মন্তব্য লিখতে লগইন অথবা রেজিস্টার করুন

মন্তব্যের তালিকা

Md.Samsur Rahman, ০১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
দ্বিতীয় চক্র সুপারিসুপারিশের এনটিআরসিএ দুর্নীতি করেছে তা না হলে পাবলিক ভিও বন্ধ করত না বয়স ৩৫ করা হইয়াছে ভাল অনতিবিলম্বে নতুন করে নিবন্ধন পরীক্ষা নেওয়া বাতিল করে যাদের বয়স ৩৫ বা তারকাছা কাছি তাদের নিয়োগ দেওয়া হোক
Ck mitro, ৩০ জানুয়ারি, ২০১৯
আমি 35+নিবন্ধন ধারি ও ইনডেক্স ধারি। আমি কি ইনডেক্স নিয়ে অন্য প্রতিষ্ঠানে যেতে পারব?
Ck mitro, ৩০ জানুয়ারি, ২০১৯
Ntrca এর দারা নির্বাচিত হযেছি ।এখন কি আগের ইনডেক্স বহাল থাকবে? কেউ জানলে জানান পিলিজ ।
Ck mitro, ৩০ জানুয়ারি, ২০১৯
Ntrca এর দারা নির্বাচিত হযেছি ।এখন কি আগের ইনডেক্স বহাল থাকবে? কেউ জানলে জানান পিলিজ ।
Ck mitro, ৩০ জানুয়ারি, ২০১৯
আমি 35+নিবন্ধন ধারি ও ইনডেক্স ধারি। আমি কি ইনডেক্স নিয়ে অন্য প্রতিষ্ঠানে যেতে পারব?
Md Hossain ali, ২৯ জানুয়ারি, ২০১৯
৬মাস মেয়াদী কম্পিউটার নিবন্ধনধারীদের নিয়োগ না দিলে আগামী ১০ বছরেও সকল প্রতিষ্ঠা নের শূন্য পদপূরন হবে না। এত ৩ বছর মেয়াদি কম্পিউটার ডিপ্লোমা কোথায় পাবেন? শূধু শুধু আমাদের পেটে লাথি মারবেন না অন্য দিকে ছাত্র ছাত্রীদের ক্লাসের ক্ষতিকরে ভবিষ্যৎ নষ্ট করবেন না।
REBATI MISTRY, ২৯ জানুয়ারি, ২০১৯
মেধা তালিকা করে নিয়োগের সময় আবার নিবন্ধন সনদধারীদের উপর বয়স করে ntrcaর চেয়ারম্যান আদালত অবমাননা করেছেন। কারন, আদালত বলেছিল, নিয়োগ না হওয়া পর্যম্ত সনদের মেয়াদ বহাল থাকবে। নতুন নীতিমালা নতুনদের জন্য। তাই, কোর্ট এন্ট্রি প্রসেসে বয়স করতে বলেছিল। তাই এই নিয়োগ বাতিল করে পুনরায় সকল নিবন্ধন সনদধারীদের নিয়োগ দেওয়ার জন্য পুনরায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হোক ।
Bipul mondol, ২৯ জানুয়ারি, ২০১৯
গনবিজ্ঞতিতে এমন কোন কথা উল্লেখ ছিল না যে,মাদ্রাসায় কৃষি বিষয়ে শিক্ষক হতে হলে বি এড লাগেব আর স্কুলে লাগবে না। ( তবে এক দেশে দুইনীতি কি করে সম্ভম??????রেজাল্ট হয়ে যাওয়ার পর (এন টি আর সিএ) কেন এমন কথা বলছে?????
Bipul mondol, ২৯ জানুয়ারি, ২০১৯
গনবিজ্ঞতিতে এমন কোন কথা উল্লেখ ছিল না যে,মাদ্রাসায় কৃষি বিষয়ে শিক্ষক হতে হলে বি এড লাগেব আর স্কুলে লাগবে না। কিন্তুু এন টি আর সিএ যাচাই বাছাই করে প্রার্থী নির্বাচন করে এখন কেনো নিয়োগ দেবে না??
