চট্টগ্রামের শিশু বাগ স্কুল ভবন ভাঙ্গার ওপর স্থিতাবস্থা জারি - স্কুল - দৈনিকশিক্ষা

চট্টগ্রামের শিশু বাগ স্কুল ভবন ভাঙ্গার ওপর স্থিতাবস্থা জারি

নিজস্ব প্রতিবেদক |

ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনের স্মৃতিবিজড়িত চট্টগ্রামের ঐতিহাসিক যতীন্দ্রমোহন সেনগুপ্তের ভবন, যা এখন শিশুবাগ স্কুল হিসেবে পরিচিত। এর অবকাঠামো ও জায়গার দখল অবস্থানের ওপর স্থিতাবস্থা বজায় রাখকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। চট্টগ্রামের কোতোয়ালি থানার রহমতগঞ্জ এলাকায় ওই ভবনটির অবস্থিত।

ওই ভবনটি রক্ষায় ব্যর্থতা চ্যালেঞ্জ করে করা এক রিটের প্রাথমিক শুনানি করে গত বুধবার বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

‘শিশুবাগ স্কুলের ভবন ভাঙা নিয়ে উত্তেজনা’ শিরোনামে দৈনিক আজাদী পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদন যুক্ত করে আইনজীবী এম মাসুদ আলম চৌধুরী বুধবার রিটটি দায়ের করেন।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী হাসান এম এস আজিম। সঙ্গে ছিলেন সনাতন হিন্দু আইনজীবী ঐক্য পরিষদের সভাপতি ও দেশীয় সাংস্কুতি পরিষদের সভাপতি অ্যাডভোকেট গৌরাঙ্গ চন্দ্র কর, চৈতালী চক্রবর্তী। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায়।

পরে আইনজীবী হাসান এম এস আজিম আদালত থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের বলেন, ‘'ব্র্রিটিশবিরোধী আন্দোলনে ভূমিকা রাখা পেশায় আইনজীবী যতীন্দ্রমোহন সেনগুপ্ত ছিলেন সর্বভারতীয় কংগ্রেসের নেতা। হাইকোর্ট রুল দিয়ে ঐতিহাসিক ওই ভবন ও জায়গার দখল এবং অবস্থানের ওপর এক মাসের জন্য স্থিতাবস্থা বজায় রাখার আদেশ দিয়েছেন। ফলে স্কুলটি ভাঙা যাবে না। ৮ ফেব্রুয়ারি পরবর্তী শুনানির জন্য দিন রাখা হয়েছে।’

রুলে ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনের স্মৃতিবিজড়িত ঐতিহাসিক যতীন্দ্রমোহন সেনগুপ্ত ভবন, যা বর্তমানে শিশুবাগ স্কুল (তফসিলি জমি) হিসেবে পরিচিত, তা রক্ষায় বিবাদীদের ব্যর্থতা কেন বেআইনি হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়েছে। পাশাপাশি ঐতিহাসিক ওই ভবন পুরাকীতির্র তালিকায় অন্তভুক্ত করতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা–ও জানতে চাওয়া হয়েছে। সংস্কৃতিসচিব, প্রতœতত্ত্ব অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ কমিশনার, কোতোয়ালি থানার ওসিসহ বিবাদীদের চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, নগরের রহমতগঞ্জ এলাকার শিশুবাগ স্কুলের ভবন ভাঙা নিয়ে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে। ৪ জানুয়ারি দুপুরে ভবন ভাঙাকালীন দুই পক্ষকে মুখোমুখি অবস্থান নিতে দেখা যায়। পরে হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আইনজীবী রানা দাশগুপ্তসহ বিভিন্ন ব্যক্তির হস্তক্ষেপে ভবন ভাঙা স্থগিত রাখা হয়। যদিও এর আগেই স্কুলের বেঞ্চ-টেবিলসহ বিভিন্ন সরঞ্জাম বের করে ভবনের ওপরের একাংশ বুলডোজার দিয়ে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়। 

আরও বলা হয়, স্থানীয় লোকজনের দাবি, স্কুলটি ব্র্রিটশবিরোধী আন্দোলনের স্মৃতিবিজড়িত বাড়ি, যা ঐতিহাসিক নিদর্শন হিসেবে দাঁড়িয়ে আছে। ভারতীয় কংগ্রেসের নেতা যাত্রামোহন সেনগুপ্ত বাড়িটি নির্মাণ করেছিলেন। চট্টগ্রামের এই আইনজীবীর ছেলে হলেন দেশপ্রিয় যতীন্দ্রমোহন সেনগুপ্ত। ব্যারিস্টার যতীন্দ্রমোহনও ছিলেন সর্বভারতীয় কংগ্রেসের নেতা। তিনি কলকাতার মেয়রও হয়েছিলেন। ইংরেজ স্ত্রী নেলী সেনগুপ্তাকে নিয়ে কিছুদিন ভবনটিতে ছিলেন তিনি।

অনুদানের টাকা পেতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের অনলাইন আবেদন শুরু ১ ফেব্রুয়ারি - dainik shiksha অনুদানের টাকা পেতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের অনলাইন আবেদন শুরু ১ ফেব্রুয়ারি উপবৃ্ত্তি পেতে প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের জন্ম নিবন্ধন বাধ্যতামূলক - dainik shiksha উপবৃ্ত্তি পেতে প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের জন্ম নিবন্ধন বাধ্যতামূলক পিকে হালদার কাণ্ডে এন আই খানের নাম ভুলভাবে যুক্ত হওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকের আবেদন - dainik shiksha পিকে হালদার কাণ্ডে এন আই খানের নাম ভুলভাবে যুক্ত হওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকের আবেদন বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় ন্যূনতম ফি নেয়ার সিদ্ধান্ত - dainik shiksha বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় ন্যূনতম ফি নেয়ার সিদ্ধান্ত সংসদে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবি - dainik shiksha সংসদে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবি সব সহকারী শিক্ষককে ১৩তম গ্রেডে বেতন দিতে অর্থ মন্ত্রণালয়ের সম্মতি - dainik shiksha সব সহকারী শিক্ষককে ১৩তম গ্রেডে বেতন দিতে অর্থ মন্ত্রণালয়ের সম্মতি প্রাথমিকে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা জানতে চেয়ে চিঠি - dainik shiksha প্রাথমিকে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা জানতে চেয়ে চিঠি please click here to view dainikshiksha website