অনিয়মের অভিযোগে মিরপুর কলেজ অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু - কলেজ - দৈনিকশিক্ষা

অনিয়মের অভিযোগে মিরপুর কলেজ অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক |

দুর্নীতি, তহবিল তছরুপ, অর্থ আত্মসাৎসহ বহু অনিয়মের অভিযোগ মিরপুর কলেজের অধ্যক্ষ মো. গোলাম ওয়াদুদের বিরুদ্ধে। অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ এনে শিক্ষা মন্ত্রণালয়, মন্ত্রণালয়ের পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদফতর (ডিআইএ), দুদকসহ বিভিন্ন দফতরে অভিযোগ জমা দিয়েছেন কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক অধ্যক্ষসহ কয়েকজন শিক্ষক।

অধ্যক্ষের অনিয়ম-অপকর্ম তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন তারা। শিক্ষকদের অভিযোগ আমলে নিয়ে ইতিমধ্যে তদন্ত শুরু করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ডিআইএ। ডিআইএর তদন্ত দল গতকাল মিরপুর কলেজ সরেজমিনে পরিদর্শন করেছে। অভিযোগপত্র সূত্রে জানা গেছে, নিয়োগ পাওয়ার পর থেকেই বিভিন্ন অপকর্ম চালিয়ে আসছেন অধ্যক্ষ। শিক্ষকদের দাবি, অধ্যক্ষের নিয়োগও অবৈধ। কলেজের আর্থিক, উন্নয়ন, ক্রয়, শিক্ষক নিয়োগসহ এমন কোনো খাত নেই, যেখানে অধ্যক্ষ দুর্নীতি করেননি।

শিক্ষকদের অভিযোগ, কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক অধ্যক্ষ ইসহাক হোসেনকে অবসর দেখিয়ে ২০১২ সালের ফেব্রুয়ারিতে গভর্নিং বডির অনুমোদন ছাড়াই সিনিয়র আট শিক্ষককে ডিঙিয়ে তৎকালীন সভাপতি ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব দেন মো. গোলাম ওয়াদুদকে। এ ক্ষেত্রে বেসরকারি কলেজ শিক্ষকদের চাকরির শর্তাবলি রেগুলেশন ১৯৯৪ নীতিমালা ভঙ্গ করা হয়েছে। ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে নিয়োগের পর সরকারি অংশের অতিরিক্ত কলেজ অংশ থেকে অর্ধলক্ষাধিক টাকা বেতন গ্রহণ করতেন। ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ থেকে অধ্যক্ষ পদে নিয়োগের মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টিও অনিয়ম করে ২০১২ সালের ৫ মে গভর্নিং বডি সভায় বিবিধ হিসেবে অনুমোদন করা হয়।

সূত্র জানায়, অধ্যক্ষ গোলাম ওয়াদুদ উচ্চ আদালতের রায় ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্দেশনাও অমান্য করে কলেজ পরিচালনা করেছেন। ২০১২ সাল থেকে কলেজ পরিচালনা পর্ষদে শিক্ষকদের প্রত্যক্ষ ভোটে নির্বাচিত কোনো শিক্ষক প্রতিনিধি নেই বলেও অভিযোগ শিক্ষকদের।

৪৩ লাখ শিক্ষার্থীর টিউশন ফি-উপবৃত্তির হাজার কোটি টাকা বিতরণ শুরু - dainik shiksha ৪৩ লাখ শিক্ষার্থীর টিউশন ফি-উপবৃত্তির হাজার কোটি টাকা বিতরণ শুরু এসএসসি-এইসএসসি পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত শিগগির : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha এসএসসি-এইসএসসি পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত শিগগির : শিক্ষামন্ত্রী দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে - dainik shiksha দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবিতে ‘শিক্ষক-অভিভাবক’ সমাবেশ ২৬ জুন - dainik shiksha শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবিতে ‘শিক্ষক-অভিভাবক’ সমাবেশ ২৬ জুন এনজিওর হাতে যাচ্ছে সরকারি হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা! - dainik shiksha এনজিওর হাতে যাচ্ছে সরকারি হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা! বিলের মধ্যে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্র: এক চিঠিতেই আটকে গেল ভূমি অধিগ্রহণ - dainik shiksha বিলের মধ্যে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্র: এক চিঠিতেই আটকে গেল ভূমি অধিগ্রহণ ঢাকার রাস্তায় প্রাইভেট ক্যামেরা, ফুটেজের ব্যবসা! - dainik shiksha ঢাকার রাস্তায় প্রাইভেট ক্যামেরা, ফুটেজের ব্যবসা! নির্মাণাধীন ম্যাটসে মেঝে ভরাটে বালুর পরির্বতে মাটি - dainik shiksha নির্মাণাধীন ম্যাটসে মেঝে ভরাটে বালুর পরির্বতে মাটি উচ্চশিক্ষার ক্ষতি পোষাতে শিক্ষাবর্ষের সময় কমানো ও ছুটি বাতিলের পরামর্শ - dainik shiksha উচ্চশিক্ষার ক্ষতি পোষাতে শিক্ষাবর্ষের সময় কমানো ও ছুটি বাতিলের পরামর্শ please click here to view dainikshiksha website