অনলাইন মিটিংয়ে ঢুকে উপাচার্যকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ - বিশ্ববিদ্যালয় - দৈনিকশিক্ষা

অনলাইন মিটিংয়ে ঢুকে উপাচার্যকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ

দৈনিকশিক্ষা ডেস্ক |

অনলাইন মিটিং ঢুকে বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তীকে অশালীন ভাষায় গালিগালাজ করার ঘটনা ঘটেছে। অনলাইন এক বৈঠকে বাইরের কেউ ঢুকে এই কাজ করেছে বলে অভিযোগ। এ নিয়ে আবারও তোলপাড় শান্তিনিকেতনে।

জানা গেছে, গতকাল মঙ্গলবার রাতে অনলাইন মাধ্যমে বিশ্বভারতীর একটি মিউজিক থেরাপি চলছিল। সেখানেই উপস্থিত ছিলেন উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী। ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের আরও অন্যান্য আধিকারিক এবং কর্মীরা। হঠাৎ সেখানে একটি অন্য অচেনা অ্যাকাউন্ট থেকে কেউ বা কারা ঢুকে পড়ে। ঢুকেই উপাচার্যের উদ্দেশে চালায় অশ্লীল অকথ্য গালিগালাজ। এই বিষয়টি অবশ্য বেশিক্ষণ চলতে পারেনি। ওই অচেনা অ্যাকাউন্টটিকে অনলাইন লিঙ্ক থেকে বের করে দেওয়া হয় এরপর।  

তবে গোটা ঘটনায় চরম অস্বস্তির মুখে পড়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। ওই মিউজিক থেরাপিতে উপস্থিত আধিকারিকরাও অপ্রস্তুত হয়ে পড়েন।

ইতোমধ্যে আবার ওই ঘটনার একটি অডিও ক্লিপ ভাইরাল হয়েছে নেটমাধ্যমে। তার সত্যতা অবশ্য যাচাই করে দেখা হয়নি। সেখানে শোনা যাচ্ছে অনলাইন থেরাপি চলাকালীন হঠাৎ কেউ বা কারা উপাচার্যের উদ্দেশে নোংরা ভাষায় গালি দিয়ে উঠেছেন।

উল্লেখ্য, বিশ্বভারতীর উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তীকে নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতরে ক্ষোভ রয়েছে। ছাত্রছাত্রীদের একাংশের মধ্যেও তিনি খুব একটা জনপ্রিয় নন। এর আগে একাধিকবার নানা বিতর্কিত মন্তব্য করে বিতর্কে জড়িয়েছেন বিদ্যুৎ চক্রবর্তী। তবে অনলাইনে এসে উপাচার্যকে এমন গালিগালাজ নজিরবিহীন ঘটনা।

কীভাবে অচেনা কেউ ওই অনলাইন মিটিং লিঙ্কটি পেলেন তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে বিশ্ববিদ্যালয়ে। তবে এ নিয়ে এখনও পর্যন্ত বিশ্বভারতী কিছু জানায়নি।

সূত্র: দ্য ওয়াল

ফাজিল পরীক্ষা স্থগিত - dainik shiksha ফাজিল পরীক্ষা স্থগিত মাস্ক ছাড়া বের হলেই জরিমানা করা হবে : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী - dainik shiksha মাস্ক ছাড়া বের হলেই জরিমানা করা হবে : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের - dainik shiksha উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের মাদরাসায়ও অনলাইন ক্লাস, খোলা থাকবে অফিস - dainik shiksha মাদরাসায়ও অনলাইন ক্লাস, খোলা থাকবে অফিস কওমি মাদরাসাকে বোর্ডের অধীনে নিয়ে আসা প্রয়োজন : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha কওমি মাদরাসাকে বোর্ডের অধীনে নিয়ে আসা প্রয়োজন : শিক্ষামন্ত্রী ভিসির পদত্যাগের দাবি অযৌক্তিক, চাইলেই সরানো যায় না : শিক্ষা উপমন্ত্রী - dainik shiksha ভিসির পদত্যাগের দাবি অযৌক্তিক, চাইলেই সরানো যায় না : শিক্ষা উপমন্ত্রী উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের - dainik shiksha উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের please click here to view dainikshiksha website