১২) বর্তমান বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে শিক্ষাকে বিজ্ঞান প্রযুক্তিভিত্তিক করার বর্তমান সরকারের উদ্যোগকে আরো সম্প্রসারিত করতে করা।

(১৩) মাধ্যমিক শিক্ষার প্রশাসনিক কর্মকাণ্ডের দীর্ঘসূত্রতার অবসানকল্পে পৃথক মাধ্যমিক অধিদফতর প্রতিষ্ঠা করা।

(১৪) কলেজশিক্ষকদের পদোন্নতির ক্ষেত্রে অনুপাত প্রথা বাতিল ও অধ্যাপকের পদ সৃৃষ্টিসহ যোগ্যতার ভিত্তিতে পদোন্নতি প্রদান।

(১৫) প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ব্যক্তিগত উদ্যোগে বাংলাদেশে ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে এ দেশের আলেম সমাজের ৯০ বছরের দাবি বাস্তবায়ন হয়েছে। কওমি শিক্ষাকে গুরুত্ব দিয়ে সরকারি অধিভুক্ত করে আধুনিকায়নের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিক্ষক সমাজের জীবন ও জীবিকার উন্নয়নে অত্যন্ত যত্নবান ও উদার। তদসত্ত্বেও শিক্ষাব্যবস্থায় সরকারি-বেসরকারি, নানামুখী ও মানের বৈষম্য এখনো বিদ্যমান। এ বৈষম্য ডিজিটাল বাংলাদেশের উন্নয়ন ধারাকে বাধাগ্রস্ত করছে মনে করি। এ বাধা অপসারণের সর্বোত্তম পন্থা শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণ। এর বিকল্প নেই।

লেখক: সাধারণ সম্পাদক, স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ ও সদস্য সচিব, বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্ট, শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নন]

সংবাদটি শেয়ার করুন:


পাঠকের মন্তব্যঃ ১১৭টি

  1. Md.Rezaul islam.Lecturer of bangla.Aftabgong degree college. Nababgong.Dinajpur. says:

    good opinion.

  2. ninad nazrul says:

    Selected nationalization creates discrimination among teachers.

  3. দেবাশীষ পাল says:

    সবইতো হইছে বুঝলাম, শিক্ষকদের জন্য সরকার এতদিনে কি করলেন? কাঁচকলা!!

  4. ।মাজিব বারি says:

    এত কথা বুঝিনা দাবি মোদের একটাই জাতীয়করন।আপনারা একমত থাকলে খুব দ্রুতই আমাদের প্রানের দাবি জাতীয়করন হবে।

  5. শহিদুল ইসলাম, প্রভাষক,মনজুর কাদের মহিলা ডিগ্রি কলেজ, বেড়া,পাবনা says:

    ধন্যবাদ স্যার, জাতীয়করণই সব সমস্যার সমাধান।

  6. শহিদুল ইসলাম,প্রভাষক,মনজুর কাদের মহিলা কলেজ,পাবনা says:

    স্যার,১৩.১১.১১ এর পরিপএের বিষয়ে কিছু একটা করেন।

  7. রিক্ত says:

    জাতীয়করণের বিষয়ে একটুখানি টান দিলেন ।

  8. ককক says:

    আপনি শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করন করা যেতে পারে বললেন। এর মানে আপনি জাতীয়করন হউক তা আপনারা চান না। তাহলে আপনি নেতৃত্ব ছেড়ে দিন।

  9. Khasru says:

    একমাত্র সমাধান জাতিয়করন।

  10. মোঃ সাইফুল ইসলাম says:

    বেসরকারী শিক্ষকদের জন্য ১৫দফার সময়শেষ। এখন একদফ একদাবী চাকুরী জাতীয়করনের দাবী।

  11. ওবাইদুললাহ বাংগুরি দাখিল মাদরাসা মিজাপুর টাংঈাইল। says:

    আপনার লেখা পড়ে মনে হল শিক্ষক নেতা নয়। রাজনৈতিক নেতা।

  12. মোঃ লাল্টু মিয়া সহ: শিক্ষক ইংরেজি ,ভাটই মাধ্যমিক বিদ্যালয়,শৈলকুপা,ঝিনাইদহ। says:

    welcome

  13. মণি রহমান says:

    বৈশাখী ভাতা ও ৫% প্রবৃদ্ধি বঞ্চিত এমপিওভুক্ত বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারিদের জন্যে কী করেছেন আপনি?

  14. anisuzzaman Bhuiyan (samiul). Ass.Teacher Eng.Mesera High School. Hossainpur, Kishor gonj. says:

    আপনার মন্তব্য
    Alright sir. Thank you very much for issuing about fundamental rights of teachers, students, motherland and great contribution of Banghabondo and Sheik Hasina.