Md.Rezaul Karim, ২৮ জানুয়ারি, ২০১৯
দাবি একটাই “সকল নিবন্ধন সনদধারীদের নিয়োগ দিতে হবে”।
Md.Rezaul Karim, ২৮ জানুয়ারি, ২০১৯
আমি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বি.এ(অনার্স),এম.এ পাশ করি এবং পরে বি.এড ও এম.এড কোর্স সম্পন্ন করি।আমার একটি সহকারী শিক্ষক ও একটি প্রভাষ পদের জন্য নিবন্ধন সনদ আছে।মাননীয় শিক্ষামন্ত্রির নিকট প্রশ্ন এত কিছু যোগ্যতা থাকার পরেও একমাত্র নিয়োগের মাপকাঠি নিবন্ধন সনদকে ধরা হচ্ছে তাহলে ঐ সকল শিক্ষার কি কোন মূল্য নেই?যদি মূল্য থাকে তবে সকল শিক্ষাগত যোগ্যতার ভিত্তিতে এবং বয়সের বার তুলে দিয়ে নিয়োগ প্রক্রিয়া করা হোক।দেশে অনেক যোগ্যতা সম্পন্ন বেকার যুবক আছে যাদের নিয়োগ দেওয়া হলে একদিকে চাহিদা অনুযায়ী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকের অভাব দুর হবে অন্যদিকে বেকারত্ব দূরীভুত হবে।তাই পূর্বের নিবন্ধনকৃতদের নিয়োগ দিয়ে পরবর্তী সময়ে চাহিদা মোতাবেক নতুন নিবন্ধন পরীক্ষা গ্রহণ করা হোক।কেননা আমরাও দেশের নাগরিক,আমাদেরও রাষ্ট্রের কাছে অনেক প্রত্যাশা আছে,আমাদেরকে প্রতিষ্ঠা করা রাষ্ট্রের দায়ীত্ব। মানবিকভারে অন্তত একবার আমাদের কথা ভেবে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করুন।
MD. NASIR UDDIN, ২৮ জানুয়ারি, ২০১৯
কেন এখনো মহিলা কোটা অনুস্মরণ করা হবে? সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও সরকারি কলেজে সহকারি শিক্ষক ও প্রভাষকের পদগুলো 2য় ও 1ম শ্রেণীর তাই NTRCA এর নিয়োগ বে সরকারি হলেও এর নিয়ন্ত্রন কর্তা সরকার এবং যেসকল প্রতিষ্ঠান বেসরকারি থেকে সরকারি হয় তারা 1ম ও 2য় শ্রেণীর পদমর্যাদা পান। যেহেতু হাইকোর্ট 04.10.2018 তারিখ উল্লেখিত পদ থেকে কোটা বাতিল ঘোষণা করেছে তারপরও NTRCA এর চেয়ারম্যান সাহেবের এত মহিলা প্রিতি কেন দরকার? অভিলম্বে এ নিয়োগ বাতিল করে শুধু মেধার ভিতিততে নিযোগ প্রদান করা হোক আর না হলে NTRCA এর চেয়ারম্যানের পদত্যাগ করতে বাধ্য করা হোক।
Md. Badsha Ali, ২৮ জানুয়ারি, ২০১৯
নিবন্ধন সনদধারীদের উপর বয়স করে ntrcaর চেয়ারম্যান wrong করেছেন। কারন, আদালত বলেছিল, নিয়োগ না হওয়া পর্যম্ত সনদের মেয়াদ বহাল থাকবে। নতুন নীতিমালা নতুনদের জন্য। তাই, কোর্ট এন্ট্রি প্রসেসে বয়স করতে বলেছিল ১৫ তম নিবন্ধন পরীক্ষা থেকে। Court obomanonar samil
মজুমদার, ২৭ জানুয়ারি, ২০১৯
