এনটিআরসিএর মাধ্যমে নিয়োগপ্রাপ্ত বেতন বঞ্চিত শিক্ষকদের মানববন্ধন - এমপিও - দৈনিকশিক্ষা

এনটিআরসিএর মাধ্যমে নিয়োগপ্রাপ্ত বেতন বঞ্চিত শিক্ষকদের মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক |

বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এমপিওভুক্ত শিক্ষক হিসেবে যোগদান করে নয় মাস ধরে বেতন না পেয়ে ঢাকায় মানববন্ধন করেছেন শিক্ষকরা। সোমবার (২১ অক্টোবর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে চত্বরে মানববন্ধন কর্মসূচিতে সারাদেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আসা এই শিক্ষকরা তাদের সমস্যার জন্য বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ ‘এনটিআরসিএ’  এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর ‘মাউশি’কে দায়ী করেছেন। কর্মসূচি থেকে সমস্যা সমাধানে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়েছেন শিক্ষকরা। 

মানববন্ধনে ‘কী আজব দেশটারে ভাই, কারও বেতন আছে কারও নাই’,‘নিয়োগ আছে, বেতন নাই, ৯ মাস পর মাউশি বলে চাকরি নাই’ এমন নানা স্লোগান সম্বলিত প্লাকার্ড প্রদর্শণ করেন। সুপারিশপ্রাপ্ত বেসরকারি শিক্ষক পরিষদের ব্যানারে আয়োজিত এই কর্মসূচিতে সংগঠনের আহবায়ক শাহাদৎ হোসেন বলেন, এক পদের জায়গায় অন্য পদে রিকুইজিশন, একটিমাত্র পদের জন্য একাধিক প্রার্থী রিকুইজিশন, নারী কোটায় ভুল রিকুইজিশনে পুরুষ প্রার্থীকে সুপারিশ করায় বেতন ছাড়া চাকরি করার এই সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন তারা। এনটিআরসিএ কর্তৃক সুপারিশকৃত শিক্ষকদের সঠিক পদে যোগদান এবং যথাযথ এমপিওভুক্তির দাবি জানান তিনি। বলেন, এদেশে একমাত্র প্রধানমন্ত্রী ছাড়া কোনো নেতৃস্থানীয়রাই তাদের দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করছে না।

শিক্ষকরা জানান, এমপিওভুক্ত হিসেবে এনটিআরসিএ সুপারিশ করার পর আমরা শিক্ষক হিসেবে যোগদান করি। কিন্তু নানান বিশৃঙ্খলার কারণে গত নয় মাস যাবত বেতন পাচ্ছি না। এটি খুবই দুঃখের বিষয়। চাকরি পেয়েও বেকার অবস্থায় জীবনযাপন করছি। হাজার হাজার শিক্ষক চরম হতাশায় দিন কাটাচ্ছি।
 
সুপারিশপ্রাপ্ত বেসরকারি শিক্ষক পরিষদের আহবায়ক শাহাদৎ হোসেন জানান, দাবি আদায়ে তারা এনটিআরসিএ চেয়ারম্যানের সঙ্গে দেখা করবেন। তার সাথে আলোচনা সাপেক্ষে কর্তৃপক্ষকে ১৫ দিন সময় দেয়া হবে। এরপর যথাযথ পদক্ষেপ নেয়া না হলে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

গত বছরের ১৮ ডিসেম্বর এনটিআরসিএ বেসরকারি স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসায় ৩৯ হাজার ৫৩৫টি পদে শিক্ষক নিয়োগে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করে। প্রায় ৪০ হাজার শূন্য পদের (এমপিও এবং নন এমপিও পদে) বিপরীতে নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মধ্য থেকে গত ২৪ জানুয়ারি নিয়োগের সুপারিশ করে। কিন্তু রিকুইজশনের ভুলের কারণে এমপিওভুক্তির জন্য সুপারিশকৃতদের মধ্যেও ৩ হাজার শিক্ষক বেতনের সরকারি অংশ পাচ্ছেন না বলে আন্দোলনরত শিক্ষকরা জানান। তারা বলেন, এছাড়া প্রায় ৫ হাজার শিক্ষক যোগদানই করতে পারেননি। এই শিক্ষকরা তাদের সমস্যার জন্য এনটিআরসিএ এবং মাউশির সমন্বয়হীনতাকে দায়ী করছেন।

আপাতত ক্লাস সপ্তাহে ১ দিন : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha আপাতত ক্লাস সপ্তাহে ১ দিন : শিক্ষামন্ত্রী পরীক্ষা ছাড়া এইচএসসির ফল প্রকাশে আইন পাস, দু’দিনেই প্রজ্ঞাপন - dainik shiksha পরীক্ষা ছাড়া এইচএসসির ফল প্রকাশে আইন পাস, দু’দিনেই প্রজ্ঞাপন ৯ম গ্রেডে উন্নীত করার দাবিতে একাট্টা হচ্ছে সব সরকারি কর্মচারী সংগঠন - dainik shiksha ৯ম গ্রেডে উন্নীত করার দাবিতে একাট্টা হচ্ছে সব সরকারি কর্মচারী সংগঠন নো মাস্ক নো স্কুল, ক্লাস হবে শিফটে : দুশ্চিন্তায় বড় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান - dainik shiksha নো মাস্ক নো স্কুল, ক্লাস হবে শিফটে : দুশ্চিন্তায় বড় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সাংবাদিকতার অনন্য উচ্চতায় পৌঁছে গিয়েছিলেন মিজানুর রহমান : স্মরণসভায় জেলা জজ - dainik shiksha সাংবাদিকতার অনন্য উচ্চতায় পৌঁছে গিয়েছিলেন মিজানুর রহমান : স্মরণসভায় জেলা জজ প্রাথমিকে ঝরে পড়ার হার প্রায় শূন্যের কোটায় নেমে এসেছে, দাবি প্রতিমন্ত্রীর - dainik shiksha প্রাথমিকে ঝরে পড়ার হার প্রায় শূন্যের কোটায় নেমে এসেছে, দাবি প্রতিমন্ত্রীর মাদরাসা শিক্ষার সমস্যার সমাধান দ্রুতই : শিক্ষা উপমন্ত্রী - dainik shiksha মাদরাসা শিক্ষার সমস্যার সমাধান দ্রুতই : শিক্ষা উপমন্ত্রী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার গাইড লাইন প্রকাশ, তিন ফুট দূরত্বে ক্লাসরুমের বেঞ্চ - dainik shiksha শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার গাইড লাইন প্রকাশ, তিন ফুট দূরত্বে ক্লাসরুমের বেঞ্চ ক্লাসরুমে সর্বোচ্চ ১৫ শিক্ষার্থী, প্রতি বেঞ্চে ১ জন - dainik shiksha ক্লাসরুমে সর্বোচ্চ ১৫ শিক্ষার্থী, প্রতি বেঞ্চে ১ জন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে প্রস্তুতি ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে - dainik shiksha শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে প্রস্তুতি ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে please click here to view dainikshiksha website