  15. মো: হারুন উর রশীদ says:

    মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনি ইচ্ছা করলেই সকল প্রতিষ্ঠান একসাথে এক ঘোষনায় জাতীয়করণ করে ফেলতে পারেন।

  16. মিজানুর রহমান says:

    বেসরকারি শিক্ষকদের বদলির ব্যবস্থা করা এবং বিষয় ভিত্তিক শিক্ষক নিয়োগ করা ও মাদ্রাসার ব্যবসায় শিক্ষার শিক্ষকদের স্কুলে বদলী করা খুবই প্রয়োজন।

  17. Krshibid Shahinur Islam Sumon says:

    Thanks a lot.

  18. TANVIR AHMED says:

    Eto kichu korlen r ICT Teacher der MPO dilen na. But digital Bangladesh gorben bisoy ta kemon comedy hoea gelo na. Hire digital Bangladesh tumar digital cheleder biton nei

  19. আজমল হোসেন says:

    বেসরকারি শিক্ষা জাতীয়করণের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিন. আন্দোলনের ডাক দিন।

  20. মিজান says:

    অবশ্যই ঐক্য বদ্ধ ভাবে আওয়াজ তুলতে হবে

  21. মোঃ শরিফুল ইসলাম,{সহকারী শিক্ষক (গণিত)} says:

    এত লেখালেখির পরও সরকারের কোন মতামত নেই

  22. Amir Hussain says:

    Dalali Karun Nijer Vagger Unnon Karun. Aponar Katha Shikkhokra Sunte Chayna Kano?

  23. সবুজ খান, সহঃশিক্ষক,ডগলাস মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়,কোটালীপাড়া,গোপালগঞ্জ। says:

    স্যার, আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। তবে আপনাকে সবিনয় অনুরোধ করছি, আপনি একটি সমাবেশ ডাকুন এবং এর প্রধান অতিথী হিসেবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রন দিন। তিনি উপস্থিত হয়ে শিক্ষকদের ন্যায্য দাবিগুলো শুনলে মনেহয় তিনি শিক্ষকদের নিরাশ করবেন না। কারণ তিনি শিক্ষানুরাগী এবং তিনিই একমাত্র শিক্ষা জাতীয়করণ করতে পারেন।

  24. রাজু আহমেদ says:

    ভূতের মুখে রাম রাম। সাজু সাহেব নিজের ফায়দা লাভের জন্য এ কি বললেন ?

  25. MOKABBAR HOSSAIN, Assistant Teacher,CHAPADAHA B L HIGH SCHOOL says:

    বে-সরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক -কর্মচারীদের প্রাণের দাবী,জাতীয়করন।

  26. anto says:

    ধান ভানতে শিবের গীত

  27. এম. জুবের আহমদ, জুড়ী, মৌলভীবাজার। says:

    সবই হয়েছে, শুধু আইসিটি শিক্ষকদের এমপিও দেওয়া হয়নি। কবে হবে?

  28. এম. জুবের আহমদ, জুড়ী, মৌলভীবাজার। says:

    আইসিটি শিক্ষকদের এমপিও চাই।

  29. MD MUZIBUR RAHMAN,assistant teacher,jamina mohammad secondary school,bharpasha,bakergonj. says:

    আপনার মন্তব্যJATIR PITAR PROTI SRODDA JANIA MANONIO PRODHAN MONTRI APNAKE JANATE CHAI,apni amader ahvivhabok tatha pita,sokol mpo teacher der akshathe jatiokaron korle aponar namti prethibir etihashe sornakhore lekha thakbe.

  30. মোঃ ইসাহাক আলী, অধ্যক্ষ says:

    নেতা মহোদয় আপনার আসল চরিত্র অনেক আগে দেশের শিক্ষক সমাজ জেনে গেছে। আর ধোকা দিয়ে লাভ নেই। আপনি পদে থাকা পর্যন্ত শিক্ষক সমাজের কোনো উন্নয়ন হবে না। আপনার প্রস্থানেই শিক্ষকদের মঙ্গল।

  31. Md Enamul Kabir, Assistant Professor says:

    হজম করা খাদ্য আবার টেনে বের করে পুনঃ চর্বণ! আপনার কাছে এসব জানা বিষয় কে জানতে চেয়েছে? এতে আপনার কোনো কৃতিত্ব আছে কি? ফালতু প্যাঁচাল! আসল দাবিকে পাশ কাটিয়ে অপ্রাসঙ্গিক কথা বলে শিক্ষক সমাজকে ধোঁকা দেওয়ার কুৎসিত প্রচেষ্টা বন্ধ করুন।

  32. পার্থসারথি রায়, প্রভাষক, রসায়ন, গুঠিয়া আইডিয়াল কলেজ, বরিশাল। says:

