অধ্যক্ষকে মারধরের মামলায় ১১ শিক্ষকের জামিন - কলেজ - দৈনিকশিক্ষা

অধ্যক্ষকে মারধরের মামলায় ১১ শিক্ষকের জামিন

গোদাগাড়ী (রাজশাহী) প্রতিনিধি |

রাজশাহীর গোদাগাড়ী সরকারি কলেজের অধ্যক্ষকে মারধরের মামলায় ১১ শিক্ষককে জামিন দিয়েছে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত। গতকাল রোববার এ মামলার চার্জশিটভুক্ত ১১জন শিক্ষকের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করা হয়েছিল। সোমবার (১১ অক্টোবর) সকালে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আবদুল্লাহ আল আমিন ভুইয়ার আদালতে শিক্ষকরা আত্মসমর্পন করেন। পরে আদালত সব আসামিকে ৫ হাজার টাকার মুচলেকায় জামিন দেন।

মামালার নথি সূত্রে জানা যায়, ২০১৮ সালের ১৯ আগস্ট গোদাগাড়ী সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুর রহমানকে মারপিটের অভিযোগে অজ্ঞাত ৭-৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়। প্রথমে পুলিশ আসামি শনাক্ত না করে রিপোট পাঠায়। পরে অধ্যক্ষ না রাজি দাখিল করলে ৬ জনের নাম উল্লেখ করা হয়। পরবর্তীতে পিবিআই মামলার তদন্তের ভার পেলে ১৩ জন সাক্ষীর সাখ্য নিয়ে ১১ জন শিক্ষককে আসামী করে চার্জশীল দালিখ করলে গত রবিবার মামলাটি আমলে নিয়ে আমামীদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করলে শিক্ষকরা সোমবার আদালতে হাজির হলে সকল আমামীকে জাদিমন প্রদান করেন।মামলা নম্বর  জি আর ৪২৭/১৮।  

মামলার জামিনপ্রাপ্তরা হলো, গোদাগাড়ী সরকারি কলেজের উপাধ্যক্ষ ও নওগাঁ জেলার নিয়ামতপুর থানার কেন্দুয়া গ্রামের মুনসুর রহমানের ছেলে উমরুল হক (৫২), সমাজবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক ও গোদাগাড়ী উপজেলার কেল্লা বারইপাড়া গ্রামের মৃত এরফান আলীর ছেলে এ বি এম কামারুজ্জামান (৫৯), রাষ্ট্র বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক ও গোদাগাড়ী উপজেলার সারাংপুর গ্রামের আয়েজ উদ্দিন বিশ্বাসের ছেলে তাইনুস আলী (৩৫), দর্শন বিভাগের প্রভাষক ও নওগাঁ জেলার নিয়ামপুর  থানার তৈয়ব আলীর ছেলে মাইনুল ইসলাম (৪৬), সমাজকল্যাণ বিভাগের প্রভাষক ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদরের মৃত এমাজ উদ্দিনের ছেলে হান্নান হোসাইন (৫৯), মনবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক ও গোদাগাড়ী থানার বুজরুক গ্রামের জসিম উদ্দিন সরকারের ছেলে ফারুক হোসেন (৫৪)।

গোদাগাড়ী সরকারি কলেজের প্রাণিবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের নয়ানশুকা গ্রামের আলতাফ হোসেনের ছেলে শহীদুল হক, গোদাগাড়ী সরকারি কলেজের আইসিটি বিভাগের প্রভাষক ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গোমস্তাপুর থানার রোকনপুর গ্রামের বানী ইসরাইলের ছেলে ইউনুস আলী (৩৩), সহকারী অধ্যাপক ও রাজশাহী মহানগরীর রাজপাড়া থানার প্যারামেডিক্যাল রোডের মৃত আনোয়ার হোসেনের ছেলে জহিরুল ইসলাম (৫৪), মার্কেটিং বিভাগের  প্রভাষক আব্দুল করিম (৫৩) ও ব্যাংকিং বিমা বিভাগের প্রভাষক মাজহারুল ইসলাম (৫২)।

please click here to view dainikshiksha website