please click here to view dainikshiksha website

‘সবুজ ইশকুল গড়ি’ অভিযান উদ্বোধন

নিজস্ব প্রতিবেদক | আগস্ট ১১, ২০১৭ - ৮:৫০ পূর্বাহ্ণ
dainikshiksha print

স্বামীবাগের মিতালী বিদ্যাপীঠ উচ্চবিদ্যালয়ে ‘সবুজ ইশকুল গড়ি’ অভিযানের উদ্বোধন করা হয়েছে। ‘সবুজ ইশকুল গড়ি, দেশটাকে পরিষ্কার করি’ স্লোগানে অভিযানের আয়োজন করে সামাজিক সংগঠন ‘পরিবর্তন চাই’।

এই অভিযানের অংশ হিসেবে মিতালী বিদ্যাপীঠসহ রাজধানীর তিনটি বিদ্যালয় ও সারা দেশে আরও ৯৭টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সুন্দর ও টেকসইভাবে পরিচ্ছন্ন করা হবে। তবে ‘সবুজ ইশকুল গড়ি’ অভিযানের অংশ হিসেবে মিতালী বিদ্যাপীঠ উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ‘আমার স্বপ্নে আমার সবুজ ইশকুল’ নামক একটি চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ‘কয়েক’ দল এবং ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের নিয়ে ‘খ’ দলে বিভক্ত হয়ে প্রতিযোগীরা অংশ নেয়। এতে ‘ক’ এবং ‘খ’ দলে প্রথম স্থান অধিকার করে যথাক্রমে সৈয়দ মোহাম্মদ তামজিদ এবং সৈয়দ এহসানুর হক। অনুষ্ঠানে পুরস্কার হিসেবে বিজয়ীদের হাতে বই এবং গাছ তুলে দেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন।

পরিবর্তন চাই এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, সবুজায়নের এ অভিযানের অংশ হিসেবে প্রতিটি বিদ্যালয়ে পর্যাপ্তসংখ্যক তিন রঙের ডাস্টবিন দেওয়া হবে। ময়লার ধরন অনুযায়ী ভিন্ন ভিন্ন ডাস্টবিনের ব্যবহার শিক্ষার্থীদের শেখানো হবে। এর পাশাপাশি বিদ্যালয়ের আঙিনায় একটি করে কম্পোস্ট প্ল্যান্ট স্থাপন করা হবে। যেখানে শিক্ষার্থীরা পচনশীল ময়লা দিয়ে কম্পোস্ট সার তৈরি করবে। পরে এই সার দিয়ে বিদ্যালয় আঙিনায় ফুলের বাগান করা হবে। এ ছাড়া বিদ্যালয়ের মাঠে ঘাস লাগানো, পরিচর্যা ও দেয়াল রং করা হবে। বছরব্যাপী অভিযান শেষে সফল বিদ্যালয়গুলোকে সবুজ ইশকুল সার্টিফিকেট দেওয়া হবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, ‘আমরা ঢাকা শহরের পরিবর্তন চাই। এই চাওয়াকে পাওয়াতে পরিণত করতে হবে। এ জন্য নগরের প্রত্যেককে একযোগে এগিয়ে আসতে হবে। নিজ নিজ বাড়ির আঙিনা ও ছাদ এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বেশি করে গাছ লাগাতে হবে। তা করা হলে বাড়ির মালিকদের ১০ শতাংশ হোল্ডিং ট্যাক্স মওকুফ করা হবে। অর্থাৎ পরোক্ষভাবে গাছ লাগানোর টাকা দেবে সিটি করপোরেশন।’

ডিএসসিসির মেয়র বলেন, দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এলাকা সবুজায়ন ও শিশু-কিশোরদের আনন্দ-বিনোদনের জন্য ‘জল সবুজে ঢাকা’ শীর্ষক এক প্রকল্পের মাধ্যমে ১২টি মাঠ ও ১৯টি পার্ক আধুনিকায়নে সংস্কারকাজ চলছে। এতে বয়স্ক ব্যক্তিদের সকাল-বিকেল হাঁটা বা বেড়ানোর ব্যবস্থাও করা হচ্ছে। আগামী বছরের জুনে এই সংস্কারকাজ শেষ হবে। তিনি বলেন, নগরের প্রতিটি রাস্তার সড়ক বিভাজকে গাছ লাগানো হয়েছে।

অনুষ্ঠানে মিতালী বিদ্যাপীঠের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান ফৌজিয়া মতিন, অ্যাকশনএইড বাংলাদেশের কর্মকর্তা ফারাহ কবীর, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আবরার আনোয়ার, পরিবর্তন চাইয়ের চেয়ারম্যান ফিদা হক বক্তব্য দেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন:


আপনার মন্তব্য দিন