    শিক্ষা ক্ষেত্রে বর্তমান সরকারের অভাবনীয় সাফল্য আমাদের অজানা নয়। সরকারের প্রিয়পাত্র হওয়ার জন্যই যে সরকারের এই গুণকীর্তন বা এক কথায় চাটুকারিতা সেটা আমাদের বুঝতে বাকী নেই। এসব চাটুকারিতা বাদ দিয়ে বেসরকারী শিক্ষকদের যে ক্ষতি করেছেন তা পুরণ করার চেষ্টা করুন। নতুবা ইতিহাস আপনাকে খলনায়ক বলবে।

  33. Farhad Hossain,Lecturer (MIDC)Parbatipur,Dinajpur: says:

    For retaining leadership such type of writing is to be needed. Enough, enough. Country is now independent. Accorting to constitution all will enjoy the same rights. Same Syllabus, same class,same teaching method, why will there be discrimination? So, no more. Nationalisation has now become right, not mercy. The generally MPO included teachers are now in the train of movement. They will be successful. So greedy leaders, be careful, don’t try to politicise the movement.

  34. Md. Hamidur Rahman Headmaster Gopaljhar M L High School Nilphamari. says:

    Dear sir, praner dabi ke any time vulben na. I will remember for ever to you.

  35. রাধাকান্ত বিশ্বাস, প্রধান শিক্ষক ,প্রগতি মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়,যশর says:

    বেসরকারি শিক্ষা জাতীয়করণের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিন

  36. পুলক কুমার ভট্টাচার্য , প্রধান শিক্ষক, বগুড়া জুবিলী ইন্সটিটিউশন, বগুড়া। says:

    শুধু বক্তব্য না দিয়ে কাজের কাজ করলে ভালো হয়।

  37. এ,টি,এম,মাহবুবুর রহমান। সহকারি শিক্ষক, আর্দশ স্কুল মতলব, মতলব দক্ষিণ, চাঁদপুর। says:

    সবটাই অতীত। এখন শিক্ষকদের কি দাবী তার কিছুই নেই?

  38. আব্দুস সালাম,সিরাজগঞ্জ। says:

    ৫ শতাংশ ইনক্রিমেন্ট ও বৈশাখী ভাতার ব্যবস্থা করতে পারলেন না। আপনার দ্বারা জাতীয়করণের পথ কতটুকু এগুবে আমরা শিক্ষক সমাজ এখন সন্দিহান।আমরা আপনাকে যেভাবে মহারতি ভেবেছিলাম ,৪শতাংশ কর্তন করে নিজেকে নিজেই ধুলায় মিশিয়ে দিলেন।নিজের বেঈমানি ঘুচাতে অতিসত্বর শিক্ষক সমাজকে একত্রিত করে জাতীয়করণের ডাকদিন।

  39. মোঃ আঃ আলীম ,লোহারটেক উচ্চ বিদ্যালয়,সদরপুর,ফরিদপুর। says:

    ৫ লাখ শিক্ষকদের অভিশাপ নিবেননা। ক্ষমতা পেয়ে নিজের স্বার্থ বাদ দিয়ে আমাদের জন্য কিছু করুন।অপরের দোষ না দিয়ে নিজের দোষ দেখুন।

  40. মো: জিয়াউর রহমান ,কয়রা মদিনাবাদ মডেল স্কুল says:

    শিক্ষা ব্যবস্হা জাতীয়করনই একমাত্র পথ

  41. MD.ASADUZZAMAN. HM.Abdul Bari,Sadar, Jessore. says:

    আর জাতীয়করণের দরকার নেই, শিক্ষকরা বড়ই বোকা। দয়া করে ঈদুল আযহার আগেই ঈদ বোনাস ও আগস্ট’-১৭ মাসের বেতনটা ছাড়করণের জন্য বলেন, যেন ঈদুল ফিতরের মত না হয়।

  42. Md.Moazzem Hossain says:

    Excellent Comments. Sir, Go ahead. We are always with You. Wish You longivity & prosperity.

