আকবর হত্যা : দ্রুত বিচারের দাবিতে জবি শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন - বিশ্ববিদ্যালয় - দৈনিকশিক্ষা

আকবর হত্যা : দ্রুত বিচারের দাবিতে জবি শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

জবি প্রতিনিধি |

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ম্যানেজমেন্ট বিভাগের ২০১৬-১৭ সেশনের শিক্ষার্থী আকবর হোসেন হত্যাকাণ্ডের এক বছর পেরিয়ে গেলেও প্রশাসন এখনো তদন্ত শেষ করতে পারেনি। তাই হত্যাকারীদের দ্রুত বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

শুক্রবার (৯ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষা শহীদ রফিক ভবনের সামনে আকবরের পরিবার ও সহপাঠীরা এই কর্মসূচি পালন করে।

মানববন্ধন শেষে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে আকবরের বড় বোন জবির সাবেক শিক্ষার্থী মোসা. লাবনী খানম আঁখি বলেন, গত বছরের ২৭ আগস্ট চট্টগ্রামের একটি ফ্লাইওভার থেকে ফেলে দিয়ে আমার ভাইকে হত্যা করা হয়। কে বা কারা হত্যাকাণ্ডটি ঘটিয়েছে প্রশাসন এখনো তা সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে বের করতে পারেনি।

তিনি বলেন, আহত অবস্থায় আকবরকে উদ্ধার করে যখন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়, তখন তার কোমরের বাম পাশে গভীর এক ক্ষত দেখা যায়। ফ্লাইওভার থেকে ফেলে দেওয়ায় আকবরের মাথার অনেকাংশ থেঁতলে যায়। মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হয়। টানা পাঁচদিন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে জীবন-মৃত্যুর সঙ্গে যুদ্ধ করে ১ সেপ্টেম্বর ভোরে আকবরের মৃত্যু হয়।

তিনি আরও বলেন, চিকিৎসকের বক্তব্য এবং চট্টগ্রাম খুলশী থানা পুলিশের সংগ্রহ করা আলামতের ভিত্তিতে প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ এটিকে পরিকল্পিত হত্যা বলে নিশ্চিত করে। তবে ঘটনার এক বছর পার হলেও অপরাধীরা ধরা-ছোঁয়ার বাইরে। পুলিশ দীর্ঘদিন সন্তোষজনক কোনো তথ্য সংগ্রহ করতে না পারায় তদন্তভার চট্টগ্রাম পিবিআইকে হস্তান্তর করা হয়। কিন্তু পিবিআইও এখনো কোনো অগ্রগতি করতে পারছে না।

  

মানববন্ধনে অংশ নিয়ে আকবরের সহপাঠী ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বলেন, আকবরকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। এক বছর পেরিয়ে গেলেও এই হত্যাকাণ্ডের রহস্য সম্পর্কে আমরা ধোঁয়াশায় রয়েছি। পিবিআই-এর হাতে তদন্তভার যাওয়ার পর আমরা আশা করেছিলাম যে দ্রুত রহস্য উদঘাটন হবে। কিন্তু চট্টগ্রাম পিবিআইও আমাদের কোনো সদুত্তর দিতে পারেনি।

একাদশে ভর্তি আগের পদ্ধতিতেই - dainik shiksha একাদশে ভর্তি আগের পদ্ধতিতেই এসএসসির ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন শুরু কাল - dainik shiksha এসএসসির ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন শুরু কাল এসএসসি ও সমমানে পাসের হার ৮৭ দশমিক ৪৪ শতাংশ - dainik shiksha এসএসসি ও সমমানে পাসের হার ৮৭ দশমিক ৪৪ শতাংশ এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল জানবেন যেভাবে - dainik shiksha এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল জানবেন যেভাবে ফলে এগিয়ে মেয়েরা - dainik shiksha ফলে এগিয়ে মেয়েরা পাসের হার কমলেও বেড়েছে জিপিএ-৫ - dainik shiksha পাসের হার কমলেও বেড়েছে জিপিএ-৫ ৫০ প্রতিষ্ঠানে শতভাগ ফেল - dainik shiksha ৫০ প্রতিষ্ঠানে শতভাগ ফেল ২ হাজার ৯৭৫ প্রতিষ্ঠানে সবাই পাস - dainik shiksha ২ হাজার ৯৭৫ প্রতিষ্ঠানে সবাই পাস শুধু এসএসসিতে পাসের হার ৮৮ দশমিক ১০ শতাংশ - dainik shiksha শুধু এসএসসিতে পাসের হার ৮৮ দশমিক ১০ শতাংশ ঢাকা বোর্ডে পাসের হার কমেছে - dainik shiksha ঢাকা বোর্ডে পাসের হার কমেছে ৯ স্কুল ও ৪৯ মাদরাসার কেউ পাস করতে পারেননি - dainik shiksha ৯ স্কুল ও ৪৯ মাদরাসার কেউ পাস করতে পারেননি দাখিলে পাস ৮২ দশমিক ২২ শতাংশ - dainik shiksha দাখিলে পাস ৮২ দশমিক ২২ শতাংশ please click here to view dainikshiksha website Execution time: 0.0055830478668213