অতিরিক্ত ভর্তি ফি নেয়ার অভিযোগ - এইচএসসি/আলিম - দৈনিকশিক্ষা

অতিরিক্ত ভর্তি ফি নেয়ার অভিযোগ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি |

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরে সদ্য সরকারি হওয়া বাঞ্ছারামপুর ডিগ্রি কলেজে সরকারি নীতিমালার তোয়াক্কা না করে একাদশ শ্রেণীতে অতিরিক্ত ভর্তি ফি নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বোর্ড নির্ধারিত ভর্তি ফি’র দ্বিগুণেরও বেশি অতিরিক্ত টাকা নেয়া হয়েছে। এই নিয়ে অভিভাবকমহলে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বাঞ্ছারামপুর সরকারি ডিগ্রি কলেজে প্রত্যেকের কাছ থেকে ২২০০ টাকা করে নেয়া হয়েছে। সরকারি নীতিমালা তোয়াক্কা না করে কলেজের অধ্যক্ষ অতিরিক্ত ভর্তি ফি আদায় করছেন শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব সোহরাব হোসাইনের স্বাক্ষরিত ২১ এপ্রিল এক প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণীতে উপজেলা, পৌর এলাকার কলেজের জন্য ভর্তি ফি এক হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে অধ্যক্ষ আবদুর রহিম সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে জানান, বোর্ড আমাদের নির্ধারণ করে দিয়েছে ২২০০ টাকা ভর্তি ফি। সেভাবে আমরা টাকা নিচ্ছি। আমরা সাড়ে তিন হাজার টাকা নিতে প্রস্তাব করে ছিলাম ভর্তি ফি বাবদ নেয়ার জন্য। কিন্তু বোর্ড আমাদের নির্ধারণ করেছেন ২২০০ টাকা। প্রয়োজনে এ বিষয়ে বোর্ডে কথা বলেন, তা হলেই জানতে পারবেন। কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক অধ্যাপক জহিরুল ইসলাম পাটোয়ারী জানান, সরকারি কলেজে বিভিন্ন রকমের খরচ থাকে, তাই তাদের একটু বেশি টাকা নিতে বলেছি কিন্তু কোন খাতে কত টাকা নিচ্ছে তা রসিদে উল্লেখ করতে হবে।

আসছে বছর থেকেই পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্ত হচ্ছে প্রোগ্রামিং - dainik shiksha আসছে বছর থেকেই পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্ত হচ্ছে প্রোগ্রামিং ৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত সংসদ টিভিতে মাধ্যমিকের ক্লাস রুটিন - dainik shiksha ৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত সংসদ টিভিতে মাধ্যমিকের ক্লাস রুটিন এসএসসির ৭৫ শতাংশ ও জেএসসির ২৫ শতাংশে এইচএসসির ফল - dainik shiksha এসএসসির ৭৫ শতাংশ ও জেএসসির ২৫ শতাংশে এইচএসসির ফল ইবতেদায়ি ও দাখিল শিক্ষার্থীদের পঞ্চম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ - dainik shiksha ইবতেদায়ি ও দাখিল শিক্ষার্থীদের পঞ্চম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বেতনও ইএফটিতে - dainik shiksha প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বেতনও ইএফটিতে ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষার দায়িত্ব মাদরাসা বোর্ডের - dainik shiksha ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষার দায়িত্ব মাদরাসা বোর্ডের প্রতি স্কুলের তিন শিক্ষককে করতে হবে কৈশোরকালীন পুষ্টি প্রশিক্ষণ - dainik shiksha প্রতি স্কুলের তিন শিক্ষককে করতে হবে কৈশোরকালীন পুষ্টি প্রশিক্ষণ please click here to view dainikshiksha website