  43. humayun kabir says:

    সকল সমস্যার এক মাত্র সমাধান জাতীয়করণ।

  44. মোঃ হেলাল উদিদন,প্রভাষক(কৃষি),অাদর says:

    অাপনিতো বেসরকারি শিককদের নেতা কিনতু একটি বারও ৫% এর কথা বললেননা। অাগে অামাদের প্রাণের দাবি ৫% অাদায় করেন।

  45. মোঃ হেলাল উদিদন,প্রভাষক(কৃষি),অাদশ মহিলা কলেজ, পাবনা says:

    অাপনিতো বেসরকারি শিককদের নেতা কিনতু একটি বারও ৫% এর কথা বললেননা। অাগে অামাদের প্রাণের দাবি ৫% অাদায় করেন।

  46. মোহাম্মদ আমজাদ হোসেন says:

    আসিটি শিক্ষকদের এমপিও হচ্ছেনা আবার জাতীয়করন।

  47. আবুল বাশার says:

    যদি চাই শিক্ষাব্যবস্থার সকল সমস্যার উত্তরণ,
    উপায় একটাই তাহল জাতীয়করন।

  48. মোহাম্মদ আমজাদ হোসেন says:

    আইসিটি শিক্ষকদের এমপিও হচ্ছেনা অাবার জাতীয়করন।

  49. মোঃ সাদিকুর রহমান। says:

    ভাবতে অবাক লাগে, আমরা বেসরকারী শিক্ষক বলেই কি আমাদের কোন চাকরি বিধি নাই? কোন সুস্পষ্ট নিয়ম নাই? কিভাবে স্কেল পরর্বতন হবে, ৫% প্রবৃদ্ধির বিষয় স্কেলে বলা হলেও তা আমাদের বেলায় অকার্যকর। তাহলে কি একই স্কেলেই বাকি জীবন পার হবে। ৮৪% বা তার ও বেশি শিক্ষার্থী প্রতি বছর পাশ করে এই বেসরকারী স্কুল থেকে অথচ বেসরকারী শিক্ষকরা বেতন পান অনুদান কিংবা বলা যায় ভিক্ষার তহবিল হতে।এটা খুবই লজ্জার। তাহলে কিভাবে দেশ এগোবে?

  50. মো: মমতাজ হোসেন, প্রভাষক, পুরাতন ঠাকুরগাও বিএম কলেজ,ঠাকুরগাও। says:

    প্রভাষক পার্থ সারথি রায় স্যারের সাথে আমিও একমত। সাজু স্যার, আপনি এত কথা না বলে এদেশের বেসরকারি শিক্ষকদের জাতীয়করণের চলমান আন্দোলনকে মাঝপথে থামিয়ে দিয়ে শিক্ষক সমাজের কী উপকারটা করলেন সেটা যদি একটু খোলাসা করে বলতেন তাহলে বোধ হয় ভালো করতেন। আপনি জাতীয়করণের আন্দোলনকে মাঝপথে থমিয়ে দিতে পেরেছেন, কিন্তু পারেননি ১৩/১১/১১ এর কালো আইন বাতিল করাতে,পারেননি আই সি টি শিক্ষকদের এমপিওভূক্ত করাতে,পারেননি বেসরকারি কলেজ শিক্ষকদের পদোন্নতির কালো আইন (অনুপাত প্রথা) বাতিল করাতে, পারেননি নন এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিভূক্তির জন্য কোনো বাজেট বরাদ্দ করাতে। তাই আপনি আজও বেসরকারি শিক্ষকদের প্রাণের নেতা হয়ে উঠতে পারলেননা।

  51. অধ্যা: আলমগীর, কা:সো: ড‌ি:কল‌েজ, চাঁপাই নবাবগঞ্জ। says:

    মন্তব্য যারা পড়ল‌ে কাজ হব‌ে তারা ত‌ো পড়‌ে না । মন্তব্য পাঠ‌িয়ে লাভ ক‌ি ।

  52. robi khan says:

    ৫ পার্সসেন্ট ও বৈশাখী ভাতার

    জন্য আপনি জনাব সাজু ওরফে নেতা স্যার কী করছেন ?

    আকাইমা নেতার চেয়ে খেতা শ্রেয় নয় কী ?

  53. Tapan kumar dhaly says:

    Onek to bolen , boishakhi vata koi?
    Apnar moto leadership Thakle Konodin hobe na.

  54. Tapan kumar dhaly says:

    Eto dilen boishakhi v ata koi?

  55. Tapan kumar dhaly says:

    Kothor andolon na Korle Kochi paben na sir! Eto k ichui dilo boishakhi vatar kotha to bolen na. Bolben ki kore apnar moto leader thakle majhe modde kalo baj dharoner moto kormosichi deben ar nijer poket vorben kemon?

