ইনডিপেনডেন্স কাপের শিরোপা মধ্যাঞ্চলের - খেলাধুলা - দৈনিকশিক্ষা

ইনডিপেনডেন্স কাপের শিরোপা মধ্যাঞ্চলের

সিলেট প্রতিনিধি |

মূল কাজটা প্রথম ইনিংসেই সেরে ফেলেন ওয়ালটন মধ্যাঞ্চলের বোলাররা। কন্ডিশন ও উইকেটের সুবিধা নিয়ে বিসিবি দক্ষিণাঞ্চলকে মাত্র ১৬৩ রানে বেঁধে ফেলেন সৌম্য-মোসাদ্দেকরা। ইনডিপেনডেন্স কাপের শিরোপা জয় মধ্যাঞ্চলের জন্য তখন শুধুই সময়ের ব্যাপার। দক্ষিণাঞ্চলের হয়ে খেলা জাতীয় দলের বোলাররা দ্রুত কিছু উইকেট নিয়েও মধ্যাঞ্চলের জয় থামাতে পারেননি। শেষ পর্যন্ত ৭ ওভার ৩ বল হাতে রেখে ৬ উইকেটের জয়ে শিরোপা জিতেছে মধ্যাঞ্চল। 

দলটির দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান মিজানুর রহমান ও সৌম্য সরকার ভালো শুরু এনে দেন। দুজন মিলে ৬৫ রান যোগ করে বাকিদের কাজটা সহজ করে দেন। কিন্তু জাতীয় দলের বাঁহাতি স্পিনার নাসুম আহমেদের এক স্পেলে চোখের পলকে ৩ উইকেট হারায় মধ্যাঞ্চল। আরেক স্পিনার মেহেদী হাসান ১ উইকেট নিলে ১১ রানের মধ্যে ৪ উইকেট হারিয়ে বসে দলটি।

তবে এরপর আর উইকেট পড়তে দেননি অধিনায়ক মোসাদ্দেক ও আল আমিন জুনিয়র। দুজনের ৮৮ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি শিরোপা জেতায় মধ্যাঞ্চলকে। ৬৯ বল খেলে ৫৩ রানে অপরাজিত ছিলেন আল আমিন। ৮৫ বলে ৩৩ রানের ইনিংস এসেছে অধিনায়ক মোসাদ্দেকের ব্যাট থেকে। জয়সূচক রানটিও এসেছে তাঁর ব্যাট থেকে। ৪৩তম ওভারে ফরহাদ রেজার বল কাভারে ঠেলে মোসাদ্দেক এক রান নিয়েই শিরোপা জয়ের উল্লাসে মেতেছেন মধ্যাঞ্চলের ক্রিকেটাররা। ১০ ওভার ৩২ রান দিয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট দক্ষিণাঞ্চলের নাসুমের।

এর আগে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ভালো শুরু পেলেও বড় রান পায়নি দক্ষিণাঞ্চল। মধ্যাঞ্চলের বাঁহাতি স্পিন আর মিডিয়াম পেসের বিপক্ষে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে শেষ পর্যন্ত ৪৮ ওভার ৫ বলে ১৬৩ রান করে দলটি। মধ্যাঞ্চলের হয়ে ২টি করে উইকেট নিয়েছেন মোসাদ্দেক, সৌম্য, নাজমুল, মুরাদ ও মৃত্যুঞ্জয়।

ফাজিল পরীক্ষা স্থগিত - dainik shiksha ফাজিল পরীক্ষা স্থগিত মাস্ক ছাড়া বের হলেই জরিমানা করা হবে : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী - dainik shiksha মাস্ক ছাড়া বের হলেই জরিমানা করা হবে : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের - dainik shiksha উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের মাদরাসায়ও অনলাইন ক্লাস, খোলা থাকবে অফিস - dainik shiksha মাদরাসায়ও অনলাইন ক্লাস, খোলা থাকবে অফিস কওমি মাদরাসাকে বোর্ডের অধীনে নিয়ে আসা প্রয়োজন : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha কওমি মাদরাসাকে বোর্ডের অধীনে নিয়ে আসা প্রয়োজন : শিক্ষামন্ত্রী ভিসির পদত্যাগের দাবি অযৌক্তিক, চাইলেই সরানো যায় না : শিক্ষা উপমন্ত্রী - dainik shiksha ভিসির পদত্যাগের দাবি অযৌক্তিক, চাইলেই সরানো যায় না : শিক্ষা উপমন্ত্রী উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের - dainik shiksha উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের please click here to view dainikshiksha website