শিক্ষার্থীকে ইস্ত্রির ছ্যাঁকা : দুই মাদরাসা শিক্ষক আটক - মাদরাসা - Dainikshiksha

শিক্ষার্থীকে ইস্ত্রির ছ্যাঁকা : দুই মাদরাসা শিক্ষক আটক

যশোর প্রতিনিধি |

‘তর্ক’ করার শাস্তি হিসেবে দুই শিশু শিক্ষার্থীর হাতে গরম ইস্ত্রির (ইলেকট্রিক আয়রন) ছ্যাঁকা যশোরের উপশহর মার্কাস মসজিদ মাদরাসার দুই শিক্ষক। ছ্যাঁকা দেওয়ার পর তাদের চিকিৎসার ব্যবস্থা না করে উল্টো দুই শিশুকে একটি ঘরে বন্দি করে রাখা হয়। পরে অভিভাবকদের অভিযোগের ভিত্তিতে এ ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ত দুই মাদরাসা শিক্ষককে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। বুধবার (১২ সেপ্টেম্বর) এই শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বুধবার (১২ সেপ্টেম্বর) যশোরের উপশহর মার্কাস মসজিদ মাদরাসায় শিশুদের নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় তিন জনের নামে মামলা হয়েছে এবং দুই জনকে আটক করা হয়েছে। আটক দু’জন হলেন- মুফতি মাজেদুর রহমান (৩৮) এবং হাফেজ আজাহারুল ইসলাম (৩৭)। এছাড়া অপর পলাতক আসামি হলেন শিক্ষক তরিকুল ইসলাম (৩৮)।

এ প্রসঙ্গে যশোর শহরের ঘোপ সেন্ট্রাল রোডের রবিউল ইসলামের অভিযোগ, তার ভাগ্নে সাকিব আল হাসান সিয়াম (৯) মার্কাস মসজিদ মাদরাসায় লেখাপড়া করে। বুধবার বিকাল ৪টার দিকে মাদরাসার মক্তব বিভাগের শিক্ষক তরিকুল ইসলাম পড়াচ্ছিলেন। সে সময় আরও ছাত্রের মধ্যে শিশু শিক্ষার্থী মাগুরার সদর উপজেলার লস্করপুর গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে হুজাইফা হামজাও (৭) ছিল। পড়ার সময় সিয়াম ও হামজা বাকবিতণ্ডা করে। সে সময় শিক্ষক তরিকুল ক্ষিপ্ত হয়ে তাদের পিটিয়েছেন। এরপর অপর দুই শিক্ষক একটি ইলেকট্রিক আয়রন গরম করে এনে তরিকুল ইসলামের হাতে দেন। তিনি দুই শিশু শিক্ষার্থীর ডান হাতের তালুতে ছ্যাঁকা দেন। চিৎকার করলে তাদের রুমে নিয়ে গিয়ে আটকে রাখা হয়।

আশেপাশের মানুষের কাছে জানতে পেরে মাদরাসায় উপস্থিত হয়ে দুই শিশুকে আহত অবস্থায় দেখতে পান দাবি করে রবিউল ইসলাম আরও জানান, বিষয়টি শিক্ষক তরিকুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি উল্টো হুমকি দিয়ে তাড়িয়ে দেন। পরে পুলিশ গিয়ে শিক্ষক মাজেদুর রহমান এবং হাফেজ আজাহারুল ইসলামকে আটক করে থানায় নিয়ে আসেন। দু’জনই হেফজ বিভাগের শিক্ষক। তবে মূল অভিযুক্ত শিক্ষক তরিকুল ইসলাম পালিয়ে যান।

আটক দুই শিক্ষক মাজেদুর রহমান এবং আজাহারুল ইসলাম জানান, এই ঘটনার সঙ্গে তারা জড়িত না। মূল আসামি তরিকুল ইসলাম। তিনি পালিয়ে গেছেন। তাদের হয়রানি করা হচ্ছে বলেও দাবি করেছেন আটক দুই শিক্ষক।

এই বিষয়ে কোতোয়ালি থানার এসআই এইচএম মাহমুদ বলেন, ‘শিশুদের অভিভাবকের অভিযোগের ভিত্তিতে দুই শিক্ষককে আটক করা হয়েছে। তবে মূল আসামি পলাতক রয়েছে।

‘শিক্ষকদের অবসর-কল্যাণ সুবিধার তহবিল বন্ধ করে পেনশন চালু করতে হবে’ - dainik shiksha ‘শিক্ষকদের অবসর-কল্যাণ সুবিধার তহবিল বন্ধ করে পেনশন চালু করতে হবে’ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের প্রথম ধাপের পরীক্ষা ১০ মে - dainik shiksha প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের প্রথম ধাপের পরীক্ষা ১০ মে এসএসসির ফল ৫ বা ৬ মে - dainik shiksha এসএসসির ফল ৫ বা ৬ মে চাঁদা বৃদ্ধির পরও ২১৬ কোটি টাকা বার্ষিক ঘাটতি : শরীফ সাদী - dainik shiksha চাঁদা বৃদ্ধির পরও ২১৬ কোটি টাকা বার্ষিক ঘাটতি : শরীফ সাদী একাদশে ভর্তির নীতিমালা জারি, আবেদন শুরু ১২ মে - dainik shiksha একাদশে ভর্তির নীতিমালা জারি, আবেদন শুরু ১২ মে সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি - dainik shiksha সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website