শ্রান্তি বিনোদন ভাতার নামে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ ৯ শিক্ষকের বিরুদ্ধে - স্কুল - দৈনিকশিক্ষা

শ্রান্তি বিনোদন ভাতার নামে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ ৯ শিক্ষকের বিরুদ্ধে

কাঠালিয়া (ঝালকাঠি) প্রতিনিধি |

ঝালকাঠির কাঠালিয়া উপজেলার ৯ জন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শ্রান্তি বিনোদন ভাতার নামে সরকারি ৪ লাখ টাকার বেশি আত্মসাৎ করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ সংক্রান্ত নথিপত্র গায়েব করে ফেলা হয়েছে। গত বছর আগে অর্থ আত্মসাতের ঘটনাটি ঘটলেও সম্প্রতি তা প্রশাসনের নজরে আসে। বিষয়টি আমলে নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে ঝালকাঠি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস।

যদিও একটি কারণ দর্শানো নোটিশ দিয়েই অদৃশ্য কারণে থমকে গেছে তদন্ত কার্যক্রম। ভাতা উত্তোলণের নথিপত্র উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস ও হিসাবরক্ষণ অফিসে সংরক্ষিত থাকার কথা থাকলেও রহস্যজনক কারণে কোথাও কোনো নথিপত্র নেই। তবে, অভিযুক্ত শিক্ষকদের ব্যাংক হিসাবের লেনদেনের স্টেটমেন্টের মাধ্যমে এ টাকা আত্মসাতের প্রাথমিক প্রমাণ মিলেছে।

জানা যায়, ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে ১৮নং উত্তর আউড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মেহেদি হাসান, ৫৯নং বাঁশবাড়ি কৈখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মো. মিজানুর রহমান, ৩০নং মধ্য আওড়া বুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক জেসমিন আক্তার মুকুল, ১২নং উত্তর আউড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক খাদিজা আক্তার, আউরা-জয়খালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক অজিত কুমার নাথ, ১২৮নং চেচরি কমিউনিটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক সেলিনা খানম, ১০নং পূর্ব মহিষারকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক অনিল কৃষ্ণ দাস, ১১৭নং ছোনাউটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মুকুল আক্তার ও ১১নং বাশবুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শাহারুম মিয়া শ্রান্তি বিনোদন ভাতার নামে অবৈধভাবে সরকারি ৪ লাখ ২৩ হাজার ৬৭০ টাকা আত্মসাৎ করেছেন।

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা নিয়মানুযায়ী ৩ বছরে একবার কমপক্ষে ১৫দিন ছুটি ভোগ করার সনয়ে মূল বেতনের সমপরিমাণ টাকা শ্রান্তি বিনোদন ভাতা হিসেবে তুলতে পারবেন। অথচ এ ৯ জন শিক্ষক ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দের আগস্ট ও সেপ্টেম্বর মাসে কেউ ২ বার, কেউ ৩ বার করে শ্রান্তি বিনোদন ভাতা নিয়েছেন। পরবর্তী সময়ে শিক্ষা অফিস ও হিসাব রক্ষণ অফিস থেকে এ সংক্রান্ত সকল কাগজপত্র অভিযুক্ত শিক্ষকরা গায়েব করে ফেলেছেন বলেও অভিযোগ উঠেছে। পরে তাদের ব্যাংক হিসাব বিবরণীর মাধ্যমে এ টাকা আত্মসাতের প্রাথমিক প্রমাণ মিলেছে। 

জানা গেছে, ১১নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শাহারুম মিয়ার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে তিন দফায় প্রায় ৯০ হাজার টাকা শ্রান্তি বিনোদন ভাতা বাবদ জমা হয়েছে। ১১৭নং ছোনাউটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মুকুল আক্তারের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে তিন দফায় ৬০ হাজার টাকার বেশি শ্রান্তি বিনোদন ভাতা বাবদ জমা হয়েছে। ১০নং পূর্ব মহিষারকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক অনিল কৃষ্ণ দাসের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে তিন দফায় ৫০ হাজার টাকা শ্রান্তি বিনোদন ভাতা বাবদ অতিরিক্ত জমা হয়েছে। আর আউরা-জয়খালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক অজিত কুমার নাথের এবং ১২৮নং চেচরি কমিউনিটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক সেলিনা খানমের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে শ্রান্তি বিনোদন ভাতা বাবদ কয়েক দফায় অতিরিক্ত ৫০ হাজার টাকা করে ১ লাখ টাকার বেশি ঢুকেছে। আর ১২নং উত্তর আউড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক খাদিজা আক্তারের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে দুই দফায় ঢুকেছে প্রায় ৪৩ হাজার টাকা। আর ১৮নং উত্তর আউড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মেহেদি হাসান ও ৫৯নং বাঁশবাড়ি কৈখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মো. মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে শান্তি বিনোদন ভাতা বাবদ মোট ৩৬ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে।

উপজেলা শিক্ষা অফিস সূত্র দৈনিক শিক্ষাডটকমকে জানায়, টাকা গরমিলের বিষয়টি নজরে আসলে গত ১৬ জুন উপজেলা শিক্ষা অফিস থেকে অভিযুক্ত শিক্ষকদের দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়। এরপর তদন্তের আর কোনো অগ্রগতি নেই।

এ বিষয় কাঠালিয়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. মোজাম্মেল জানান, অভিযুক্ত শিক্ষকরা শোকজ নোটিশের সন্তোষজনক জবাব দিতে পারেননি। তাই অল্প সময়ের মধ্যে আত্মসাৎ করা সরকারি টাকা কোষাগারে জমা দেয়ার জন্য নোটিশ দেয়া হবে এবং পরবর্তী সময়ে শাস্তি মূলক ব্যবস্থা নেয়ার জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে সুপারিশ করা হবে।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. আমিনুল ইসলাম দৈনিক শিক্ষাডটকমকে জানান, জেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. মোস্তফা কামালকে তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। করোনার কারণে তদন্তে দেরি হচ্ছে। তবে তদন্ত রিপোর্ট পেলে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া শুরু করা হবে।

Admission going on at Navy Anchorage School and College Chattogram - dainik shiksha Admission going on at Navy Anchorage School and College Chattogram একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন করবেন যেভাবে - dainik shiksha একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন করবেন যেভাবে please click here to view dainikshiksha website