মন্তব্য লিখতে লগইন অথবা রেজিস্টার করুন

মন্তব্যের তালিকা

Partha Sarathi Ray, ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৮
আসন্ন নির্বাচনেই এসবের জবাব দিয়ে দেয়া উচিৎ। নির্বাচনী দায়িত্ব থেকেও আমাদের দুরে রাখার চেষ্টা করা হয়েছিল, কারণ আমাদের ইনক্রীমেন্ট দেয়ার ইচ্ছা ছিলনা। নিতন্তই বেকায়দায় পড়ে দিতে হয়েছে। কারণ যখন দেখল বেসরকারী শিক্ষকদের নির্বাচনী দায়িত্ব থেকে দুরে রাখা যাবেনা তখন তড়িঘড়ি করে ঘোষণা দেয়া হল একেবারে শেষ বেলায়। ৫% ইনক্রীমেন্ট আমাদের ২০১৬ সালের জুলাই থেকে দেওয়ার কথা ছিল। তা না দিয়ে টালবাহানা করে এনেছে ২০১৮ পর্যন্ত। আবার নতুন ফন্দি আঁটছে। বেসরকারী শিক্ষকদের উচিৎ এবার যথাযথ জবাব দেয়া।
Partha Sarathi Ray, ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৮
১০% কাটা হলে সারা বাংলার শিক্ষকগণ ঘরে বসে থাকবেনা, রাস্তায় নামতে বাধ্য হবে। যে হারামজাদা ১০% কাটার পাঁয়তারা করছে তাকে জুতাপেটা করা দরকার।
Krishna Paul, ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৮
শুধু আমার দেশের শিক্ষক সমাজকে নিয়ে মজা করা হয়।কারন এদেশে জ্ঞান ও জ্ঞানীর সম্মান দেয়া হয়না।এই স্থান দখল করে রেখেছে কিছু অশিক্ষিত ,মূর্খ অর্থ সম্পদশালী রাজনৈতিক প্রজ্ঞাহীন একপ্রকার অপশক্তি যারা প্রধানমন্ত্রীকেও মাঝে মাঝে বিব্রত করে। এরা বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলাকে হিংসা করে। এবারের ভোটে আমরা তাদেরকে না বলব।
shakti prosad halder, ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৮
ধন্যবাদ শিক্ষাসচিব স্যারকে।
walieurrahman chowdhury, ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৮
সমীর,অনীল,আইয়ুব,শুভ,প্রকাশ ,প্রভাষক ও শিক্ষক।দিনাজপুর। ”কল্যাণ ট্রাস্টের টাকা কোন ব্যাংকে জমা রাখা হয় আর সুদ কত পায়, কে খায় তার কোনও হিসেব নেই।” এ বিষয়ে বেসরকারী শিক্ষক কর্মচারীদের প্রতিবাদি হওয়া উচিত।নেতারা যোগ সাজসে জমানো কল্যান ট্রাস্টের টাকার সুদ অবৈধ ভাবে ভোগ করবেন আর নেতা হবেন।এদের কোন প্রয়োজন নেই।দিনিক শিক্ষা ডটকম এর সাংবাদিক ভাইদের সবিনয়ে অনুরোধ জানাচ্ছি এ সব টাকা কে কিভাবে খাচ্ছে তা বের করে নির্ভরযোগ্য বিশ্বস্ত ”দৈনিক শিক্ষা” তে প্রকাশ করে আমাদের লক্ষ লক্ষ শিক্ষদের ‍উপকার করুন।
Md. Abul Khair Patwary, ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৮
একটি প্রজ্ঞাপন কিভাবে সচিবকে না জানিয়ে উপসচিব পাবলিস্ট করেন? শিক্ষকদের নিয়ে মজা করেন? শিক্ষকদের ক্লাসে থাকার ব্যবস্থা করেন রাজপথে নয়।
হাবিবুর রহমান ,, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮
কর্তন ১০% হবেই। শুধু নির্বাচনের অপেক্ষা।
Md.Nuruzzaman, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮
প্রহসন বন্ধ করুন। নইলে উচ্চ আদালতে যেতে বাধ্য হব।
mehedi hasan, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮
ভূল না এটাই ছিল মনে মনে? ৫ টাকা দিয়ে ৪ টাকা ফেরত!
মোঃ আতাউর রহমান মন্ডল, প্রভাষক, বালানগর কামিল মাদরাসা, বাগমারা, রাজশাহী।, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮
চুড়ান্ত সিদ্ধান্তের কয়েক ঘন্টার মধ্যে সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার জন্য ধন্যবাদ, সাথে সাথে আল্লাহর শুকরিয়ার আদায় করছি, আর কামনা করছি যেন কর্তনের অবস্থা আগের মতই থাকে।
জি কে এ জাহান, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮
এখনই অবসর ও কল্যাণের বাড়তি চাঁদা আদায়ের সিদ্ধান্ত / প্রজ্ঞাপন অনুদান প্রাপ্ত অবহেলিত বেসরকারী শিক্ষক দের ডান্ডা মেরে চুমা দেওয়ার মতোই অবস্থা হলো। বাড়তি চাঁদা আদায় করে অবসর ও কল্যাণ সুবিধা বৃদ্ধি করা হবে কিনা তার ও সঠিক তথ্য নেই।
l Haque, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮
সবার বেতন বাড়লেও ১ জানুয়ারী/১৯ থেকে নতুন Mpo ভুক্ত বেসরকরি শিক্ষকদের বেতন কমবে ৷ *সাবাস বাংলাদেশ *
Muhammad Ismail, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮
এম পি ও ভূক্ত শিক্ষকদের সাথে আর কত বিমাতাসুলব আচরণ করা হবে! এটা প্রতারণামূলক আর হটকারী সিদ্ধান্ত ছাড়্ বৈকি!
Sumon, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮
আমরাতো কোন ইনক্রিমেন্ট পাই নাই। চামার সালারা ১০% কাটার ফন্দি করলো।