আন্দোলনকারী প্রাথমিক শিক্ষকরা বিচ্ছিন্ন গ্রুপ : গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী (ভিডিও) - সমিতি সংবাদ - দৈনিকশিক্ষা

আন্দোলনকারী প্রাথমিক শিক্ষকরা বিচ্ছিন্ন গ্রুপ : গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী (ভিডিও)

নিজস্ব প্রতিবেদক |

রাজধানী ঢাকায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আন্দোলনকারী প্রাথমিক শিক্ষকরা বিচ্ছিন্ন গ্রুপ ছিলো বলে মন্তব্য করেছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন। আর প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন গ্রেড বৃদ্ধি ও বেতন বৈষম্য নিরসনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অত্যন্ত আন্তরিক বলে আবারো জানান তিনি। শনিবার (২ নভেম্বর) ময়মনসিংহে জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা একাডেমিতে (নেপ)  পিটিআই ইন্সট্রাক্টর ও ইউআরসি ইন্সট্রাক্টরদের প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন তিনি।

ভিডিও দেখতে এখানে ক্লিক করুন

তিনি বলেন, আন্দোলনকারীদের একটি বিচ্ছিন্ন গ্রুপ ছিল সেদিন। তারা এটেন্ড করেছিল বাকিরা করে নাই। সম্পূর্ণ আন্দোলন তারা করতে পারে নাই। আমি আগেই তাদের ডেকে কথা বলেছিলাম। পরে যখন আবার কথা হলো আপনারা আন্দোলন করলেন কেন? আপনাদের তো দাবি মেনে নিয়েছি। আমি চলে গেলাম কুড়িগ্রাম, সেখানে কমলাপুরে বসেছিলাম। পরে তারা (শিক্ষক নেতারা) বললো, আমরা নয় স্যার এই গ্রুপটা আগেই আসছিল। তারা এখানে নাচানাচি হইচই করছিল আর করবে না। আমি বললাম, যদি না করে তাহলে আমি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলবো।

প্রতিমন্ত্রী জানান, গত সোমবার আমি সচিব মহোদয়কে সাথে নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাথে বসেছি। পরে আমরা দুজনই কথা বললাম। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী অত্যন্ত আন্তরিক। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, এটা তো আমি দিয়ে দিয়েছে তাদের। তাদের বেতন বৈষ্যম ও গ্রেডের পরিবর্তনের বিষয়টিতো ইশতেহারে আছে। অসুবিধাটা কই।

গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, অর্থমন্ত্রণালয়ের বক্তব্য হলো প্রধান শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড দিলে ডিপিওদের সঙ্গে সাংঘর্ষিক হয়। এখন যে শিক্ষকরা আন্দোলন করছেন আমি সকলকে নিয়ে বসেছি। বলেছি তাদের বিষয়টি আমি দেখব। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে বলে এটা করা হবে। 

তিনি কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্য  বলেন, এই প্রশিক্ষণ থেকে প্রাপ্ত জ্ঞান শিক্ষকদের মধ্যে সঞ্চারণ করবেন। শিক্ষকগণ  লব্ধ জ্ঞান  শিশুদের প্রতিফলিত করবেন যা মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা অর্জনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। শিক্ষা কর্মকর্তাদের পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধি ও মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা অর্জনে এই বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশে বর্তমানে ৬৫ হাজার ৬২৬ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। বিদ্যালয়ে গমনোপযোগী প্রায় সকল শিশুকে বিদ্যালয়ে ভর্তি করাতে সক্ষম হয়েছি। এখন টেকসই উন্নয়নের জন্য মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা অর্জনের লক্ষ্যে কাজ করছি।

নেপ- এর মহাপরিচালক মোঃ শাহ আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে  ময়মনসিংহের জেলা প্রশাসক মোঃ মিজানুর রহমান ও প্রাথমিক শিক্ষার বিভাগীয়  উপ-পরিচালক মোঃ আনোয়ার হোসেন সহ অন্যান্য উর্ধ্বতন কর্মকতাগণ উপস্থিত ছিলেন। দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আগত পিটিআই ইন্সট্রাক্টর ও ইউ আর সি ইন্সট্রাক্টরগণ প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করেন। 

এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা দু’একমাস পেছাতে পারে - dainik shiksha এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা দু’একমাস পেছাতে পারে প্রথম থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত লটারির মাধ্যমে ভর্তি : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha প্রথম থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত লটারির মাধ্যমে ভর্তি : শিক্ষামন্ত্রী এসএসসির ৭৫ শতাংশ ও জেএসসির ২৫ শতাংশে এইচএসসির ফল - dainik shiksha এসএসসির ৭৫ শতাংশ ও জেএসসির ২৫ শতাংশে এইচএসসির ফল অষ্টম শ্রেণি উত্তীর্ণদের সার্টিফিকেট দেবে শিক্ষাবোর্ডগুলোই - dainik shiksha অষ্টম শ্রেণি উত্তীর্ণদের সার্টিফিকেট দেবে শিক্ষাবোর্ডগুলোই অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়নে শিক্ষকদের জন্য নতুন নির্দেশনা - dainik shiksha অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়নে শিক্ষকদের জন্য নতুন নির্দেশনা মাদরাসায় জ্যেষ্ঠ প্রভাষকের পদ - dainik shiksha মাদরাসায় জ্যেষ্ঠ প্রভাষকের পদ এমপিওর অর্ধেক টাকা পাওয়ার শর্তে জাল সনদধারীকে নিয়োগ দিয়েছিলেন অধ্যক্ষ - dainik shiksha এমপিওর অর্ধেক টাকা পাওয়ার শর্তে জাল সনদধারীকে নিয়োগ দিয়েছিলেন অধ্যক্ষ please click here to view dainikshiksha website