শিক্ষার্থীদের জন্য শিক্ষকের চমক - বিবিধ - Dainikshiksha

শিক্ষার্থীদের জন্য শিক্ষকের চমক

দৈনিকশিক্ষা ডেস্ক |

বড়দিনের ছুটি শেষে অন্যদিনের মতো স্কুলে এসেছিল নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা। কিন্তু ক্লাসে ঢুকেই তাদের চোখ কপালে। এ কি! প্রত্যেকের নির্ধারিত আসনে একেক জনের চেহারার স্কেচ। আর এগুলো এঁকেছে তাদেরই শিক্ষক রোজলিন বারকোমা। শিক্ষার্থীদের চমকে দিতে তিনি গত ডিসেম্বরে মাস জুড়ে গোপনে প্রতিটি শিক্ষার্থীর ছবি আঁকেন। মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২৭জন।

ফিলিপাইনে হলি রেডিমার স্কুল অব কাবুয়ায়োতে ৩৫ বছরের বারকোমা ষষ্ঠ ও নবম শ্রেণিতে ইংরেজি পড়ান।

বারকোমা বিবিসিকে বলেন, শিক্ষার্থীরা ক্লাসে ঢুকে নিজেদের ডেস্কে নিজেদের পোর্ট্রেট দেখে খুব অভিভূত হয়ে পড়ে। তারা প্রথমে বাকরুদ্ধ হয়ে পড়ে। এরপর তারা আমাকে ধন্যবাদ জানায়।

বারকোমা বলেন, ‘ছোট্টবেলা থেকেই আমার ছবি আঁকার শখ। আমার ছোট্টবেলার স্বপ্ন ছিল কমিক চরিত্র আঁকা। কারণ আমার মনে হয়েছে এর মধ্য দিয়ে মানুষকে আনন্দ দেওয়া যাবে।’ এখন তিনি কমিক চরিত্রের আঁকিয়ে না হলেও শিক্ষকতা করতে গিয়েও শিক্ষার্থীদের খুব মজা করেই পড়ান।

গত সোমবার বারকোমা তাঁর শিক্ষার্থীদের জন্য আঁকা স্কেচগুলোর ছবি ফেসবুকে শেয়ার করেন। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই ফিলিপাইনের নিউজ ওয়েবসাইট রাপলার এই ছবির পেছনের গল্পটি নিয়ে খবর প্রচার করে। রাপলারের ফেসবুক পেজে পোস্ট হওয়া এই খবর ১০ হাজারের বেশিবার শেয়ার হয়েছে।

এই প্রথম বারকোমা পুরো ক্লাসের শিক্ষার্থীদের ছবি আঁকলেন। তিনি বলেন, তিনি শিক্ষার্থীদের বিশেষ, অনন্য ও ব্যক্তিগতভাবে কিছু দিতে চেয়েছেন; যা তাদের পড়াশোনায় অনুপ্রেরণা দেবে। ‘আমি যখন তাদের মুখে হাসি দেখি, আমার পরিশ্রম সার্থক।’

১৫ বছরের ছাত্র মিচেল রেই আরগো বলেন, ‘এটি অনন্য এক উপহার। এ জন্য না যে বারকোমা আমাদের জন্য নিজে এটি বানিয়েছেন, বরং তিনি কতটা কষ্ট করে আমাদের জন্য এটি করেছেন তা স্মরণীয় হয়ে থাকবে।’ বারকোমার দুটি দিক রয়েছে উল্লেখ করে মিচেল বলে, ক্লাসে তিনি খুবই কড়া আবার আরেকটি দিক হলো তিনি খুব মজার মানুষ। কারণ শিক্ষার্থীদের পড়াশোনায় উৎসাহী করে তুলতে তিনি খুবই মজা করে পড়ান।

অভিভূত শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বারকোমা অনেক অনেক শুভ বার্তা পেয়েছেন। শুধু শিক্ষার্থীরাই নয়, শিক্ষক ও বিভিন্ন চিত্রশিল্পীর কাছ থেকে তিনি অনেক অভিনন্দন বার্তা পেয়েছেন। বারকোমা বলেন, ‘আমি শুধু আমার শিক্ষার্থীদের আনন্দ দিতে চেয়েছিলাম, কিন্তু এসব পোর্ট্রেট দেখে এখন অনেকেই অনুপ্রাণিত হচ্ছেন।’

শিক্ষার্থীদের মানবিক গুণাবলী সম্পর্কেও শিক্ষা দিতে হবে: শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha শিক্ষার্থীদের মানবিক গুণাবলী সম্পর্কেও শিক্ষা দিতে হবে: শিক্ষামন্ত্রী বেশি চাপ নয়, শিক্ষার্থীদের নিজের পথ বেছে নিতে দিন: শিক্ষা উপমন্ত্রী - dainik shiksha বেশি চাপ নয়, শিক্ষার্থীদের নিজের পথ বেছে নিতে দিন: শিক্ষা উপমন্ত্রী নীতিমালা মেনে ভর্তি ফি আদায়ের নির্দেশ - dainik shiksha নীতিমালা মেনে ভর্তি ফি আদায়ের নির্দেশ এমপিও কমিটির সভা ২০ জানুয়ারি - dainik shiksha এমপিও কমিটির সভা ২০ জানুয়ারি ২৬ জানুয়ারি স্টুডেন্টস কেবিনেট নির্বাচন - dainik shiksha ২৬ জানুয়ারি স্টুডেন্টস কেবিনেট নির্বাচন ৩৫ উত্তীর্ণ ইনডেক্সধারী কর্মচারীরা শিক্ষক পদে নিয়োগ পাবেন না - dainik shiksha ৩৫ উত্তীর্ণ ইনডেক্সধারী কর্মচারীরা শিক্ষক পদে নিয়োগ পাবেন না উপবৃত্তি : ডাচ-বাংলার অদক্ষতায় গাইবান্ধায় শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি - dainik shiksha উপবৃত্তি : ডাচ-বাংলার অদক্ষতায় গাইবান্ধায় শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ১৫ মার্চ শুরু - dainik shiksha প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ১৫ মার্চ শুরু ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া শিক্ষার খবর সবার আগে পেতে ‘দৈনিক শিক্ষা ব্রেকিং নিউজ’ ফেসবুক পেজে লাইক দিন - dainik shiksha শিক্ষার খবর সবার আগে পেতে ‘দৈনিক শিক্ষা ব্রেকিং নিউজ’ ফেসবুক পেজে লাইক দিন please click here to view dainikshiksha website