শিক্ষামন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে শিক্ষক নেতৃবৃন্দের নিষ্ফল বৈঠক - সমিতি সংবাদ - Dainikshiksha

শিক্ষামন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে শিক্ষক নেতৃবৃন্দের নিষ্ফল বৈঠক

নিজস্ব প্রতিবেদক |

জাতীয়করণের এক দফা দাবিতে আন্দোলনরত নেতৃবৃন্দ শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এবং শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলীর সঙ্গে বৈঠক করেছেন। কিন্তু বৈঠকে দাবির বিষয়ে কোনো আশ্বাস পাননি শিক্ষক নেতৃবৃন্দ। মঙ্গলবার (২৩শে জানুয়ারি) দুপুরে পরিবহন পুলে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠক শেষে লিয়াজোঁ ফোরামের নেতা জিএম শাওন দৈনিকশিক্ষা ডটকমকে জানান, শিক্ষামন্ত্রী আমাদের দাবির বিষয়ে সুনির্দিষ্ট আশ্বাস দেননি। তিনি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আমাদের দাবি নিয়ে কথা বলবেন। আন্দোলনরত শিক্ষকদের ঘরে ফিরে যাওয়ার অনুরোধ করেছেন। আমরা শিক্ষামন্ত্রীকে জানিয়েছি, দাবির বিষয়ে সুনির্দিষ্ট আশ্বাস না পাওয়া পর্যন্ত আমরণ অনশন কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে। এর আগে গতকাল সোমবার (২২শে জানুয়ারি) প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন শিক্ষক নেতৃবৃন্দ। ওই সাক্ষাতেও ফলপ্রসূ আলোচনা হয়নি।

বেসরকারি শিক্ষা জাতীয়করণের দাবিতে পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী গত ১০ জানুয়ারি থেকে আন্দোলনে নামেন এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীরা। ১৫ জানুয়ারি থেকে প্রেস ক্লাবের সামনের রাস্তার পাশে পাটি বিছিয়ে গায়ে কম্বল জড়িয়ে শুয়ে বসে আমরণ অনশন পালন করে যাচ্ছেন তারা। এসব শিক্ষকদের ছয়টি সংগঠন জোট ‘বেসরকারি শিক্ষা জাতীয়করণ লিয়াঁজো ফোরাম’ এর ব্যানারে এ আন্দোলনের পরিচালিত হচ্ছে।

আন্দোলনকারী শিক্ষকরা বলেন, শিক্ষা ব্যবস্থায় বৈষম্যদূরীকরণে এমপিওভুক্ত স্কুল-কলেজ ও মাদ্রাসার শিক্ষকরা জাতীয়করণের দাবিতে আন্দোলনে নেমেছেন। সারা দেশের প্রায় পাঁচ লাখ শিক্ষক-কর্মচারী এ আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন। তারা বলেন, দেশের ৯৭ শতাংশ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বেসরকারিভাবে পরিচালিত হচ্ছে। তারা সেসব প্রতিষ্ঠান চালালেও নামে মাত্র বেতন-ভাতা পাচ্ছেন। তা দিয়েই মানবেতর জীবনযাপন করতে হচ্ছে। অথচ ৩ শতাংশ সরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা উচ্চমানের বেতন-ভাতা পাচ্ছেন। এ কারণে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে জাতীয়করণ করতে হবে। এ দাবিতে আমরা রাজপথে নেমেছি।

প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় এমসিকিউ বাতিল - dainik shiksha প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় এমসিকিউ বাতিল এইচএসসির টেস্ট পরীক্ষার ফল ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকাশের নির্দেশ - dainik shiksha এইচএসসির টেস্ট পরীক্ষার ফল ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকাশের নির্দেশ স্ত্রীর মৃত্যুতে আজীবন পেনশন পাবেন স্বামী - dainik shiksha স্ত্রীর মৃত্যুতে আজীবন পেনশন পাবেন স্বামী ২০ হাজার টাকায় শিক্ষক নিবন্ধন সনদ বিক্রি করতেন তারা - dainik shiksha ২০ হাজার টাকায় শিক্ষক নিবন্ধন সনদ বিক্রি করতেন তারা অকৃতকার্য ছাত্রীকে ফের পরীক্ষায় বসতে দেয়ার নির্দেশ - dainik shiksha অকৃতকার্য ছাত্রীকে ফের পরীক্ষায় বসতে দেয়ার নির্দেশ আইডিয়াল স্কুলে ভর্তি ফরম বিতরণ শুরু - dainik shiksha আইডিয়াল স্কুলে ভর্তি ফরম বিতরণ শুরু নির্বাচনের সঙ্গে পেছাল সরকারি স্কুলের ভর্তি - dainik shiksha নির্বাচনের সঙ্গে পেছাল সরকারি স্কুলের ভর্তি দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website