সমাবেশ: প্রেসক্লাবের সামনে হাজার হাজার শিক্ষক - সমিতি সংবাদ - Dainikshiksha

সমাবেশ: প্রেসক্লাবের সামনে হাজার হাজার শিক্ষক

শফিকুল ইসলাম ও মুরাদ মজুমদার |

জাতীয়করণসহ ১১ দফা দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনের রাস্তার দুইধারে জড়ো হয়েছেন হাজার হাজার র্শিক্ষক-কর্মচারী।  কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারের পূর্বঘোষিত সমাবেশ না করার অনুমতি না পাওয়ায় প্রেসক্লাবের সামনের দুইধারের রাস্তায় অবস্থান নিয়েছেন।  সকাল সাড়ে নয়টায় সময় কয়েক হাজার শিক্ষক-কর্মচারীকে রাস্তার ওপর বসে ও দাড়িয়ে থাকতে দেয়া যায়। কেউ কেউ ব্যানার নিয়ে মিছিল করছেন। প্রেসক্লাবের সামনে শিক্ষক নেতৃবৃন্দ বক্তৃতা করেন। একটি মাত্র মাইক ব্যবহার করায় নেতৃবৃন্দের কথা শুনতে পাননি অধিকাংশ শিক্ষকই।

ঢাকার বাইরে থেকে শত শত বাস বোঝাই করে শিক্ষকরা এসেছেন। সকাল ১১টা থেকে শিক্ষকদের বহনকারী বাসগাড়ীগুলো ফিরে যেতে দেখা যায়। এগারোটার কিছু সময় পর সমাবেশ এক ঘন্টার জন্য বিরতি দেয়া হয়। পরে কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলে শিক্ষকদের জানানো হয়।

আওয়ামী লীগ ও বামঘেঁষা হিসেবে পরিচিত শিক্ষক-কর্মচারিদের প্লাটফর্ম শিক্ষক-কর্মচারী সংগ্রাম কমিটির ডাকে আজকের সমাবেশ হচ্ছে। কমিটির একজন নেতা দৈনিকশিক্ষাকে জানান, গত ১০ মার্চ শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে আমাদের বৈঠক হয়।

ওই বৈঠকে তিনি আমাদের মহাসমাবেশ স্থগিত করার অনুরোধ জানিয়ে বলেন, আমি তো জানতাম না, আজই শুনলাম আপনাদের বিষয়টি। জবাবে মন্ত্রীকে আমরা বললাম, আমরা জেলা ও উপজেলা থেকে স্মারকলিপি দিলাম, আপনি একটাও পাননি? মন্ত্রী বললেন, তিনি সেগুলো দেখেননি।


শিক্ষক-কর্মচারী সংগ্রাম কমিটির সমন্বয়কারী অধ্যক্ষ আসাদুল হক মঙ্গলবার বিকেলে দৈনিকশিক্ষাকে জানান, বুধবারে (১৪ মার্চ) মহাসমাবেশে অংশ নিতে সারাদেশ থেকে হাজার হাজার শিক্ষক ঢাকায় আসছেন। দেশের ইতিহাসে এটা সর্ববৃহৎ শিক্ষক সমাবেশ হবে। আমাদের পেশাজীবী সংগঠন। আমরা কখনো দলীয় দৃষ্টিকোণ থেকে আন্দোলন করি না । নির্দলীয় ও নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলেনর অংশ হিসেবে এ সমাবেশ হবে।

১১ দফা দাবিসমূহ :

১। শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণ করতে হবে।

২। সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীদের ন্যায় বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীদের ৫% বার্ষিক প্রবৃদ্ধি, পূর্ণাঙ্গ উৎসব ভাতা, বাংলা নববর্ষ ভাতা, বাড়ী ভাড়া ও চিকিৎসা ভাতা প্রদান করতে হবে।

৩। অনুপাত প্রথা বিলুপ্ত করে সহকারি অধ্যাপক, সহযোগী অধ্যাপক ও অধ্যাপক পদে পদোন্নতি দিতে হবে।

