মন্তব্য লিখতে লগইন অথবা রেজিস্টার করুন

মন্তব্যের তালিকা

Shirin, ২৫ জানুয়ারি, ২০১৯
মাননীয় শিক্ষা মন্ত্রী, ...……... শিক্ষার ক্ষেত্রে যে সব দপ্তর রয়েছে এসব প্রতিষ্ঠানের প্রতিটি স্তরে স্তরে রয়েছে দুর্নীতির চিরাচরিত মিলনমেলা। কোন আইনটিই নেই আমাদের দেশে? কিন্তু আইন মানাই হচ্ছে না।অথছ এটি একটি ছোট্ট জিনিস আর তা হচ্ছে "জবাবদিহিতা" এই জবাবদিহিতার ক্ষেত্রটি আইনের মাধ্যমে তৈরি করতে পারলে দেশে " দুদক", "টিআইবি" " "মানবাধিকার সংগঠন" কিছুই লাগবে না। তখন যিনি যে দায়িত্বে থাকবেন তিনি দায়িত্ব পালনে বেশি স্বাচ্ছন্দবোধ করতে পারবেন যেমন তেমনি সফলও হতে পারবেন। তাই উন্নয়নের বাধা দূর করতে আগে এসব পথের কাটাগুলো সরানোর জন্য মাননীয় প্রধান মন্ত্রী,শিক্ষামন্ত্রী,সকল সাংসদ, প্রত্যেক উচ্চপদন্থ ব্যক্তিবর্গের সমীপে সবিনয়ে অনুরোধ করছি।......... ধন্যবাদ
Shirin, ২৫ জানুয়ারি, ২০১৯
মাননীয় মন্ত্রী, আপনার সদিচ্ছার কোন অভাব দেখছি না। সমাজের প্রতিটি স্তরে রয়েছে দূর্ণীতির আখড়া। বৈষম্যে ও দূর্ণীতির আখড়াগুলো হলো...............….…....১) শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান ২) ম্যানেজিং কমিটি ৩) শিক্ষা বোর্ড এর দূর্ণীতিপরায়ন কর্মকর্তাবৃন্দ। ৪) শিক্ষা মন্ত্রণালয় এর দূর্ণীতিপরায়ন কর্মকর্তাবৃন্দ। ৫) প্রশিক্ষণের নামে প্রকল্প যেমন; সেসিপ, টিকিউ আই, সেকোয়েপ, এসইএসডিপি,আরো বিভিন্ন শিক্ষক প্রশিক্ষণের নামে কোটি কোটি টাকা আত্মস্যাতকারীর প্রকল্প। ৬) শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গুটি কতেক শিক্ষক ৭) দূর্ণীতিপরায়ন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিবৃন্দ। ৮) দূর্ণীতিপরায়ন আমলাবৃন্দ। ৯) শিক্ষকদের আর্থিক সমস্যা ও শিক্ষকদের মনোভাব। ১০) পাঠ্য বই এক অথছ অধিকারের বেলায় ভিন্ন মনোভাব। ধন্যবাদ।
এস.কে.এম, ২৫ জানুয়ারি, ২০১৯
NTRCA এর রেজাল্ট পেয়ে সবাই খুশি।কিন্তু আমরা যারা শর্তের প্রতি শ্রদ্ধাশিল হয়ে ৬ মাসের কম্পিউটার কোর্সের নিবন্ধন পাশ করার পর ও আবেদন করি নি, কিন্তু অনেকেই ৬ মাসের কোর্সের হয়ে আবেদন করে তাদের চাকরির সুযোগ ও হয়েছে। তাহলে কি আবার প্রমাণিত হবে সৎ লোকের ভাত নেই।।।।।
এস.কে.এম, ২৫ জানুয়ারি, ২০১৯
শর্তের প্রতি শ্রদ্ধাশিল হয়ে আমারা যারা ৬ মাসের কম্পিউটার কোর্সের নিবন্ধন পাশ আবেদন করিনি, কিন্তু অনেকেই ৬ মাসের র্কোসে ntrca কে ধোকা দিয়ে আবেদন করে তাদের চাকরি হয়ে। আমি কি করলাম