  56. মো: আল - আমিন সরকার (তালশহর করিমিয়া ফাযিল মাদরাসা, আশুগঞ্জ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ।) says:

    আপনার লেখনী বক্তব্য ভালই লেগেছে ,আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ ,তবে আপনার মাধ্যমে স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ এর উদ্যেগে অচিরেই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে মহাসমাবেশ ডেকে বেসরকারি শিক্ষকদের প্রাণের এক দফা দাবি জাতীয়করণ এর চেষ্টা করার জন্য সবিনয় অনুরোধ করছি।

  57. এখলাছ says:

    সান্তনা দেয়ার জন্য ধন্যবাদ।

  58. মোঃ জয়নাল আবেদিন। চতলবাইদ করটিয়াপাড়া দাখিল মাদরাসা, সখিপুর, টাংগাইল। says:

    স্যার আপনি সব জানেন। তারপরও কেন নন এমপিও আইসিটি শিক্ষকদের এমপিও পেতে আপনার সরাসরি সহযোগিতা পাইনা।

  59. মো: ফজলুর রহমান says:

    আপনার চরিত্রের ভিতরটা পর্যন্ত জাতি জেনে গেছে।শিক্ষক সমাজের সাথে ধোঁকাবাজি আপনাকে মানায় না।আজ সবাই জানে দেশ রত্ন,জননেত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা সাহসী জননী বাংলার শেখ হাসিনা শিক্ষা বান্ধব সরকার।আপনাদের চাটুকারিতার জন্যই আজ বে সরকারি শিক্ষকগন ৫%ইনক্রিমেন্ট এবং বৈশাখী ভাতা থেকে বঞ্চিত।আসল কাজের খবর নেই গীতি কাব্য শুরু করে দিলেন?আদর্শ শিক্ষক জাতি কোন দিন অকর্মা কাব্য শুনতে চায় না।জানা দরকার”প্রাণ থাকলে প্রাণী হওয়া যায়,কিন্তু মন না থাকলে মানুষ হওয়া যায় না।

  60. Md Nahid uddin B ED, MA Galachipa, Patuakhali says:

    Good opinion, একই সঙ্গে আমরাও বলি বেসরকারী শিক্ষকদেের জাতীয়করনের বিকল্প নেই।

  61. মলয় বল্লভ, সহকারী শিক্ষক,বি,ডি,সি,এইচ মাধ্যমিক বিদ্যালয়। says:

    ধন্যবাদ স্যার জাতীয়করনই এর একমাত্র সমাধান।

  62. পরমানন্দ ঢালী says:

    সুন্দর একটি প্রবন্ধ লেখার জন্যে আপনাকে অনেক ধন্যবাদ। এমন সুন্দর প্রবন্ধ লেখার জন্যে আপনার প্রতি সরকারের সুদৃষ্টি পড়ুক। করম জীবনে আপনার একটা ভালো সুযোগ আসুক, কামনা করে এই প্রবন্ধ পুনরায় কোনো দিন না লেখার জন্যে আপনাকে বিনীতভাবে অনুুরোধ করছি। কারণ এ প্রবন্ধ পড়ে মুখস্থ করলেও বেসরকারি শিক্ষকদের কোনো কাজে আসবে না।

  63. মোঃ আনিসুর রহমান যাদু অফিস সহকারী says:

    ঐক্য বদ্ধ ভাবে আওয়াজ তুলতে হবে এখন একদফা একদাবী চাকুরী জাতীয়করনের দাবী।

  64. মো: দেলোয়ার হোসেন মজুমদার says:

    সময় উপযোগি প্রস্তাব। সকল শিক্ষকে এক প্লাট ফর্মে এখনি আশা কর্তব্য এবং ফরজ বলে আমি মনে করি।

  65. অধ্যক্ষ মোঃ সিদ্দিক উল্লাহ। says:

    সরকারের চাটুকারিতা বাদ দিন। শিক্ষক সমাজ সচেতন। জাতীয় করনের চেষ্টা করুণ।

  66. মো: আরজু says:

    দেশে শিক্ষা ব্যবস্থা অনেক উন্নতি হয়েছে কিন্তু ননএমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের বেলায় কিছুই হয় নাই | দয়া করে এমপিও দিন |

  67. MD Salim khan says:

    Saju sir
    Apni a sob vondami bad den.
    We can now understand you are a cheater. You are like an animal.

  68. Md. Mobarok Sardar, Asst. Teacher (English) says:

    I would like to request the Honourable Prime Minister to nationalize the schools,madrashas & colleges for the betterment of education system in Bangladesh.

  69. মুহাম্মদ তায়ফুর রহমান বাবুল,কুড়িপাড়া উচ্চ বিদ্যালয় বন্দর, নারায়ণগঞ্জ। says:

    সাজু ভাই, আপনার সংগঠনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রিকে ব্যাপারটা বুঝান। তা হলে হয়তো বা সম্ভব।

  70. মোঃ ওবায়েদ উল্লাহ । প্রভাষক (আরবী) । মাঝের চর ফাজিল মাদ্রাসা, চরফ্যাশ, ভোলা, বরিশাল । says:

    বে-সরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক -কর্মচারীদের প্রাণের দাবী,জাতীয়করন।

  71. মোঃ নেকবর আলী ,সভাপতি ,বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি, পাকুনদিয়া শাখা । says:

    কথাতো ভাল বললেন ।অনেক ফিরিসতি দিলেন ।সাধারন শিক্ষকরা বলেন আপনাদের কথা গুলি ভাওতা বাজি ।আপনারই হছচেন জাতীয় করনের প্রধান বাঁধা ।সকল সংগঠনের সাথে ঐক্যহউন ।

  72. মোঃ ওবায়েদ উল্লাহ । প্রভাষক (আরবী) । মাঝের চর ফাজিল মাদ্রাসা, চরফ্যাশ, ভোলা, বরিশাল । says:

    শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করণ ছাড়া দেশ কখনও ডিজিটাল হতে পারে না ।

  73. মো: আনারুল ইসলাম says:

    জাতীয়করনই একমাত্র সমাধান। অবিলম্বে জাতীয়করন করা হক।

  74. Kabir says:

    শিক্ষক সমাজ আপনার সব কিছু ভুলে যাবে, যদি আপনি জুলাই-১৬ এর ৫%+ জুলাই-১৭ এর ৫%= ১০% ইনক্রিমেন্ট, ১০০% বোনাস, বৈশাখী ভাতা, বাড়ি বাড়া এর ব্যাপারে আন্দোলন এর ডাক দেন এবং সাথে সাথে জাতীয়করণ এর ঘোষণা আদায় করতে পারেন।

  75. মো: আনারুল ইসলাম says:

    জাতীয়করণই একমাত্র সমাধান।আপনিই পারেন সরকারকে বোঝাতে। ধন্যবাদ

  76. শামীম ভুইয়া ঽাএাপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়। কিশোরগন্জ। says:

    স্যার আপনাকে ধন্যবাদ সরকারে বিভিন্ন দিক তুলে ধরার জন্য আমরাও জানি এ গনমুখি জনবান্দব সরকার আমাদের জন্য অনেক কিছু করেছে।কিন্তু সময়ের দাবি ৫% ও জাতীয়করন। এ দেশ স্বাধীন ঽয়েছে বৈষম্য কথাটি থেকে আর এ সরকারের আমলেও আমরা বৈষম্যের শিকার ঽব একথাটি মেনে নেওয়া যায় না স্যার।আপনারা বুঝিয়ে অন্তত ৫% এর ব্যবস্তা করুন ও বৈশাকী ভাতা ও ঈদ বোনাস এর ব্যবস্তা করুন।তাহলে আমরা জোর গলায় বলতে পারব আমাদের সরকার সব সমস্যার সমাধান করেছ।

  77. Bipro das Biswas says:

    বেসরকারী শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করনের বিকল্প নেই।

  78. Bipro das Biswas says:

    আমি একমত পোষন করছি।

  79. বিপ্রদাস বিশ্বাস says:

    আমি একমত পোষন করছি।

  80. Whiduzzaman babu says:

    Dalalder kotha sune ki lav……., ( 6% ke 10% kari dalal)
    Notun fondi khujte asesen…..???

  81. Md. Motiul Alam Khan says:

    জাতীয়করনের জন্য আনোলনের কর্মসূচি ঘোষনা করুন।

  82. মহসিন আলী, প্রভাষক. রাজশাহী। says:

    আগামী জাতীয় সংসদ নিবাচনে মনোনয়নের স্বপ্ন দেখছেন নাকি? আশা করি সরকারের কোনো গুরু দায়িত্ব আপনি পেয়ে যাবেন। হতাশ হবেন না। দৈনিক শিক্ষা এসব অখাদ্য লেখা না ছাপালেই পারত।

  83. মুজিব says:

    সাজু সাহেবের প্যাঁচানো প্যচাল ভাল্লাগেনা।
    এক দফা জাতিয় করন চাই।

  84. Shariful Islam,Pangsha Govt. College,Rajbari says:

    যৌক্তিক অভিমত

  85. মুসফিকা চৌধুরী says:

    আপনাকে ধন্যবাদ। আমার মনের কথাগুলো বলা র জন্য।

  86. মো:ইসহাক সহকারি শিক্ষক পশ্চিম মাঠ ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসা মাদারিপুর সদর says:

    শিক্ষা ব্যবস্হার উন্নতির জন্য জাতীয়করন অবশ্যই প্রয়োজন

  87. Md.Abdul Jalil says:

    What did you write,correct, sir.Thanks for such writtings.

  88. Md.Abdul Jalil,Ziteswari Rashidia dakhil madrasah,sakhipur,Tangail says:

    Go ahead

  89. মোঃ অলিউল ইসলাম says:

    মুখে বলে কী লাভ,কাজে খাটাতে হবে।

  90. মোঃ অলিউল ইসলাম says:

    Thanks

  91. তাক মাহমুদ (অধ্যক্ষ )রাজাপুর বটতলীহাট মহাবিদ্যালয় ,পোঃরামবাড়ী, নিয়ামতপুর, নওগাঁ says:

    ননএমপিও প্রতিষ্ঠানএমপিও ভূক্ত করার মন মানুষিকতা তৈরি করেন । তারপর না হয় শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করন হবে ,এখনই শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করন কেন?

