সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ৭৫ শতাংশ ডেঙ্গু রোগী - বিবিধ - Dainikshiksha

সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ৭৫ শতাংশ ডেঙ্গু রোগী

নিজস্ব প্রতিবেদক |

তিন দিন ধরেই অল্প অল্প করে কমছে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা। অন্যদিকে বেড়েছে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র নিয়ে বাড়ি ফেরার হার। বিষয়টিকে বিশেষজ্ঞরা দেখছেন দেশের ডেঙ্গু পরিস্থিতির উন্নতি হিসেবেই। যদিও আরও কয়েক দিন এমন উন্নতির পর চলতি মাসের শেষ দিকে আবার অবনতি ঘটার আশঙ্কাও করছে কেউ কেউ। তবে চলতি মাসের গত আট দিনেই জুলাই মাসের মোট ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যাকে ছাড়িয়ে গেছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কন্ট্রোল রুমের তথ্য অনুযায়ী, চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে গতকাল শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে সর্বমোট ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী ভর্তি হয়েছে ৩৬ হাজার ৬৬৮ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে ছাড়পত্র নিয়ে হাসপাতাল ছেড়েছে ২৭ হাজার ৮৭৬ জন। আগের দিন এ সংখ্যা ছিল ২৫ হাজার ৮৭২। অর্থাৎ ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতাল ছেড়েছে দুই হাজার চার জন রোগী।

এ ছাড়া গত বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে গতকাল সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে নতুন ভর্তি রোগীর সংখ্যা দুই হাজার দুই, যা আগের ২৪ ঘণ্টায় ছিল দুই হাজার ৩২৬। সরকারি হিসাবে এ পর্যন্ত ডেঙ্গুতে মৃত্যুর সংখ্যা আগের দিনের মতোই ২৯ জনে ছিল।

তবে বেসরকারি তথ্য অনুযায়ী, ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে গত বৃহস্পতিবার রাত থেকে গতকাল দুপর পর্যন্ত ঢাকা, বরিশাল, দিনাজপুর ও ফরিদপুরে শিশু, দুই শিক্ষার্থীসহ আরও সাতজনের মৃত্যু হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (রোগ নিয়ন্ত্রণ) অধ্যাপক ডা. সানিয়া তহমিনা বলেন, ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে নতুন ভর্তি রোগীর সংখ্যা আগের দিনের তুলনায় প্রায় ১৮ শতাংশ কমেছে। একই সময়কালে ছাড়পত্র নেয়া রোগীর হারও ১৪ শতাংশ বেড়েছে। অন্যদিকে এ পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া মোট রোগীর প্রায় ৭৫ শতাংশই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছে। বাকিরাও চিকিৎসায় ভালো হয়ে উঠছে। যদিও এর মধ্যেই ২৯ জনের দুঃখজনক মৃত্যু হয়েছে। আরও কিছুসংখ্যক মৃত্যুর ঘটনা পর্যবেক্ষণে আছে। তাই সেগুলোর বিষয়ে নিশ্চিত না হয়ে বলা যাবে না।

ওই বিশেষজ্ঞ বলেন, ‘এখন যেভাবে সর্বত্র ডেঙ্গুবিরোধী উদ্যোগ চলছে তা অব্যাহত রাখলে আশা করি পরিস্থিতির দ্রুত আরও উন্নতি ঘটবে। তার পরও ঝুঁকি কিন্তু থাকবেই। তাই আবার যে পরিস্থিতির অবনতি ঘটবে না সেটাও বলা যাচ্ছে না।’

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমারজেন্সি অপারেশন্স সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের দায়িত্বপ্রাপ্ত সহকারী পরিচালক ডা. আয়েশা আক্তার জানান, গতকাল সকালের পর বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি রোগী ছিল আট হাজার ৭৬৩ জন। এর মধ্যে ঢাকার ৪০টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি রোগী ছিল পাঁচ হাজার ৭৬ জন, ঢাকার বাইরের অন্যান্য হাসপাতালে তিন হাজার ৬৮৭ জন।

বর্ষায় উপকার ও ঝুঁকি : কীটতত্ত্ববিদ ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. মাহবুবুর রহমান বলেন, গত কয়েক দিনের ভারি বর্ষণে মশা ও লার্ভা কিছুটা কমেছে। তবে এডিস মশার ক্ষেত্রে ঘরের ভেতরে খুব একটা উন্নতি ঘটে না। ঘরে যেমনটা তেমনই থাকে। বাইরে কিছুটা উপকার হয়, কিন্তু সমস্যা হচ্ছে বর্ষার পর ওই পানি যদি ভালোভাবে নিষ্কাশন বা অপসারণ না করা হয় তবে কিন্তু এই বর্ষার কারণে উল্টো ফল হতে পারে। এতে করে সামনে ডেঙ্গুর প্রকোপ আরও বাড়ার আশঙ্কাও থাকে।

নতুন কার্যক্রম : ১৭ আগস্ট পর্যন্ত স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের ঢাকার সব পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীর ঢাকা ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। গত বৃহস্পতিবার এ নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে বলে ওই মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়।

