মন্তব্য লিখতে লগইন অথবা রেজিস্টার করুন

মন্তব্যের তালিকা

Tabiatkowser, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২০
শিক্ষক নিবন্ধনের সার্টিফিকেট ছাড়া আরো অন্যান্য যেসব সার্টিফিকেট রয়েছে তাও পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে সরকারি স্কুল-কলেজের শিক্ষকদের, স্কুল-কলেজের শিক্ষকদের ও সদ্য সরকারিকৃত স্কুল-কলেজের এককথায় সকল শিক্ষকদের সার্টিফিকেট যাচাই করতে হবে। কেননা অতীতে দেখা গিয়েছে অনেক সরকারি স্কুল কলেজের কিংবা অন্যান্য দপ্তরের লোকেরা নকল সার্টিফিকেট দিয়েই তারা আজীবন চাকুরী করে গিয়েছেন এমনকি পেনশনও ভোগ করেছেন। আবার এমন কেউ দেখা দিয়েছে চাকুরী শেষ হওয়ার কাছাকাছি সময়ে তাদের সার্টিফিকেট জালিয়াতির বিষয়টি ধরা পড়েছে। তাই শুধু শিক্ষকদের নয়, দেশের যত ধরনের সরকারি ও বেসরকারি চাকরিজীবী রয়েছে তাদের সকলের সার্টিফিকেটগুলো যাচাই বাছাই করে দেশকে একটি নকলমুক্ত দেশে পরিণত করা খুবই প্রয়োজন। কেননা হয়তো এমন এক সময় প্রশ্ন দেখা দিতে পারে যে, সার্টিফিকেট যাচাই বাছাই করা সেটা শুধু শিক্ষকদের জন্য কেন অন্য ডিপার্টমেন্টে যারা চাকরি করে তাদের সার্টিফিকেটও যাচাই করার বিষয়ে যাতে প্রশ্ন না উঠে।
Tabiatkowser, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২০
শিক্ষক নিবন্ধনের সার্টিফিকেট ছাড়া আরো অন্যান্য যেসব সার্টিফিকেট রয়েছে তাও পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে সরকারি স্কুল-কলেজের শিক্ষকদের, স্কুল-কলেজের শিক্ষকদের ও সদ্য সরকারিকৃত স্কুল-কলেজের এককথায় সকল শিক্ষকদের সার্টিফিকেট যাচাই করতে হবে। কেননা অতীতে দেখা গিয়েছে অনেক সরকারি স্কুল কলেজের কিংবা অন্যান্য দপ্তরের লোকেরা নকল সার্টিফিকেট দিয়েই তারা আজীবন চাকুরী করে গিয়েছেন এমনকি পেনশনও ভোগ করেছেন। আবার এমন কেউ দেখা দিয়েছে চাকুরী শেষ হওয়ার কাছাকাছি সময়ে তাদের সার্টিফিকেট জালিয়াতির বিষয়টি ধরা পড়েছে। তাই শুধু শিক্ষকদের নয়, দেশের যত ধরনের সরকারি ও বেসরকারি চাকরিজীবী রয়েছে তাদের সকলের সার্টিফিকেটগুলো যাচাই বাছাই করে দেশকে একটি নকলমুক্ত দেশে পরিণত করা খুবই প্রয়োজন। কেননা হয়তো এমন এক সময় প্রশ্ন দেখা দিতে পারে যে, সার্টিফিকেট যাচাই বাছাই করা সেটা শুধু শিক্ষকদের জন্য কেন অন্য ডিপার্টমেন্টে যারা চাকরি করে তাদের সার্টিফিকেটও যাচাই করার বিষয়ে যাতে প্রশ্ন না উঠে।
Tabiatkowser, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২০