এস.কে.এম, ২৫ জানুয়ারি, ২০১৯
শর্তের প্রতি শ্রদ্ধাশিল হয়ে আমারা যারা ৬ মাসের কম্পিউটার কোর্সের নিবন্ধন পাশ আবেদন করিনি, কিন্তু অনেকেই ৬ মাসের র্কোসে ntrca কে ধোকা দিয়ে আবেদন করে তাদের চাকরি হয়ে। আমি কি করলাম
এস.কে.এম, ২৫ জানুয়ারি, ২০১৯
Ntrca, রেজাল্ট পেয়ে সবাই আনন্দিত। কিন্তু আমরা যারা শর্তের প্রতি শ্রদ্ধাশিল হয়ে ৬ মাসের কম্পিউটার কোর্সের নিবন্ধন পাশ করে ও আবেদন করি নি,, কিন্তু যারা ৬ মাসের হয়ে ও আবেদন করেছে এবং তাদের চাকরি ও হয়েছে। এখন কি করবো,,,,,,,,,,,,
এস.কে.এম, ২৫ জানুয়ারি, ২০১৯
Ntrca, রেজাল্ট পেয়ে সবাই আনন্দিত। কিন্তু আমরা যারা শর্তের প্রতি শ্রদ্ধাশিল হয়ে ৬ মাসের কম্পিউটার কোর্সের নিবন্ধন পাশ করে ও আবেদন করি নি,, কিন্তু যারা ৬ মাসের হয়ে ও আবেদন করেছে এবং তাদের চাকরি ও হয়েছে। এখন কি করবো,,,,,,,,,,,,
MD.BELAL UDDIN, ২৫ জানুয়ারি, ২০১৯
মাদরাসা শিক্ষায় পদোন্নতিতে বৈষম্য মাদরাসা শিক্ষায় শিক্ষক নিয়োগ ও পদোন্নতিতে অনেক বৈষম্য বিদ্যমান। মাদরাসা শিক্ষায় আরবি শিক্ষার পাশাপাশি সাধারণ শিক্ষা বিদ্যমান থাকলেও সাধারণ শিক্ষায় শিক্ষিতরা অনেক ক্ষেত্রে বঞ্চিত ও অবহেলিত। বিশেষ করে প্রভাষক পদের শিক্ষকেরা ৪/৫ বছরের বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রি নিয়েও অধ্যক্ষ বা উপাধ্যক্ষ এর পদ পান না, অথচ একজন আরবি শিক্ষিত হুজুর মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড থেকে ফাযিল-কামিল পাশ করেই দিব্যি সহকারী অধ্যাপক,উপাধ্যক্ষ বা অধ্যক্ষ হয়ে গেছেন। বাস্তবতা হল এই, বর্তমানে অধ্যক্ষ,উপাধ্যক্ষ বা সহকারী অধ্যাপক হওয়া অনেকেই ১৯৮৯ইং সনের পূর্বে ফাযিল পাশ করা, যা ছিল উচ্চ মাধ্যমিকের সমমানের এবং স্বাভাবিক ভাবেই তাদের কামিল ছিল ডিগ্রি মানের। অপর পক্ষে সাধারণ শিক্ষিতদের উচ্চতর ডিগ্রি থাকা সত্বেও অধ্যক্ষ বা উপাধ্যক্ষ হওয়ার কোন সুযোগ নাই।প্রকাশ থাকে যে,বর্তমানে মাদরাসায় আরবি এবং সাধারণ উভয় ধারার শিক্ষাক্রমই চালু আছে । অতএব, এ ব্যাপারে সদাশয় সরকারের সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি এবং সুধীজনের মন্তব্য জানতে চাচ্ছি ।
হাবিবুর রহমান ,দিনাজপুর, ২৪ জানুয়ারি, ২০১৯
হাবিব, দিনাজপুর। ****************- আপা, আজকেই নেমে পরেন। যেখানেই হাত দিবেন খালি হাতে ফিরবেন না। জেলখানা ভর্তি করে ফেলতে পারবেন। নিয়োগ বানিজ্য, ভর্তি বানিজ্য, ছাত্র বেতনের বানিজ্য, ফি বানিজ্য। কোনটাতে কে নাই?