অভিনব উপায়ে নকল করে বহিস্কার শেকৃবি ছাত্রলীগ নেতা - বিবিধ - দৈনিকশিক্ষা

অভিনব উপায়ে নকল করে বহিস্কার শেকৃবি ছাত্রলীগ নেতা

শেকৃবি প্রতিনিধি |

নকল করতে এবার অভিনব উপায় বার করলেন শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শেকৃবি) এক ছাত্রলীগ নেতা। তবে শেষ পর্যন্ত রক্ষা পেলেন না তিনি। পরীক্ষার হলে হাতেনাতে ধরা পড়লেন আলতাবুর নামে ওেই নেতা। এরপর ওই পরীক্ষা থেকে বহিস্কারও করা হয়। 

বুধবার (১২ জানুয়ারি) বিকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অনুষদের এগ্রিকালচারাল বোটানি বিভাগের ফাইনাল পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে নকল করার সময় ওই ছাত্রলীগ নেতাকে নকলসহ ধরেন। তিনি শেকৃবি শাখা ছাত্রলীগের উপ-সাংস্কৃতিক সম্পাদক। একই পরীক্ষায় সাবরিন আহমেদ শান্ত নামের আরেক শিক্ষার্থী ক্যালকুলেটরে লিখে নকল করার সময় ধরা পড়েছে বলে জানা যায়।

জানা যায়, ওই ছাত্রলীগ নেতার  বিরুদ্ধে প্রায়ই নকল করে পরীক্ষা দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। ইস্যু তৈরি করে পরীক্ষা পিছানোরও অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এছাড়াও নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষার্থী জানায়, ক্লাস চলাকালীন সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষিকাদের নিয়ে নানা অশালীন, কুরুচিপূর্ণ কথা বলে থাকেন।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর হারুনুর রশীদ বলেন, নকল করায় তাকে এক্সপেল করা হয়েছে। পরবর্তীতে এক্সাম কন্ট্রোলার তাকে শোকজ করবে। ৭ দিনের মধ্যে সে শোকজের জবাব দিবে তারপর পরীক্ষা শৃঙ্খলা কমিটিতে বিষয়টি উঠবে।

শেকৃবির কৃষি অনুষদের ডিন পরিমল কান্তি বিশ্বাস বলেন, নকলসহ ধরা পড়লে তাকে ওই পরীক্ষা থেকে বহিষ্কার করা হয়। পরে প্রশাসন বসে তার শাস্তি নির্ধারণ করে। আজকে কি শাস্তি দেওয়া হয়েছে জানি না। তবে নিয়ম অনুযায়ী যারা নকলসহ ধরেছে তাদের এবং প্রশাসনের সুপারিশ অনুযায়ী ভিসি তার শাস্তি অনুমোদন করবে।

ফাজিল পরীক্ষা স্থগিত - dainik shiksha ফাজিল পরীক্ষা স্থগিত মাস্ক ছাড়া বের হলেই জরিমানা করা হবে : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী - dainik shiksha মাস্ক ছাড়া বের হলেই জরিমানা করা হবে : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের - dainik shiksha উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের মাদরাসায়ও অনলাইন ক্লাস, খোলা থাকবে অফিস - dainik shiksha মাদরাসায়ও অনলাইন ক্লাস, খোলা থাকবে অফিস কওমি মাদরাসাকে বোর্ডের অধীনে নিয়ে আসা প্রয়োজন : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha কওমি মাদরাসাকে বোর্ডের অধীনে নিয়ে আসা প্রয়োজন : শিক্ষামন্ত্রী ভিসির পদত্যাগের দাবি অযৌক্তিক, চাইলেই সরানো যায় না : শিক্ষা উপমন্ত্রী - dainik shiksha ভিসির পদত্যাগের দাবি অযৌক্তিক, চাইলেই সরানো যায় না : শিক্ষা উপমন্ত্রী উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের - dainik shiksha উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের please click here to view dainikshiksha website