মন্তব্য লিখতে লগইন অথবা রেজিস্টার করুন

মন্তব্যের তালিকা

Obydul haque, ২৩ এপ্রিল, ২০১৯
উদোর পিন্ডি বুদোর ঘাড়ে চাপানো চলবেনা। আন্দোলন ও আদালত সামনে। সবাই একসাথে থাকি, হয়তো সরকারি করণ আর দূরে নেই।
mduddin, ২২ এপ্রিল, ২০১৯
দুদক সবই দেখে কিন্তু এগুলো চোখে দেখে না?
Md. Tanvir Jahid, ২২ এপ্রিল, ২০১৯
টেকনক্যাল শিক্ষক/ কর্মচারীদের ১০ (দশ) শতাংশ টাকা তিন মাস ধরে কর্তন করা হচ্ছে এব্যাপারটা কোন শিক্ষক নেতাই দেখছি জানেননা ।
SHEIKH ATAUR RAHMAN, ২২ এপ্রিল, ২০১৯
শিক্ষা ব্যবস্থায় যখন ধীরে ধীরে উন্নয়ন ও আর্থিক সুবিধা বৃদ্ধি হতে যাচ্ছে তখন একধরনের অসাধূ ও দেশদ্রোহী আমলা দেশকে পিছিয়ে দিতে আদাজল খেয়ে বেসরকারি শিক্ষা তথা দেশের সামগ্রীক শিক্ষার উন্নয়নকে ব্যাহত করতে দুষ্ট প্রেতাত্মার কাছে চুক্তি নিয়েছে তাদের অসৎ উদ্দেশ্যেকে সফল করার জন্য যা গত ১৫/০৪/১৯ তারিখের ১০% অবসর ও কল্যাণ বাবদ চাঁদা কর্তনের প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে বহি:প্রকাশ হয়। কারণ ৫% বার্ষিক প্রবৃদ্ধি দিয়ে মাসিক ৪% অবসররের নামে কর্তনের মানে কী? বেসরকারি এমপিও শিক্ষকদের বোকা বানানো ছাড়া কিছুই না।সরকারিরা শতকরা কত টাকা অবসর সুবিধার জন্য জমা করে? তারা যদি জমা না করিয়াও সকল সুবিধা ও সকল ভাতা প্রত্যেক মাসের বেতনে পায়, তবে আমাদের কেন অবসর ও কল্যাণে চাঁদা দিয়ে কিঞ্চিৎ সুবিধা ভোগ দেওয়া হয়? আবার, গাছ লাগিয়ে কেউ যদি সুফল পেতে চায় তবে সেই গাছের যত্ন নিতে হবে আর যদি গাছটিকে যত্ন না নিয়ে প্রত্যেক মাসে একবার করে একটু করে কেটে ফেলা হয় তবে সেই গাছ থেকে সে কী ভাল ফল পাবে? -শেখ আতাউর রহমান, সহশিক্ক্ষক, কুকড়াডাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়, সদর, নীলফামারী।০১৭২৮৫৪১৭৬৩।
Md.Shahjahan Kabir, ২২ এপ্রিল, ২০১৯
সব সংগঠন এক হয়ে আন্দোলন করতে হবে,অবসর এ যাওয়া কোন নেতা আন্দোলন এ যাওয়া দরকার নেই
Mir Mahmud, ২২ এপ্রিল, ২০১৯
কথা অনেক শুনেছি, এবার কাজের মাধ্যমে দেখান। সারা দেশের শিক্ষক আছে আপনাদের সাথে।
Md.Shahjahan Kabir, ২২ এপ্রিল, ২০১৯
বিটিএ এর নেতাদের ধন্যবাদ। বেসরকারি কলেজ ও স্কুল এর শিক্ষকসম্প্রদায় জীবন বাঁজি রেখে নির্বাচন এ গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করে,অথচ বেশিরভাগ সরকারিরা দূরে থাকে,সুযোগসুবিধা এর ক্ষেত্রে উলটো, এ সব বৈষম্য কি দালাল নেতারা দেখেনা,ওদের চোখ কি অন্ধ,না এরা শুধু টাকা দেখে।
সত্যবাদী, ২২ এপ্রিল, ২০১৯
এ সব নরম কথায় কাজ হবেনা
মোঃ তাজিম উদ্দিন, ২২ এপ্রিল, ২০১৯
আমরা আপনাদের সাথে আছি
Md. Abul Kalam, ২২ এপ্রিল, ২০১৯
আন্দোলনের জন্য আমরা প্রস্তুত ।
Zaman Khan, ২২ এপ্রিল, ২০১৯
Right decision