স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেফতার - বিবিধ - Dainikshiksha

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক |

ভৈরবে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে বাসায় ডেকে ধর্ষণ করেছে রনি (২২) নামের এক যুবক। রনির বাবার নাম রুহুল আমীন এবং বাসা ভৈরবের রানীর বাজার এলাকায়।

ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রীর (১৪) বাসা শহরের ভৈরবপুর উত্তর পাড়া এলাকায়। সে একই এলাকার একটি প্রাইমারি স্কুলের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী। গত বৃহস্পতিবার রাতে শহরের নিউটাউন এলাকার একটি কিন্ডারগার্টেনে ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটে।

এ ঘটনায় শুক্রবার রাতে ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রীর মা বাদী হয়ে চারজনের বিরুদ্ধে ভৈরব থানায় মামলা করেন। রাতেই মামলার আসামি আশিককে গ্রেফতার করে পুলিশ। শনিবার সকালে ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রীকে কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতালে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ভর্তি করা হয়।

পুলিশ ও মামলা সূত্রে জানা যায়, রনির সঙ্গে স্কুলছাত্রীর সাত মাসের প্রেমের সম্পর্ক। রনির বাবা অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী।স্কুলছাত্রীর বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া হলেও ভৈরবপুর উত্তর পাড়া এলাকায় বসবাস করছে। তার মা একজন নির্মাণশ্রমিক। দরিদ্র পরিবারে জন্ম নেয়া স্কুলছাত্রী বাসার কাছেই একটি প্রাইমারি স্কুলে লেখাপড়া করে। আট মাস আগে রনির সঙ্গে পরিচয় হয় স্কুলছাত্রীর। পরিচয়ের সূত্র ধরে তাদের মধ্যে প্রেম হয়।

ঈদের পর দিন বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে প্রেমিকাকে বিয়ের কথা বলে নিউটাউন এলাকায় আসতে বলে প্রেমিক রনি। ফোন পেয়ে প্রেমিকা নিউটাউন এলাকার কাশফুল কিন্ডারগার্টেনের কাছে আসলে পাশের একটি রুমে নিয়ে অনৈতিক কাজের প্রস্তাব দেয় রনি। প্রস্তাবে রাজি না হলে প্রেমিকাকে ধর্ষণ করে প্রেমিক। এ সময় স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণে সহযোগিতা করে রনির তিন বন্ধু।

তারা হলো- আশিক (২০), ইমন (২২) ও নুর মোহাম্মদ (২১)। তিনজনের বাড়ি শহরের পঞ্চবটি এলাকায়। ধর্ষণের পর স্কুলছাত্রীকে বলা হয় রাতে কাজি অফিস বন্ধ তাই পরদিন বিয়ে করবে। এ কথা বলে স্কুলছাত্রীকে বান্ধবীর বাসায় রেখে পালিয়ে যায় রনি।

এদিকে, মেয়েকে না পেয়ে বিভিন্ন স্থানে খুঁজতে থাকেন মা। পরদিন সন্ধ্যায় বান্ধবীর বাসা থেকে মাকে খবর দিলে মেয়েকে উদ্ধার করা হয়। এরপর মেয়ের কাছ থেকে মা সব ঘটনা শুনে শুক্রবার রাতে রনির বাসায় গিয়ে তার মাকে এসব ঘটনা জানান। এ সময় ধর্ষণের কথা অস্বীকার করে তাদেরকে মারধর করে বাসা থেকে তাড়িয়ে দেয় রনি। পরে চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন স্কুলছাত্রীর মা।

ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রীর মা বলেন, রনি প্রেমের অভিনয় করে আমার মেয়েকে মোবাইলে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করেছে। মেয়ের শরীরের জামাকাপড় এখনো রক্তাক্ত। আমি রনির কঠোর বিচার চাই।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ভৈরব থানা পুলিশের এসআই ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শ্যামল চন্দ্র নাথ বলেন, মামলা দায়েরের পর ধর্ষকের সহযোগী ও মামলার আসামি আশিককে গ্রেফতার করে কিশোরগঞ্জ আদালতে চালান দেয়া হয়েছে। শনিবার সকালে ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। আজই কিশোরগঞ্জ আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেবে স্কুলছাত্রী।

স্বামী-স্ত্রী-শ্যালিকা-কন্যা চালিত শিক্ষার্থীবিহীন এমপিওভুক্ত একটি বিদ্যালয়ের গল্প - dainik shiksha স্বামী-স্ত্রী-শ্যালিকা-কন্যা চালিত শিক্ষার্থীবিহীন এমপিওভুক্ত একটি বিদ্যালয়ের গল্প ২৬ প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তি নিয়ে শিক্ষামন্ত্রীর ব্যাখ্যা - dainik shiksha ২৬ প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তি নিয়ে শিক্ষামন্ত্রীর ব্যাখ্যা গ্রেফতারের পরও বহিষ্কার দাবিতে কেন বুয়েটে আন্দোলন, প্রশ্ন শিক্ষা উপমন্ত্রীর - dainik shiksha গ্রেফতারের পরও বহিষ্কার দাবিতে কেন বুয়েটে আন্দোলন, প্রশ্ন শিক্ষা উপমন্ত্রীর সরকারি হচ্ছে আরও দুই কলেজ - dainik shiksha সরকারি হচ্ছে আরও দুই কলেজ কোন বোর্ডে কত শিক্ষার্থী পাবে এসএসসির বৃত্তি - dainik shiksha কোন বোর্ডে কত শিক্ষার্থী পাবে এসএসসির বৃত্তি ছাত্রীকে থাপ্পড় মারায় সহপাঠীর কারাদণ্ড - dainik shiksha ছাত্রীকে থাপ্পড় মারায় সহপাঠীর কারাদণ্ড স্কুলে মাকে অপমান করায় ক্ষোভে অজ্ঞান ছাত্রের মৃত্যু - dainik shiksha স্কুলে মাকে অপমান করায় ক্ষোভে অজ্ঞান ছাত্রের মৃত্যু সরকারি স্কুলে ভর্তির নীতিমালা প্রকাশ - dainik shiksha সরকারি স্কুলে ভর্তির নীতিমালা প্রকাশ এমপিও কমিটির সভা ২৪ নভেম্বর - dainik shiksha এমপিও কমিটির সভা ২৪ নভেম্বর জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন please click here to view dainikshiksha website