বাংলায় ০.২৫ পেয়েও মেধাতালিকায়! - ভর্তি - Dainikshiksha

বাংলায় ০.২৫ পেয়েও মেধাতালিকায়!

ইবি প্রতিনিধি |

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের 'বি' ইউনিটের ফল প্রকাশিত হয়েছে। এতে এমসিকিউ অংশে বাংলায় ২৫ এর মধ্যে ০.২৫ পেয়ে মেধা তালিকায় ৩০৮তম স্থান পেয়েছেন এক পরীক্ষার্থী। তিনি প্রথম শিফটে পরীক্ষায় অংশ নেন। এছাড়াও ইংরেজিতে ২৫ নম্বরের মধ্যে -১.২৫ পেয়ে দ্বিতীয় শিফটের প্রথম অপেক্ষমাণ তালিকায় ৪৩৪ মেধাক্রমে রয়েছেন একজন। বৃহস্পতিবার (১৫ নভেম্বর) বিকেল ৪টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে এ ফল প্রকাশ করে কর্তৃপক্ষ।

প্রকাশিত ফলে দেখা যায়, ০০৬৭৪ রোলধারী আসমা খাতুন লিখিত পরীক্ষায় ৭ নম্বর পেয়ে তার মোট প্রাপ্ত নম্বর ৫৪.১২০। দ্বিতীয় শিফটে ১৩৪০৪ রোলধারী মিরাজুল ইসলাম ইংরেজিতে ২৫ এর মধ্যে -১.২৫ পেয়ে ১ম অপেক্ষমাণ তালিকায় ৪৩৪ স্থান পেয়েছেন। তিনি বাংলায় ১৭.৮, সাধারণ জ্ঞানে ৬.২৫ এবং লিখিত পরীক্ষায় ৪ পেয়েছেন। ২য় শিফটে ৩৪৮ জনকে মেধাক্রম এবং ৩৪৯-১০৬২ পর্যন্ত অপেক্ষমাণ তালিকায় রাখা হয়েছে। অর্থাৎ -১.২৫ পেয়েও মিরাজুলের চান্স পাওয়ার সম্ভাবনা অনেক। এছাড়াও ২৬১৯ রোলধারী ১ম শিফটে ইংরেজিতে ১.২৫ পেয়ে ২৬৭তম, ২য় শিফটে ৯২৭০ রোলধারী ইংরেজিতে ১ পেয়ে ২৫৮তম, ২য় শিফটে ৭২০১ রোলধারী সাধারণ জ্ঞানে ১ পেয়ে ২৬৯তমসহ অনেকে ইংরেজিতে ১ নম্বর পেয়েছেন, বাংলায় ১ নম্বর পেয়ে মেধাক্রমে স্থান করে নিয়েছেন অনেকেই। তবে তারা প্রত্যেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পাচ্ছেন।

এবারে ভর্তি নির্দেশিকায় 'বি' ইউনিটে বিভাগ পাওয়ার ক্ষেত্রে শর্তজুড়ে দেন কর্তৃপক্ষ। এতে বাংলায় ভর্তি হতে হলে নূ্যনতম ১৫ পাওয়া বাধ্যতামূলক করা হয়। ইংরেজি বিভাগে ভর্তির ক্ষেত্রেও একই শর্ত। এছাড়া অন্যান্য বিভাগে ভর্তি হতে ইংরেজিতে ন্যূনতম দশ পেতে হবে পরীক্ষার্থীদের। তবে আরবি সাহিত্য, ইসলামের ইতিহাস ও আলফিকহ অ্যান্ড লিগ্যাল স্টাডিজ বিভাগে ভর্তির ক্ষেত্রে কোনো শর্ত দেওয়া হয়নি। সেই সঙ্গে এমসিকিউএ বাংলা ও ইংরেজি অংশ ছাড়া অন্যান্য অংশে পাসের শর্তও দেওয়া হয়নি। ফলে মাইনাস মার্কস পাওয়া পরীক্ষার্থীও ভর্তির সুযোগ পাচ্ছেন। এ বিষয়ে 'বি' ইউনিটের সমন্বয়ক অধ্যাপক সাইদুর রহমানের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে সাড়া পাওয়া যায়নি। তবে ইউনিট সমন্বয়ক কমিটিতে উপাচার্য মনোনীত সদস্য অধ্যাপক মামুনুর রহমানের কাছে জানতে চাইলে তিনি তাৎক্ষণিক কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। তবে ভুল থাকলে সমাধানের কথা বলেন।

উপাচার্য অধ্যাপক হারুন-উর-রশিদ আসকারী বলেন, 'লিখিত পরীক্ষার নম্বরের ওপর অগ্রাধিকার দিয়ে ফলাফল তৈরি করা হয়েছে। তবে কোনো ব্যত্যয় থাকলে কেউ আমার কাছে লিখিতভাবে জানতে চাইতে পারে।'

জারির অপেক্ষায় অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ নিয়োগ যোগ্যতার সংশোধনী - dainik shiksha জারির অপেক্ষায় অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ নিয়োগ যোগ্যতার সংশোধনী প্রাথমিকে সায়েন্স ব্যাকগ্রাউন্ড প্রার্থীদের ২০ শতাংশ কোটা - dainik shiksha প্রাথমিকে সায়েন্স ব্যাকগ্রাউন্ড প্রার্থীদের ২০ শতাংশ কোটা ১৮২ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিও বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু - dainik shiksha ১৮২ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিও বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার অপেক্ষায় চাকরিতে প্রবেশের বয়স: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী - dainik shiksha প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার অপেক্ষায় চাকরিতে প্রবেশের বয়স: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী আরও ৯২ প্রতিষ্ঠানের তথ্য চেয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় - dainik shiksha আরও ৯২ প্রতিষ্ঠানের তথ্য চেয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় শিক্ষকতা ছেড়ে উপজেলা নির্বাচনে শিক্ষক - dainik shiksha শিক্ষকতা ছেড়ে উপজেলা নির্বাচনে শিক্ষক প্রতিষ্ঠান প্রধান ও সুপারিশপ্রাপ্তদের করণীয় - dainik shiksha প্রতিষ্ঠান প্রধান ও সুপারিশপ্রাপ্তদের করণীয় প্রাথমিকে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ১৫ মার্চ - dainik shiksha প্রাথমিকে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ১৫ মার্চ ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website