মন্তব্য লিখতে লগইন অথবা রেজিস্টার করুন

মন্তব্যের তালিকা

Sanaullah Nuri, ০৪ নভেম্বর, ২০১৯
ভুক্তভোগীদের এ তালিকা জানা খুব জরুরী।ওদিকে ২য় সাইকলের ২য় ফেজের রেজাল্ট হয়েছে। বাধাদানকারী প্রতিষ্ঠানে কেউ আবার সিলেকশন পেলে জটিলতা আরো বাড়বে। সে তালিকাও গোপন আছে। অথচ, এ তথ্য জানা প্রতিটি দরখাস্তকারীর তথ্য অধিকার আইনের পরিপন্থী নয়।
Sanaullah Nuri, ০৪ নভেম্বর, ২০১৯
ভুক্তভোগীদের এ তালিকা জানা খুব জরুরী।ওদিকে ২য় সাইকলের ২য় ফেজের রেজাল্ট হয়েছে। বাধাদানকারী প্রতিষ্ঠানে কেউ আবার সিলেকশন পেলে জটিলতা আরো বাড়বে। সে তালিকাও গোপন আছে। অথচ, এ তথ্য জানা প্রতিটি দরখাস্তকারীর তথ্য অধিকার আইনের পরিপন্থী।
kamrulha07, ০১ নভেম্বর, ২০১৯
বহু প্রতিষ্ঠান আছে যারা নিয়োগ দেয় নি । এই ব্যবস্থা আগেই নেয়া উচিত ছিলো । যারা ntrca কে বৃদ্ধা আঙ্গুল দেখিয়েছে । যারা নিয়োগ দেয় নি তারা প্রতিষ্ঠানে বহু অপকর্মের সাথে জড়িত
Md Afzal Alam Chowdhury, ০১ নভেম্বর, ২০১৯
বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গভর্ণিং বডি / ম্যানেজিং কমিটির অনুমোদন ছাড়া প্রধান শিক্ষক ও অধ্যক্ষের ক্ষমতা নেই কোন শিক্ষকের যোগদান করতে দেওয়া না দেওয়ার । হুমকী না দিয়ে কমিটির নিয়োগ অনুমোদনের ক্ষমতা বাতিল করে এন টি আর সি এ সরাসরি নিয়োগপত্র দিয়ে বিদ্যালয়ে পাঠানোর ব্যবস্থা করুন আর প্রধান শিক্ষক নিয়োগপত্র গ্রহণ করে এমপিওর জন্য কাগজপত্র সুপারিশ করে পাঠাবে।তার পরও যদি অভিযোগ আসে তখন প্রধানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন।আর অধ্যক্ষসহ সকল পদের নিয়োগ এনটিআরসি এর মাধ্যমে হউক, তখন সমস্যা একেবারেই কমে যাবে।
Habibur Rahman, ৩১ অক্টোবর, ২০১৯
প্রধান শিক্ষকের এমপিও বন্ধ করা খুবই সহজ। কিন্তু শিক্ষকের যোগদান করতে দেওয়া না দেওয়া কী তার এখতিয়ারের মধ্যে আছে।কাউকে হুমকী দেওয়ার প্রয়োজন পড়ে না শুধুমাত্র একটি কাজ করলে।তা হলো কমিটির নিয়োগ অনুমোদনের ক্ষমতা বাতিল করে এন টি আর সি এ সরাসরি নিয়োগপত্র দিয়ে বিদ্যালয়ে পাঠাবে আর প্রধান শিক্ষক নিয়োগপত্র গ্রহণ করে এমপিওর জন্য কাগজপত্র সুপারিশ করে পাঠাবে। একটা অভিযোগও আসবে না যে কোন শিক্ষককে যোগদান করতে বাধা সেওয়া হয়েছে। গাছের গোড়া শুকনা রেখে মাথায় পানি দিলে গাছ ভাল ফল দিবে না।
Sanaullah Nuri, ৩১ অক্টোবর, ২০১৯
কোন্ কোন্ প্রতিষ্ঠান এ তালিকায় পড়ল তা প্রকাশের অনুরোধ করছি।
Abdulla All Mamun, ৩১ অক্টোবর, ২০১৯
শুধু এমপিও বন্ধ করলে হবে না । পাছায় লাথি দিয়ে প্রতিষ্ঠান থেকে বের করে দিতে হবে। কিছু প্রধান শিক্ষক ও অধ্যক্ষ গন মনে করেন প্রতিষ্ঠান তার বাবার যা ইচ্ছা তাই করবে ।