  92. মো: আল মামুন রেজা, সহক‌রি শিক্ষক, ফ‌কিরবাড়ী মাধ্য‌মিক বিদ্যালয় , মোরেলগন্জ , বাগেরহাট | says:

    সাজু সাহেব , আপনাকে সবাই দালাল বলেই মনে করে অযথা শিক্ষকদের সামনে এসে তাদের রাগ বাড়িয়ে দেন কেন ?

  93. মোঃ এসকান্দার আলী।সুপার কুতুবপুর সামছিয়া দাখিল মাদরাসা।শিবচর মাদারীপুর। says:

    শিক্ষার মান উন্নয়নে এই মূহুর্তে দুটি কাজ।১।প্রাইভেট ও কোচিং বন্ধ এবং ২। শিক্ষকদের বদলিকরণ।

  94. Kabir says:

    জাতীয়করণই এক মাত্র সমাধান। কেউ দালালি করলে রেহাই পাবে না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কাছে সঠিক তথ্য উপস্থাপন করতে পারলে আশা করি দ্রুত জাতীয়করণ এর ঘোষণা আসত। প্রধানমন্ত্রী যদি জানত স্কুল ও কলেজ এর ছাত্র ছাত্রীদের বেতন,উপবৃত্তির টাকা,ফর্রম ফিল-আপ এর টাকা কোথায় যায়, তা হলে আজই জাতীয়করণ এর ঘোষণা দিতেন। ৫ লাখ শিক্ষক এর প্রায় এর কোটি ভোট আজিবন আওয়ামীলীগ এর ভোট ব্যাংক হিসাবে থাকত।

  95. abu tayef says:

    আপনি শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করন করা যেতে পারে বললেন,ভাই আমার মনে হয় আপনাকে বলা উচিত ছিল জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা অনতিবিলম্বে জাতীয়করন ঘোষনা দিবেন ইনশাল্লাহ ।

  96. এম এ তাহের says:

    Timely opinion. Thanks sir.

  97. মোঃ জায়েদুর রহমান খান প্রঃ শিঃ says:

    এক দফার কথা বলুন, তা হল জাতীয় করণ । সবাই একই প্লাট ফরমে আসুন । সময় কিন্তু বেশী নেই । জাতীয় নির্বাচনের আগেই বেসরকারী শিক্ষকদের দাবী মেনে নেওয়ার ব্যবস্থা করুন ।

  98. প্রনব দাস says:

    সকল বেসরকারি শিক্ষক সমাজকে এক হতে হবে।আওয়ামীলীগ ও
    বিএনপি বলে কোন কথা থাকবে না,,,,

  99. মোঃ আসলাম উদ্দীন, প্রভাষক, says:

    জনাব সাজু স্যার,
    আপনার কথায় আর কেহ নাচবে না। আপনি এখন শিক্ষক সমাজকে ডাক দিয়ে দেখুন না কতজন শিক্ষক আপনার ডাকে যায়। আপনার যোগ্যতা আর একবার যাচাই করুন। আমার মনে হয়, আপনি এখন হিরো থেকে জিরো। কারণ রাখাল বালকের মত ডাকলে আর কেহ আসবে না। ধন্যবাদ সবাইকে।

  100. Rofiqul Islam Swapon, Lect: Accounting, purbadhala Degree college. 01926874021 says:

    আসলে শিক্ষক নেতারা লোক দেখানো জাতীয় করণের কথা বলেন। তাদের কে আমরা নেতা বানিয়েছি ঘরে বসে থাকার জন্য নয়।

  101. Abc says:

    এ সব বাজে কথা না বলে কাজের কথা বলো৷

  102. বায়েজীদ রানা says:

    ভূতের মুখে রাম নাম

  103. মো. আলী এরশাদ হোসেন আজাদ says:

    যে চাকরি বা প্রতিষ্ঠানে ‘সহ’ ‘উপ’ ‘যুগ্ম’ ‘সাব’ ‘জুনিয়র’ ইত্যাদি উপসর্গযুক্ত পদবি থাকে সেখানেই চূড়ান্তধাপে পূর্ণ-পদবিধারী থাকেন। পরিচালকের উর্ধ্বতন হিসেবে মহাপরিচালক, সচিবের উর্ধ্বতন হিসেবে থাকেন সিনিয়র সচিব। এমপিওভুক্ত কলেজে সহযোগি অধ্যাপক বা অধ্যাপকের পদ না থাকায় জিজ্ঞাসা, ‘সহকারী অধ্যাপকগণ’ কোন উর্ধ্বতন কর্মকর্তার সহকারী ?
    মো. আলী এরশাদ হোসেন আজাদ
    সহকারী অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান, ইসলামিক স্টাডিজ
    কাপাসিয়া ডিগ্রি কলেজ, কাপাসিয়া, গাজীপুর ১৭৩০