আমি নবম নিবন্ধনে ইসমিক স্টাডিজ হতে নিবন্ধন করি। নিয়ম অনুযায়ী আমি মাদ্রাসার আরবি প্রভাষক পদে আবেদন করি। কিন্তু নিয়োগের সময় আমার আবেদন গ্রহণ করা হয়নি। আমার ছেয়ে কম নম্বর প্রাপ্তদের নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।
আল আমিন, ২৭ জানুয়ারি, ২০১৯
২০১৬ সালে নিয়োগের ফল সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু ২০১৯ সালের টা কেন দেওয়া হলনা? জানতে চাই। সকল সময় এন টি আর সি এ, বলেছে যে, কোন দুরনিতি হবে না। তাহলে কেন রেজাল্ট নিয়ে এমনটা করা হল? এন টি আর সি এ, এর চেয়ারম্যান মহোদয়ের নিকট জানতে চাই, আপনার দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে শুনেছি যে ২০১৬ মাল থেকে ২০১৯ সালের রেজাল্ট সবার জন্য গ্রহন যোগ্য হবে। আমার মনে হয় তার ব্যাতিক্রম হয়েছে।
Mohd. Kamal Hossain., ২৭ জানুয়ারি, ২০১৯
নিবন্ধন সনদধারীদের উপর বয়স করে ntrcaর চেয়ারম্যান কাবীরা গুনাহ করেছেন। কারন, আদালত বলেছিল, নিয়োগ না হওয়া পর্যম্ত সনদের মেয়াদ বহাল থাকবে। নতুন নীতিমালা নতুনদের জন্য। তাই, কোর্ট এন্ট্রি প্রসেসে বয়স করতে বলেছিল ১৫ তম নিবন্ধন পরীক্ষা থেকে। কিন্তু চেয়ারম্যান কি করল? আপনি দেখেন, ৩৪ বছর ১১মাস ২৭ দিনেও আবেদন করা যাবে এখন পরীক্ষা, ফলাফল ও সনদ পেতে ৩৫+ হবে তাহলে কি করে সনদ বাতিল হয় আপনি একটু জানান? তাছাড়া, নিবন্ধন সনদ ত আর একাডেমিক সনদ নয় যে বয়সের কারনে বাতিল হয়ে যাবে। ২০০৫ সাল থেকে ntrca নিবন্ধন সনদ দিয়েছে বিসিএস এর মত পরীক্ষারর মাধ্যমে - যাতে লিখা আছে, সহকারি শিক্ষক, লেকচারার ও মৌলভি। আপনি যেকোনো স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসায় নিয়োগ যোগ্য। তাহলে কেন ৩৫+ রা বঞ্চিত হবে? এছাড়াও, ২০১৬ সালের ১২৬১৯ সুপারিশ প্রাপ্ত শিক্ষকের মধ্যে ৬০০০+ নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল বাকি ৬০০০+ শিক্ষকের নিয়োগ কেন দেওয়া হলোনা? তাই, দয়া করে নিবন্ধন সনদধারীদের উপর বয়স বাতিল করুন। নইলে, প্রায় তিন লক্ষ ৩৫+ নিবন্ধিত শিক্ষক ও তাঁদের পিতা মাতার দুয়াতে আপনি জাহান্নামের আগুনে পুড়বেন। যেখানে জীবনের কোনো শেষ নেই। আল্লাহুম্মা আমিন।
Imran, ২৭ জানুয়ারি, ২০১৯
আমি 15 টা স্কুলে ও 12 টা কলেজে আবেদন করেছিলাম, কিন্তু কোন মেসেজ পায়নি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমাদের অভিযোগ আমার মতো অনেকের এ অবস্থার জন্য যে টাকা খরচ হয়েছে তা ফেরত দিতে অথবা নিয়োগ দিতে।
Imran, ২৭ জানুয়ারি, ২০১৯
উচ্চ আদালতে মামলা করুন!