সরকারিকরণ দাবিতে বিভিন্ন স্থানে প্রাথমিক শিক্ষকদের মানববন্ধন - স্কুল - Dainikshiksha

সরকারিকরণ দাবিতে বিভিন্ন স্থানে প্রাথমিক শিক্ষকদের মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক |

সরকারিকরণের দাবিতে  বাংলাদেশ বেসরকারি প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির ডাকে সোমবার (১০ সেপ্টেম্বর) দেশের বিভিন্ন স্থানে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন শিক্ষকরা। গত ৬ সেপ্টেম্বর জাতীয় প্রেস ক্লাবে সামনে শিক্ষকদের অবস্থান কর্মসূচি পুলিশের বাধায় পণ্ড হয়ে যাওয়ার প্রতিবাদে ৪ দিনের প্যাকেজ কর্মসূচি ঘোষণা করে শিক্ষক সমিতি।

 সমিতির সভাপতি মামুনুর রশিদ খোকন দৈনিকশিক্ষা ডটকমকে জানান, সরকারিকরণের দাবিতে আজ সোমবার জেলায় জেলায় মানববন্ধন  ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছি। আমাদের পূর্বঘোষিত বিভাগীয় পর্যায়ের মানববন্ধন কর্মসূচি  ১৫ সেপ্টেম্বরের পরিবর্তে ১৬ সেপ্টেম্বর  পালন করা হবে। আর ২২ সেপ্টেম্বর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন এবং ২৮ সেপ্টেম্বর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হবে।

গত ৬ সেপ্টেম্বর সকাল ১০টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে শিক্ষকরা অবস্থান নেয়ায় চেষ্টা করলে পুলিশ তাদের সরিয়ে দেয়। এসময় শিক্ষকরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করনে। সেখান থেকে ৫ শিক্ষককে আটক করে পুলিশ। আটককৃত শিক্ষকদের  বিকেল ৪টার দিকে আটক শিক্ষকদের  ছেড়ে দেয়া হয়।

বর্তমান সরকারের আমলে ২০১৩ খ্রিস্টাব্দের ৯ জানুয়ারি সারাদেশের ২৬ হাজার ১৯৩টি বেসরকারি রেজিস্টার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয়কে সরকারিকরণ করা হয়। তবে সে সময়ে বেসরকারি বিদ্যালয়ের সংখ্যা যথাযথভাবে পরিসংখ্যান করা হয়নি। ফলে সারাদেশের ৪ হাজার ১৫৯টি বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সরকারিকরণের সুযোগ থেকে বঞ্চিত হয়।

সরকারিকরণের দাবিতে তৃতীয় ধাপেও বাদ পড়া এই বিদ্যালয়গুলোর শিক্ষকরা গত ২১ জানুয়ারি জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে প্রথমে অবস্থান ধর্মঘট পালন করেন। পরে ২৬ জানুয়ারি থেকে আমরণ অনশন কর্মসূচিও শুরু করেছিলেন তারা। পরে তিনজন সচিবের আশ্বাসে ৭ ফেব্রুয়ারি অনশনের ১৮ দিন পর কর্মসূচি স্থগিত করে বাড়ি ফিরে যান। কিন্তু এখন পর্যন্ত সরকার বাদপড়া ৪ হাজার ১৫৯টি বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সরকারিকরণের দাবির বিষয়ে দৃশ্যমান কোনো পদক্ষেপ না নেয়ায় শিক্ষকদের মধ্যে হতাশা নেমে আসে।

গত ৮ জুলাই সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান প্রাথমিক পর্যায়ে নতুন করে আর কোনো বিদ্যালয় সরকারিকরণ করা হবে না বলে ইঙ্গিত দেন। মন্ত্রী বলেন, সারাদেশে ৬৫ হাজারের বেশি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এমন কোনো স্থান নেই যেখানে দুই কিলোমিটারের মধ্যে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় নেই। তাই নতুন করে আর কোনো প্রাথমিক বিদ্যালয় সরকারিকরণ করার পরিকল্পনা নেই সরকারের।

তিনি বলেন, সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় ২৬ হাজারের বেশি প্রাথমিক বিদ্যালয় সরকারিকরণ করা হয়েছে। তবে প্রক্রিয়াধীন ৩২টি প্রতিষ্ঠান সেপ্টেম্বরের মধ্যে সরকারিকরণ হবে। এগুলো প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ২৬ হাজারের মধ্যে রয়েছে।

সরকারিকরণের দাবিতে বিভিন্ন সময়ে বেসরকারি প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির অনশন এবং তাদের হিসাব মতে বাদপড়া চার হাজার ১৫৯টি প্রতিষ্ঠানের ভাগ্য সম্পর্কে জানতে চাইলে মন্ত্রী স্পষ্ট করে বলেন, ‘আর কোনও বিদ্যালয় সরকারিকরণ হবে না।’

জারির অপেক্ষায় অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ নিয়োগ যোগ্যতার সংশোধনী - dainik shiksha জারির অপেক্ষায় অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ নিয়োগ যোগ্যতার সংশোধনী প্রাথমিকে সায়েন্স ব্যাকগ্রাউন্ড প্রার্থীদের ২০ শতাংশ কোটা - dainik shiksha প্রাথমিকে সায়েন্স ব্যাকগ্রাউন্ড প্রার্থীদের ২০ শতাংশ কোটা ১৮২ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিও বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু - dainik shiksha ১৮২ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিও বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার অপেক্ষায় চাকরিতে প্রবেশের বয়স: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী - dainik shiksha প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার অপেক্ষায় চাকরিতে প্রবেশের বয়স: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী আরও ৯২ প্রতিষ্ঠানের তথ্য চেয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় - dainik shiksha আরও ৯২ প্রতিষ্ঠানের তথ্য চেয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় শিক্ষকতা ছেড়ে উপজেলা নির্বাচনে শিক্ষক - dainik shiksha শিক্ষকতা ছেড়ে উপজেলা নির্বাচনে শিক্ষক প্রতিষ্ঠান প্রধান ও সুপারিশপ্রাপ্তদের করণীয় - dainik shiksha প্রতিষ্ঠান প্রধান ও সুপারিশপ্রাপ্তদের করণীয় প্রাথমিকে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ১৫ মার্চ - dainik shiksha প্রাথমিকে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ১৫ মার্চ ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website