শিক্ষা কর্মকর্তার গাফিলতিতে ১৭ স্কুল মেরামতের সাড়ে ৩৫ লাখ টাকা ফেরত - স্কুল - দৈনিকশিক্ষা

শিক্ষা কর্মকর্তার গাফিলতিতে ১৭ স্কুল মেরামতের সাড়ে ৩৫ লাখ টাকা ফেরত

রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি |

কুড়িগ্রামের রৌমারীতে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার গাফিলতির কারণে ১৭টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ক্ষুদ্র মেরামত সংস্কার উন্নয়ন বরাদ্দের ৩৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা ফেরত যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকরা বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) বিকাল ৪টায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, ২০১৯-২০ অর্থ বছরের চতুর্থ প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচি (পিইডিপি-৪) এর আওতায় ১৭টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের স্কুল ক্ষুদ্র-সংস্কার বাবদ ৩৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা বরাদ্দের চিঠি গত ১৬ জুন অফিসে আসে। বরাদ্দ হওয়ার পর ১৭টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের বিদ্যালয় সংস্কার ও মেরামত করার নির্দেশ দেয় উপজেলা শিক্ষা অফিস। নির্দেশের পর বরাদ্দকৃত তালিকাভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষকরা অগ্রিম বিল ভাউচার দাখিল করেন। কিন্তু গত (৩০ জুন) উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার দায়িত্বের অবহেলার কারণে উপজেলার ১৭টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ক্ষুদ্র মেরামতের ৩৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা ফেরত যায়।

বরাদ্দ থেকে বঞ্চিত হওয়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হলো, তেকানিগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বোয়ালমারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, দাঁতভাঙ্গা মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, রৌমারী আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কাউনিয়ারচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ইছাকুড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ঝগড়ারচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বড়াইকান্দি মোল্লাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাউশমারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চরকাজাইকাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাঘমারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পূর্ব কাউয়ারচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চরনামাজের চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ঘুঘুমারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, দক্ষিণ বাউশমারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, নতুন শৌলমারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও চেংটা পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ।

এ ব্যাপারে তেকানিগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহজাহান বাবুল অভিযোগ করে দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, বিদ্যালয়ের সংস্কার বাবদ অগ্রিম বিল ভাউচার দাখিল করলেও উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার সাথে সমন্বয়ের অভাবের কারণে স্কুলগুলো অপূরণীয় ক্ষতি সাধিত হলো।

অপরদিকে বাঘমারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রফিক দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, বরাদ্দের টাকা ফেরত যাওয়ায় শিক্ষকরা প্রতিষ্ঠানের মেরামতের কাজ নিয়ে বিপাকে পড়েছেন।

এছাড়াও বোয়ালমারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আহসান হাবিব সাদা দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শিক্ষকদের কাছে ঘুষ দাবি করেন। প্রধান শিক্ষকরা ঘুষ দিতে রাজি না হওয়ায় দায়িত্বে অবহেলা করেন। উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার সাথে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা যথাসময়ে সমন্বয় না করার কারণে বরাদ্দের টাকা ফেরত যায়।

তবে, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. নজরুল ইসলাম ঘুষ দাবির বিষয়টি অস্বীকার করে দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, শিক্ষকরা গত ১৬ জুন বিল ভাউচার আমার অফিসে দাখিল করেন। আমি বিল ভাউচারগুলো গত ১৭জুন হিসাবরক্ষণ অফিসে পাঠাই। গত ২৫ জুন তারিখে এজি অফিসে বিল পাশের কাগজপত্র দেখেছি, আমাদের শিক্ষা অফিসের বরাদ্দ খাতে টাকা না থাকায় বরাদ্দের টাকা উত্তোলন সম্ভব হয়নি।

এ ব্যাপারে উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আরফানুল আলম দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, বিধি মোতাবেক বিল ভাউচার জমা না দেয়ায় এবং উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার সাথে বারবার যোগাযোগ করলেও তিনি সমন্বয় না করায় আমার পক্ষে বিলটি পাস করা সম্ভব হয়নি। কারণ বিলটিতে কিছু ত্রুটি রয়েছে।

এ প্রসঙ্গে রৌমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আল ইমরান দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, বিষয়টির উপর সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের প্রধানরা লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জেএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে বিভ্রান্তি না ছড়ানোর আহ্বান শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের - dainik shiksha জেএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে বিভ্রান্তি না ছড়ানোর আহ্বান শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের স্কুল খুললে সীমিত পরিসরে পিইসি, অটোপাস নয় : গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী - dainik shiksha স্কুল খুললে সীমিত পরিসরে পিইসি, অটোপাস নয় : গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাতীয়করণ: ফের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত সেলিম ভুইঁয়া, কর্মসূচির হুমকি - dainik shiksha জাতীয়করণ: ফের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত সেলিম ভুইঁয়া, কর্মসূচির হুমকি একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন করবেন যেভাবে - dainik shiksha একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন করবেন যেভাবে please click here to view dainikshiksha website