please click here to view dainikshiksha website

মালিকপক্ষ এই সময় জানালেও কর্মচারীরা বলছেন তাঁরা জানেন না

১৬ আগস্ট থেকে লঞ্চের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হতে পারে

নিজস্ব প্রতিবেদক | আগস্ট ১৪, ২০১৭ - ৯:৫০ পূর্বাহ্ণ
dainikshiksha print

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে দক্ষিণাঞ্চলের ৪১ রুটে চলাচলকারী লঞ্চের প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণি কেবিনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি বিষয়ে লঞ্চ মালিক ও কর্মচারীদের মধ্যে দ্বিমত দেখা দিয়েছে। তবে মালিকপক্ষ বলেছে, ১৬ আগস্ট থেকে সদরঘাট টার্মিনালে লঞ্চের বুকিং কাউন্টার থেকে অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হবে। ঈদ উপলক্ষে ২৭ আগস্ট থেকে বিশেষ লঞ্চ সার্ভিস চলবে।

গতকাল রোববার দুপুরে সদরঘাট টার্মিনালে গিয়ে দেখা যায়, লঞ্চের কেবিনের অগ্রিম টিকিট নিতে আসা দক্ষিণাঞ্চলগামী যাত্রীরা বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছেন। লঞ্চের কর্মচারীরা তাঁদের জানান, কবে থেকে অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হবে সে বিষয়ে তাঁরা নিশ্চিত বলতে পারছেন না। লঞ্চগুলোর ভিআইপি, প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির কেবিনের অগ্রিম টিকিট বিক্রির বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়নি বলে জানান তাঁরা।

বরিশালগামী অ্যাডভেঞ্চার-১ লঞ্চের কেরানি ইকবাল হোসেন জানান, ‘অগ্রিম টিকিট কবে থেকে বিক্রি হবে মালিকপক্ষ আমাদের নির্দিষ্ট দিনক্ষণ কিছুই জানায়নি। তবে শুনেছি ২০ আগস্ট থেকে কেবিনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হবে।’

খিলগাঁও থেকে আসা রমিজ মিয়া (৪৮) জানান, ‘২৮ আগস্ট বরিশাল যাব। প্রথম শ্রেণির অগ্রিম টিকিটের খোঁজ নিতে গেলে কালাম খান-১ লঞ্চের লোকজন জানান, অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়নি। কবে থেকে অগ্রিম টিকিট বিক্রি হবে মালিকপক্ষই জানে। আগামী সপ্তাহে এসে খোঁজ নেওয়ার পরামর্শ দেন তাঁরা।’ তিনি আক্ষেপ করে বলেন, ‘কাজ ফেলে অগ্রিম টিকিটের জন্য টার্মিনালে আসলাম। অগ্রিম টিকিট পাব তো দূরের কথা, কবে থেকে টিকিট বিক্রি হবে তারও খোঁজ নেই।’

কালাম খান-১ লঞ্চের কর্মকর্তা খলিল মিয়া জানান, ‘লঞ্চের প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির কেবিনের অগ্রিম টিকিট বিক্রির বিষয়টি একমাত্র মালিকপক্ষই তদারক করেন। অগ্রিম টিকিট মালিকের অনুমতি ছাড়া বিক্রি করা হয় না। মালিকপক্ষ এখনো আমাদেরকে কিছুই জানায়নি।’

রায়েরবাজার থেকে আসা কাঠ ব্যবসায়ী ইদ্রিস মোল্লা (৪৫) বলেন, ‘৩০ আগস্ট ভান্ডারিয়া যাব। কয়েকটি লঞ্চে প্রথম শ্রেণির ডাবল কেবিনের অগ্রিম টিকিটের জন্য খোঁজ নিয়েছি। লঞ্চের লোকজন জানান অগ্রিম টিকিট আগামী সপ্তাহে বিক্রি শুরু হবে। টিকিট থাকলে পাবেন।’

ভান্ডারিয়াগামী অভিযান-৭ লঞ্চের পরিচালক বাচ্চু বেপারী বলেন, যেভাবে বড় বড় লঞ্চ বেড়েছে তাতে দক্ষিণাঞ্চলের যাত্রীদের অগ্রিম টিকিটের জন্য অপেক্ষায় থাকতে হয় না। এখন থেকে ঈদ মৌসুমে যখন যাত্রীরা আসবে, তখনই টিকিট নিয়ে বাড়ি যেতে পারবে। তিনিও বলেন, কবে থেকে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির কেবিনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হবে এ বিষয়ে মালিকপক্ষ এখনো সিদ্ধান্ত দেয়নি।

অভ্যন্তরীণ নৌচলাচল (যাপ) সংস্থার সহসভাপতি শাহাবুদ্দিন মিলন বলেন, সাধারণ সময়ের চেয়ে ঈদে কেবিনের যাত্রী বেশি থাকে। কিন্তু চাহিদা অনুযায়ী প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির কেবিন কম রয়েছে। যাঁরা নিয়মিত লঞ্চে যাতায়াত করেন, তাঁরা আগে থেকেই টিকিট বুকিং দিয়েছেন। তবে টার্মিনালে নতুন ভবনে স্থাপিত টিকিট কাউন্টার থেকে সম্ভবত ১৬ আগস্ট থেকে অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হবে।

নৌনিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের যুগ্ম পরিচালক জয়নাল আবেদীন বলেন, ২৭ আগস্ট থেকে বিশেষ লঞ্চ চলাচল শুরু হবে। যাত্রীদের সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ১৭ আগস্ট ঢাকা নদীবন্দর সদরঘাট টার্মিনালে ঈদ প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হবে। এতে বিআইডব্লিউটিএ, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ সব পেশাজীবী সংগঠনের নেতারা উপস্থিত থাকবেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন:


আপনার মন্তব্য দিন