শিক্ষক নিবন্ধনের সার্টিফিকেট ছাড়া আরো অন্যান্য যেসব সার্টিফিকেট রয়েছে তাও পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে সরকারি স্কুল-কলেজের শিক্ষকদের, স্কুল-কলেজের শিক্ষকদের ও সদ্য সরকারিকৃত স্কুল-কলেজের এককথায় সকল শিক্ষকদের সার্টিফিকেট যাচাই করতে হবে। কেননা অতীতে দেখা গিয়েছে অনেক সরকারি স্কুল কলেজের কিংবা অন্যান্য দপ্তরের লোকেরা নকল সার্টিফিকেট দিয়েই তারা আজীবন চাকুরী করে গিয়েছেন এমনকি পেনশনও ভোগ করেছেন। আবার এমন কেউ দেখা দিয়েছে চাকুরী শেষ হওয়ার কাছাকাছি সময়ে তাদের সার্টিফিকেট জালিয়াতির বিষয়টি ধরা পড়েছে। তাই শুধু শিক্ষকদের নয়, দেশের যত ধরনের সরকারি ও বেসরকারি চাকরিজীবী রয়েছে তাদের সকলের সার্টিফিকেটগুলো যাচাই বাছাই করে দেশকে একটি নকলমুক্ত দেশে পরিণত করা খুবই প্রয়োজন। কেননা হয়তো এমন এক সময় দেখা প্রশ্ন দেখা দিতে পারে যে, সার্টিফিকেট যাচাই বাছাই করা সেটা শুধু শিক্ষকদের জন্য কেন অন্য ডিপার্টমেন্টে যারা চাকরি করে তাদের সার্টিফিকেট যাচাই করার প্রশ্ন দেখা দিতে পারে।
Tabiatkowser, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২০
এসব অসাধু শিক্ষকদের কারণে শিক্ষকদের চাকরি জাতীয়করণ করা সম্ভব হচ্ছে না। কেননা ভালোমতো জরিপ করলে হয়তো দেখা যাবে জাতীয়করণ করতে যেসব টাকা লাগবে ওই টাকার চেয়ে আরো অনেকগুণ বেশি এসমস্ত নকলবাজ শিক্ষকদের পিছনে ব্যয় হচ্ছে। তাই তাদের নকল সার্টিফিকেট গুলো ভালভাবে যাচাই বাছাই করে তাদেরকে চাকুরী হতে বাদ দেওয়া দরকার।
Tabiatkowser, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২০
এনটিআরসি শুরু থেকে বর্তমান পর্যন্ত নিবন্ধনধারী শিক্ষকদেরকে যেসব সার্টিফিকেট বিতরণ করেছে, এসব সার্টিফিকেটগুলো যাচাই-বাছাই করার জন্য সফটওয়্যার তৈরি করা ছাড়া এই জটিল কাজ কখনো সম্ভব হবে না। সাথে সাথেই এটাও বলেছি যে এনটিআরসিএ এর মধ্যে এমন কিছু দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা ও আছেন যারা অসাধু নিবন্ধনধারী শিক্ষকদের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা খেয়ে সার্টিফিকেট বিতরণ করেছে। এমনো দেখা গেছে যে হয়তো কোন সার্টিফিকেট কোন কেউ নেয়নি কিংবা নামের সাথে মিল আছে ওই সার্টিফিকেটও মোটা অংকের টাকার মাধ্যমে তারা জায়েজ করে দিয়েছে। তাই এসব সার্টিফিকেটগুলো চুলচেরা ভাবে যাচাই বাছাই করা প্রয়োজন। কেননা অনর্থক ও অন্যায় ভাবে বছরের পর বছর এসমস্ত নকলবাজ সার্টিফিকেটদারী শিক্ষকরা এভাবে সরকারের টাকা আত্মসাৎ করা কোনো একটি সভ্য দেশের কাম্য নয়। তাই এইসব অসাধু শিক্ষকদের বাছাই করা এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র।
Tabiatkowser, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২০
প্রতিষ্ঠান প্রধান/প্রধান শিক্ষকের উপর ঈমান আনলে হবে না। কারণ অনেক দুর্নীতিবাজ প্রধান শিক্ষক রয়েছেন, যারা মোটা অংকের টাকা পয়সা খেয়ে নকল সার্টিফিকেট ও অন্যান্য কাগজপত্র গুলো ঠিক করে দিবে এতে কোন সন্দেহ নাই। তাই দেশের সকল বোর্ড ও এন টি আর সি এর উচিত হবে একজন শিক্ষকের যত ধরনের শিক্ষার ব্যাকগ্রাউন্ড রয়েছে তা যাচাই করার জন্য অতি তাড়াতাড়ি একটি নিখুঁত সফটওয়্যার তৈরি করা। যার মাধ্যমে সূক্ষ্মভাবে শিক্ষকদের সকল ধরনের সার্টিফিকেট যাচাই করা সম্ভব হবে।