এদিকে গতকাল স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনায় জানানো হয়, ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল-২-এর এক্সটেনশন হিসেবে শেখ হাসিনা বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে প্রয়োজনে রোগী ভর্তি করা যাবে। এ ছাড়া শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালকেও ডেঙ্গু রোগী ভর্তির জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে। অন্যদিকে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ট্রমাটোলজি অ্যান্ড অর্থোপেডিক রিহ্যাবিলিটেশন (নিটোর) ও শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ভার্টিক্যাল এক্সটেনশনে অতিরিক্ত ডেঙ্গু রোগী ভর্তি করার জন্য প্রস্তুতি চলছে। পাশাপাশি  মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী ঈদুল আজহা উপলক্ষে বসা পশুর হাটে ডেঙ্গু প্রতিরোধে লার্ভা ধ্বংস ও এডিস মশা নিধন এবং কোরবানির বর্জ্য অপসারণে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে সব জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও মেয়রদের প্রতি অনুরোধ করা হয়েছে। একই সঙ্গে দীর্ঘ এই ছুটির মধ্যেও সব পর্যায়ের হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা ও কার্যক্রম তদারকি অব্যাহত রয়েছে।

ঢাকা, বরিশাল, ফরিদপুর ও দিনাজপুরে শিশুসহ আরও ৭ জনের মৃত্যু : ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ঢাকা, বরিশাল, ফরিদপুর ও দিনাজপুরে শিশুসহ আরও ৭ জন মারা গেছে। এর মধ্যে ঢাকায় বিভিন্ন হাসপাতালে মারা গেছে চারজন। এ ছাড়া নতুন করে বিভিন্ন জেলায় আরো বেশ কয়েকজন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে বলে জানিয়েছেন আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিরা।

গতকাল সকালে রাজধানীর বেসরকারি ইউনাইটেড হাসপাতালে মারা গেছে মেহরাজ হাসান (৮) নামের একটি শিশু। শমরিতা হাসপাতালে মারা গেছেন সুকান্ত রোজারিও (১৯)। তিনি নাটোরের বড়াইগ্রামের সেন্ট যোশেফ কলেজ থেকে এবার এইচএসসি পাস করে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার রাজধানীর মুগদা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে দুই তরুণীর মৃত্যু হয়েছে। তাঁরা হলেন আজমিনা আক্তার নূপুর (২৫) ও নূরজাহান (২৬)। একই দিন গভীর রাতে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মারা গেছেন মজিবর রহমান (৫৫)। ওই দিন বিকেলে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। মজিবর রহমান বরগুনা রাইফেলস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

এ ছাড়া বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে শুক্রবার সকাল ৯টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আরও ৮৪ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী ভর্তি হয়েছে।

গতকাল দুপুরে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছেন লিপি আক্তার (২৫) নামের এক গৃহবধূ। তিনি গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার ডোমরাকান্দি গ্রামের মাহবুব হোসেনের স্ত্রী। গত ২৪ ঘণ্টায় ফরিদপুরের বিভিন্ন হাসপাতালে আরও ৬০ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী ভর্তি হয়েছে। ঠাকুরগাঁও থেকে দিনাজপুরে নেওয়ার পথে মারা গেছে অপি রানী রায় (১৭) নামের এক শিক্ষার্থী। দিনাজপুর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে আনার পর চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করে। সে ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল উপজেলার লেহেম্বা গ্রামের অনুকূল চন্দ্র রায়ের একমাত্র মেয়ে। অপি এবার এইচএসসি পাস করে প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির প্রস্তুতি নিচ্ছিল। এ নিয়ে ঠাকুরগাঁওয়ে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে দুজনের মৃত্যু হলো।

এ ছাড়া নরসিংদীর মনোহরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গত তিন দিনে ছয়জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছে। গতকাল সকাল ৯টা পর্যন্ত আগের ২৪ ঘণ্টায় কিশোরগঞ্জে নতুন করে আরও ৪৭ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। একই সময়ে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত আরও ১১ জন এবং জেলার লাখাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে একজন ভর্তি হয়েছে।

শিক্ষা কোনো বাণিজ্যিক পণ্য নয় : রাষ্ট্রপতি - dainik shiksha শিক্ষা কোনো বাণিজ্যিক পণ্য নয় : রাষ্ট্রপতি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি: সমন্বিত পরীক্ষার বিরুদ্ধে কিছু শিক্ষক - dainik shiksha বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি: সমন্বিত পরীক্ষার বিরুদ্ধে কিছু শিক্ষক ‘মুজিববর্ষ উপলক্ষে শিক্ষার্থীদের বিশেষ প্রণোদনা দেয়া হবে’ - dainik shiksha ‘মুজিববর্ষ উপলক্ষে শিক্ষার্থীদের বিশেষ প্রণোদনা দেয়া হবে’ এবার নজর শিক্ষার গুণগত মানের দিকে : শিক্ষা সচিব - dainik shiksha এবার নজর শিক্ষার গুণগত মানের দিকে : শিক্ষা সচিব ই-পাসপোর্টের আবেদন করার নিয়ম - dainik shiksha ই-পাসপোর্টের আবেদন করার নিয়ম দৈনিক শিক্ষার আসল ফেসবুক পেজে লাইক দিন - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষার আসল ফেসবুক পেজে লাইক দিন ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছুটির তালিকা ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা ২০২০ খ্র্রিষ্টাব্দে মাদরাসার ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০২০ খ্র্রিষ্টাব্দে মাদরাসার ছুটির তালিকা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন please click here to view dainikshiksha website