১২ জনের সভায় হত্যার দায়িত্ব বণ্টন - বিবিধ - Dainikshiksha

নুসরাত হত্যায় শরীফের জবানবন্দি১২ জনের সভায় হত্যার দায়িত্ব বণ্টন

নিজস্ব প্রতিবেদক |

‘মাদরাসা অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলার নির্দেশে ও পরামর্শে নুসরাতকে হত্যার জন্য গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগানো হয়। এ জন্য ২৮ ও ৩০ মার্চ গ্রেফতারকৃত সিরাজ উদ দৌলার সঙ্গে কারাগারে দুই দফা আমি দেখা করি। ৪ এপ্রিল সকালে অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলা সাহেব মুক্তি পরিষদের সভা হয়। রাতে ১২ জনের এক সভায় হত্যার পরিকল্পনা চূড়ান্ত ও দায়িত্ব বণ্টন করা হয়। সেখানে আমার উপর দায়িত্ব পড়ে মাদরাসার গেটের পাহারা দেওয়া।

সেখানে নুরুদ্দিন ও হাফেজ আবদুল কাদেরও ছিলেন। মাদরাসার ছাদে বোরকা পরে ছিলেন শাহাদাত, জোবায়ের ও জাবের। এছাড়া নুসরাতের সঙ্গে যান পপি ও মনি।’ আদালতে দেওয়া ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়ে এসব কথা বলেছেন আবদুর রহিম শরীফ।

এ নিয়ে তিনজন আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিলেন। এর আগে নুরুদ্দিন ও শাহাদাত হোসেন শামীম জবানবন্দি দেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) পরিদর্শক শাহ আলম বলেন, আবদুর রহিম শরীফ স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। এরপর তাকে কারাগারে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। তিনি বলেন, মামলার অন্য দুই আসামি নুরুদ্দিন ও শাহাদাত হোসেন শামীম এবং আবদুর রহিম শরীফসহ তিনজনের স্বীকারোক্তিতে একই ধরনের কথা উঠে এসেছে।

গতকাল বুধবার বিকাল সাড়ে তিনটার দিকে ফেনীর সিনিয়র জুড়িশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শরাফ উদ্দিন আহমেদের আদালতে আবদুর রহিম শরীফকে হাজির করা হলে তিনি ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন। এর আগে, গত মঙ্গলবার রাতে ঢাকার কামরাঙ্গীরচর এলাকা থেকে আবদুর রহিম শরীফকে পিবিআই গ্রেফতার করে।

দুইজন গ্রেফতার, কামরুন নাহার মনি ৫ দিনের রিমান্ডে: নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলায় গতকাল বুধবার পিবিআই আরো দুই জনকে গ্রেফতার করেছে। এদের মধ্যে মামলার অন্যতম আসামি শরীফ উদ্দিনকে সোনাগাজী থেকে এবং হাফেজ আবদুল কাদেরকে পুরান ঢাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। হাফেজ আবদুল কাদের ওই মাদরাসার হেফজ বিভাগের শিক্ষক। শরীফ মাদরাসার ফাজিল দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র।

এই দুই জনকে নিয়ে এ পর্যন্ত এই হত্যাকাণ্ডে মোট ১৭ জনকে গ্রেফতার করা হলো। এদিকে, নুসরাত হত্যা মামলায় গ্রেফতার কামরুন নাহার মনির পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল দুপুর একটার দিকে ফেনী সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শরাফ উদ্দিন এ আদেশ দেন। আবদুল কাদের সিরাজ উদ দৌলার অনুগত হিসেবে মাদরাসার হোস্টেলে বসবাস করতেন। তিনি এই হত্যাকাণ্ডের অন্যতম অর্থ ও মদদদাতা।

এমপিও কমিটির সভা ২৪ নভেম্বর - dainik shiksha এমপিও কমিটির সভা ২৪ নভেম্বর নতুন এমপিওভুক্ত ১ হাজার ৬৫০ প্রতিষ্ঠানের তথ্য পাঠানোর নির্দেশ - dainik shiksha নতুন এমপিওভুক্ত ১ হাজার ৬৫০ প্রতিষ্ঠানের তথ্য পাঠানোর নির্দেশ এমপিওভুক্তি নিয়ে সংসদ সদস্যদেরকে দেয়া শিক্ষামন্ত্রীর চিঠিতে যা আছে - dainik shiksha এমপিওভুক্তি নিয়ে সংসদ সদস্যদেরকে দেয়া শিক্ষামন্ত্রীর চিঠিতে যা আছে প্রাথমিক সমাপনীতে পরীক্ষার্থী কমেছে, বেড়েছে ইবতেদায়িতে - dainik shiksha প্রাথমিক সমাপনীতে পরীক্ষার্থী কমেছে, বেড়েছে ইবতেদায়িতে যুদ্ধাপরাধীদের নামের পাঁচ কলেজের নাম পরিবর্তন হচ্ছে - dainik shiksha যুদ্ধাপরাধীদের নামের পাঁচ কলেজের নাম পরিবর্তন হচ্ছে এমপিও নীতিমালা সংশোধনে ১০ সদস্যের কমিটি - dainik shiksha এমপিও নীতিমালা সংশোধনে ১০ সদস্যের কমিটি এমপিওভুক্ত হলো আরও ছয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান - dainik shiksha এমপিওভুক্ত হলো আরও ছয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নাম সংশোধনের প্রস্তাব চেয়েছে অধিদপ্তর - dainik shiksha প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নাম সংশোধনের প্রস্তাব চেয়েছে অধিদপ্তর এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠানের তথ্য যাচাইয়ে ৭ সদস্যের কমিটি - dainik shiksha এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠানের তথ্য যাচাইয়ে ৭ সদস্যের কমিটি শূন্যপদের তথ্য দিতে ই-রেজিস্ট্রেশনের সময় বাড়ল - dainik shiksha শূন্যপদের তথ্য দিতে ই-রেজিস্ট্রেশনের সময় বাড়ল স্নাতক ছাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি নয়: প্রজ্ঞাপন জারি - dainik shiksha স্নাতক ছাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি নয়: প্রজ্ঞাপন জারি প্রাথমিকে প্রশিক্ষিত ও প্রশিক্ষণবিহীন শিক্ষকদের বেতন একই গ্রেডে - dainik shiksha প্রাথমিকে প্রশিক্ষিত ও প্রশিক্ষণবিহীন শিক্ষকদের বেতন একই গ্রেডে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন please click here to view dainikshiksha website