  104. মোঃ রফিকুল হাসান লুইস, অধ্যক্ষ, ইমামপুর মহিলা বিএম কলেজ, মেলান্দহ, জামালপুর। says:

    ধন্যবাদ, সরকারের শিক্ষা বিষয়ক সাফল্য তুলে ধরার জন্য। এটাই সিস্টেম দাবি আদায়ের কিন্তু সেটা শুধুই ফেসবুক বা অনলাইন পত্রিকায় লেখালেখি বা মন্তব্যের মাধ্যমে সম্ভব নয়। সঠিক এবং অবশ্যই অবশ্যই একমাত্র পথ হচ্ছে ঢাকায় লক্ষাধিক শিক্ষক- কর্মচারীদের উপস্থিতিতে মহা সমাবেশে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা কে প্রধান অতিথি করে তার সামনে সরকারের শিক্ষা বিষয়ক সাফল্য তুলে ধরুন এবং বেসরকারি শিক্ষক সমাজের প্রানের দাবী তথা উন্নত ও সমৃদ্ধশালী দেশ গঠনে জাতীয় দাবী “শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয় করন” এবং “জাতীয় করন” অবশ্যই “জাতীয় করন” এই ধ্বনি মুখে মুখে আওয়াজ তুলুন।
    তবেই আমাদের বিজয় সুনিশ্চিত – ইনশাআল্লাহ্‌ !

  105. Mausud..Rana... lecturer... English.. says:

    বুঝিয়া থাক,,,,,

  106. BHABANI Kumar ray says:

    ভালো লাগল।তবে আজও 5%ও বৈশাখী ভাতা আদায় করতে পারলেন না।এই কি নেতার বক্তব্য ।এগুলো আমাদের না শুনিয়ে দয়া করে শিক্ষা মন্ত্রী ও জননেত্রী শেখ হাসিনা শুনলে মনে হয় আপনার প্রমোশন হবেই।ধন্যবাদ স্যার ।

  107. Kabir says:

    আপনার ৪নং পয়েন্টি বাস্তবায়ন করা তো সহজ। এটা বাস্তবায়ন এর জন্য দরকার সরকারের রাজনৈতিক সদিচ্ছা। এটা বাস্তবায়ন করলে সরকারের কোন অর্থ লাগবেনা, এটা যে সরকার করবে, সেই সরকার আজীবন ৫লাখ শিক্ষক এর প্রায় ১ কোটি ভোট নিশ্চিত পাবে।

  108. Shahjahan says:

    সরকার কি আমাদের পাশের দেশ ভারত কে অনুসরণ করতে পারে না। আপনারা ও সরকার কার স্বার্থে মাধ্যমিক স্কুল ও কলেজ এর সকল আয় সরকারের কোষাগার এ নেওয়ার ব্যবস্থা করেন না।

  109. Shahjahan says:

    বিগত সরকারের দেওয়া ২৫% ঈদ বোনাস দিয়ে এখন ও আমাদের ঈদ করতে হয়েছে। কি লজ্জা এ জাতির জন্য। আপনারা গত প্রায় ৯ বছরে কি দিলেন?????????????????????

  110. Nargis says:

    মরতে হবে, is it right? সব শিক্ষক নেতাদের বলছি যাদের কারনে জাতীয়করণ হচ্ছে না,কাল হাশরের মাঠে আল্লাহ তায়ালারর কাঠ গড়ায় দাঁড়াতে হবে। দুনিয়াবি সামান্য টাকা পয়সার জন্য দালালি করলেন,মরনের পর কি হবে??? শিক্ষা সকল নর ও নারীর জন্য ফরজ,আপনাদের মধ্যে যাদের কারনে শিক্ষায় বৈষম্য সৃষ্টি হচ্ছে, তারা আজীবন জাহান্নাম এ থাকতে হবে!!!!!!!!!

  111. Jashim says:

    শিক্ষায় বৈষম্য এর কারনে আমাদের ছেলে- মেয়েরা সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে সমান শিক্ষা পাচ্ছে না। যদি সব মাধ্যমিক স্কুল ও কলেজ জাতীয়করণ হতো তা হলে শিক্ষার মান ঠিক থাকত।শিক্ষার জন্য উপজেলা সদর, জিলা বা রাজধানী তে ছুটতে হতো না।

আপনার মন্তব্য দিন