মন্তব্য লিখতে লগইন অথবা রেজিস্টার করুন

মন্তব্যের তালিকা

শাহজাহান আলী, ১৬ অক্টোবর, ২০১৯
ধন্যবাদ
MD. Hasan, ১৫ অক্টোবর, ২০১৯
ধন্যবাদ দিব নাকি মৌন থাকবো বিষয়টি ঠিক করতে পারছি না। MSc. পাশ করে চাকুরি পেয়েছি মাদ্রাসায়। এটা যে লজ্জার বিষয় হবে সেটা কখনও ভাবিনি। মাদ্রাসা শিক্ষকতাকে সকলে বাকা চোখে দেখে, অথচ শিক্ষা জীবনে কখনও মাদ্রাসার বারান্দায়ও যাইনি।কিন্তু আজ গায়ে মাদ্রাসার লেবেল। ১৫ তারিখে উপজেলা নির্বাচনে গিয়ে জানতে পারলাম মাদ্রাসা শিক্ষকরা মানুষের আলাদা একটা প্রজাতি। কিন্তু মাদ্রাসা শিক্ষায় শিক্ষিতরা স্কুল ও কলেজে চাকুরি পেয়ে আজ তারা মাদ্রাসা শিক্ষায় দুষ্প্রাপ্য প্রাণী। ১ বছর যে শিক্ষকগণ বেতন পাবেন না, তাদের কাছ থেকে জাতি অনেক কিছুই আশা করবে কিন্তু তারা দিবে কোথা থেকে? ১ বছরের চিন্তায় তাদের ব্রেনে ব্লকেজ সৃষ্টি হবে। আজ বুজতে না পারলেও অনুমান করতে পারছি বনফুল ডাক্তারি পেশা রেখে কেনো সাহিত্যিক হয়েছিলেন। দেশে অভাব, মানুষের কাছে টাকা নাই তাই, রোগে মারা গেলেও মানুষ ডাক্তারের কাছে যেত না। তাই ডাক্তার নিরুপায়,আজ তারা কবি। কিন্তু আজ ডাক্তাররা বনফুলকে অনুসরণ করছেনা। নয় মাস বেতন না পেয়ে নিজেকে প্রমথ চৌধুরী, আব্দুলা আলমুতি মনে হচ্ছে। তাই মাদ্রাসা অধিদপ্তরের নিকট চির ঋণি।
আতিক হাসান, ১৩ অক্টোবর, ২০১৯
ধন্যবাদ, নতুন মহাপরিচালকসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে। সফটওয়্যার ব্যবহার যেন সহজ এবং সুষ্ঠু হয় সে বিষয়ে আপনাদের আন্তরিকতা ও নির্দেশনা কামনা করছি। কারন বড় কষ্টে দিন কাটছে ৩ বার রিজেট করছে আমার ফাইল এবার দেখি কপালে কি আছে । অপরাধ শুধু একটাই ........................ মাদ্রাসার শিক্ষক
মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, ১১ অক্টোবর, ২০১৯
ধন্যবাদ, নতুন মহাপরিচালকসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে। সফটওয়্যার ব্যবহার যেন সহজ এবং সুষ্ঠু হয় সে বিষয়ে আপনাদের আন্তরিকতা ও নির্দেশনা কামনা করছি।
md ibrahim, ১১ অক্টোবর, ২০১৯
ধন্যবাদ