মন্তব্য লিখতে লগইন অথবা রেজিস্টার করুন

মন্তব্যের তালিকা

MD.SAIFUL ISLAM ঈদুল আজাহার বিলগুলো ঈদের বেশ কিছুদিন আগে ছাড়া উচিৎ।, ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
ছাত্র-ছাত্রীর ‌মাসিক ‌বেতন ও ‌প্রতিস্ঠানের ‌‌‌সম্পদ ‌থেকে ‌‌যে ‌আয় ‌হয়,‌তা ‌সরকারী ‌কোষাগারে ‌‌জমা ‌দিলেই ‌চলবে,‌সরকারকে ‌বাড়তি ‌টাকা ‌দিতে ‌হবে ‌না। সুতরাং সকল এম,পি,ও ভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে জাতীয়করণের ঘোষণা দিন
মেঃ নওশের আলী, ০৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
মন্তব্যটি সমর্থন করুন
মেঃ নওশের আলী, ০৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
বিনা শর্তে জাতীয়করন করা হোক শর্ত এমনিতেই পুরন হবে পক্ষে পাচ পাখিয়া মাদরাসার শিক্ষকবৃন্দ শৈলকুপা ঝিনাইদহ।
মোঃ শাহিদুল ইসলাম, ২৭ জানুয়ারি, ২০১৯
এখন অনেক থানায় বিশেষ করে শহর এলাকায় বিদ্যালয় বেশী আছে। আবার অনেক প্রতিষ্ঠানে নেই কাম্য শিক্ষার্থী সংখ্যা । অন্য দিকে ভালো প্রতিষ্ঠান গড়ার লক্ষে সরকারি আমলাদের প্রচেষ্টায় তৈরি হচ্ছে নতুন নতুন মদেল / সরকারি /ভার্সন নন ভার্সন স্কুল।সৃষ্টি করা হচ্ছে বৈষম্য মূলক শিক্ষা ব্যবস্থা। ভালো রেজাল্টের আশায় মানবিক গুণাবলী সৃষ্টি হচ্ছেনা ঐসব স্কুলে।অন্য দিকে কম শিক্ষার্থীওয়ালা স্কুল গুলি শিক্ষার্থী না পেয়ে ফেল করা শিক্ষার্থীদেরও প্রমোশন দেয়।ফলে প্রতিষ্ঠান আরো দূর্বল হচ্ছে। তাহলে বিদ্যালয় নিম্ন মানের হয়ার জন্য দায়ী ঐ বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা নয় বরং কর্তারা। তাই আসুন একমত হই কিণ্ডার গার্টেন নয় সরকারি প্রাথুমিক বিদ্যালয়কে উন্নত করার পদক্ষেপ নিন। নতুন নতুন মদেল / সরকারি /ভার্সন নন ভার্সন স্কুল নয় মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক সহ সকল শিক্ষা জাতীয় করন করে বাজে প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে শিক্ষা ব্যবস্থা উন্নত করার পদক্ষেপ নিন।
Sanjib Singha, Keshabpur,Jashore, ১৮ জানুয়ারি, ২০১৯
আমি যশোর জেলার কেশবপুর উপজেলার কেশবপুর পাইলট স্কুল এর কথা বলছি, যেখানে বিগত বছর ক্লাস সিক্স এ প্রায় তিনশত ছাত্র/ছাত্রী ভর্তি করত আর 2018 সালে জাতীয়করন ঘোষণা হওয়ায় 2019 সালে ক্লাস সিক্স এ ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে মাত্র 120 জন ছাত্র/ছাত্রী ভর্তি হওয়ার সুযোগ পেয়েছে।স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মাননীয় নির্বাহী অফিসার বলেছেন এইটা নাকি সরকারী স্কুলের নিয়ম।যারা এখানে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করে ভর্তি হওয়ার সুয়োগ পেয়েছে তারা সবাই মেধাবী ছাত্র/ছাত্রী। আমার প্রশ্ন হল বিগত বছর যেসব শিক্ষক প্রায় 300 ছাত্র/ছাত্রী দেরকে পাঠদান করেছে, তারা এখন থেকে মাত্র 120 জন ছাত্র/ছাত্রী দেরকে পাঠদান করবে তাও আবার প্রায় সকলেই মেধাবী ছাত্র/ছাত্রী।তাহলে স্কুল সরকারী হয়ে আমাদের লাভ হল কি ? আর যারা একটু কম মেধাবী তাদের যায়গা অন্য স্কুলে।
মোঃ ‌আজাদ ‌সরকার, ১৫ জানুয়ারি, ২০১৯
ছাত্র-ছাত্রী ‌মাসিক ‌বেতন ও ‌প্রতিস্ঠানের ‌‌‌সম্পদ ‌থেকে ‌‌যে ‌আয় ‌হয়,‌তা ‌সরকারি ‌কোষাগারে ‌‌জমা ‌দিলেই ‌চলবে,‌সরকারকে ‌বাড়তি ‌টাকা ‌দিতে ‌হবে ‌না।‌এখন ‌এই ‌অর্থ ‌যাচ্ছে ‌সভাপতি ও ‌‌প্রধানের ‌পকেটে।
MD. SAZZAD HOSSAIN, ১৫ জানুয়ারি, ২০১৯
জাতীকরণ হলে শিক্ষার গুনগত মান বৃদ্ধি পাবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রীর প্রতি অনুরোধ রইল। বদরগন্জ, রংপুর
মোহাঃ বাকীবিল্লাহ, ১৫ জানুয়ারি, ২০১৯
ধন্যবাদ, সাজু স্যার।
Md. Mahbubar Rahman, Lecturer in English, Jashore., ১৪ জানুয়ারি, ২০১৯
At least teachers can be nationalized.
অধ্যক্ষ মো. রহমত উল্লাহ্‌, ১৪ জানুয়ারি, ২০১৯
এই শর্তে সব প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ হলে, সবাই বাড়তি ছাত্র পাবে কোথায়? পাশের হার বাড়ানোর অসুস্থ প্রতিযোগিতা শুরু হবে না কি?
Nur Mohammad, ১৪ জানুয়ারি, ২০১৯
Teacher nijer sarthe onnay kore.eta rodh korbe kivabe?
MD.BELAL UDDIN, ১৪ জানুয়ারি, ২০১৯
আশায় আশায় থাকুন । আশা করতে তো দোষ নেই ।
Md. Mahbubar Rahman, Lecturer in English, Jashore., ১৪ জানুয়ারি, ২০১৯
'দৈনিক শিক্ষা' র কাছে অনুরোধ 'শিক্ষার সার্বিক উন্নয়নে আপনার কাগজে 'পাঠক পরামর্শ/ভাবনা/ চিন্তা' নামে কোন পাতা সৃষ্টি করা যায় কিনা ।
নয়ন চন্দ্র দেবনাথ, ১৪ জানুয়ারি, ২০১৯
জাতীকরণ হলে শিক্ষার গুনগত মান বৃদ্ধি পাবে।
Almahmud, ১৪ জানুয়ারি, ২০১৯
সকল mpo ভুক্ত মাদরাসা,স্কুল,কলেজ একসাথে জাতীয়করন করতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রীর প্রতি অনুরোধ রইল।
মো. আব্দুর রহমান বিশ্বাস, সম্মিলনী মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ধুলিয়ানী, চৌগাছা, যশোর।, ১৪ জানুয়ারি, ২০১৯
ধন্যবাদ সাজু স্যারকে। জাতীয়করণের জন্য দৃঢ় পদক্ষেপ গ্রহণ করুন।