৪। বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধান ও সহকারি প্রধান শিক্ষকের বেতন স্কেল সরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধান ও সহকারি প্রধান শিক্ষকের অনুরূপ প্রদান করতে হবে। শিক্ষক-কমূচারীদের পূর্বের ন্যায় টাইম স্কেল দিতে হবে।

৫। বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী অবসর সুবিধা বোর্ড ও কল্যাণ ট্রাস্টের মাধ্যমে বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের আর্থিক সুবিধা প্রদানের পরিবর্তে অবিলম্বে পূর্ণাঙ্গ পেনশন চালু করতে হবে।

৬। নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং অনার্স ও মাস্টার্স কোর্সে পাঠদানকারী শিক্ষকসহ বিধিমোতাবেক নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের এমপিওভুক্ত করতে হবে।

৭। ইউনেস্কোর সুপারিশ অনুযায়ী শিক্ষাখাতে জিডিপি’র ৬% এবং জাতীয় বাজেটের ২০% বরাদ্দ রাখতে হবে।

৮। বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জনবল কাঠামো যুগোপযোগীকরণ ও সরকারি প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীদের চাকরি বিধিমালা অবিলম্বে বাস্তবায়ন করতে হবে।

৯। শিক্ষা সংশ্লিষ্ট সকল দপ্তরে বেসরকারি শিক্ষকদের ৩৫% প্রেষণে নিয়োগ দিতে হবে। ১০। কারিগরি শিক্ষা উন্নয়নের লক্ষ্যে একটি কারিগরি ও ভোকেশনাল বিশ^বিদ্যালয় স্থাপন করতে হবে। ১১। জাতীয় শিক্ষানীতি ২০১০ বাস্তবায়ন ত্বরান্বিত করতে হবে।

এইচএসসির টেস্ট পরীক্ষার ফল ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকাশের নির্দেশ - dainik shiksha এইচএসসির টেস্ট পরীক্ষার ফল ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকাশের নির্দেশ ১ জুলাই থেকে পাঁচ শতাংশ ইনক্রিমেন্ট কার্যকরের আদেশ অর্থ মন্ত্রণালয়ের - dainik shiksha ১ জুলাই থেকে পাঁচ শতাংশ ইনক্রিমেন্ট কার্যকরের আদেশ অর্থ মন্ত্রণালয়ের বিজয় দিবসে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার নির্দেশ - dainik shiksha বিজয় দিবসে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার নির্দেশ স্ত্রীর মৃত্যুতে আজীবন পেনশন পাবেন স্বামী - dainik shiksha স্ত্রীর মৃত্যুতে আজীবন পেনশন পাবেন স্বামী বদলে যাচ্ছে বাংলা বর্ষপঞ্জি - dainik shiksha বদলে যাচ্ছে বাংলা বর্ষপঞ্জি ২০ হাজার টাকায় শিক্ষক নিবন্ধন সনদ বিক্রি করতেন তারা - dainik shiksha ২০ হাজার টাকায় শিক্ষক নিবন্ধন সনদ বিক্রি করতেন তারা অকৃতকার্য ছাত্রীকে ফের পরীক্ষায় বসতে দেয়ার নির্দেশ - dainik shiksha অকৃতকার্য ছাত্রীকে ফের পরীক্ষায় বসতে দেয়ার নির্দেশ আইডিয়াল স্কুলে ভর্তি ফরম বিতরণ শুরু - dainik shiksha আইডিয়াল স্কুলে ভর্তি ফরম বিতরণ শুরু নির্বাচনের সঙ্গে পেছাল সরকারি স্কুলের ভর্তি - dainik shiksha নির্বাচনের সঙ্গে পেছাল সরকারি স্কুলের ভর্তি শিক্ষকদের অন্ধকারে রেখে দেড় লাখ কোটি টাকার প্রকল্প! - dainik shiksha শিক্ষকদের অন্ধকারে রেখে দেড় লাখ কোটি টাকার প্রকল্প! দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website