ছাত্রীকে ভারতে পাচারের চেষ্টা, খালু গ্রেফতার - বিবিধ - দৈনিকশিক্ষা

ছাত্রীকে ভারতে পাচারের চেষ্টা, খালু গ্রেফতার

যশোর প্রতিনিধি |

যশোরের মণিরামপুরে ষষ্ঠ শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে ভারতে পাচারের সময় হাবিবুর রহমান নামে এক পাচারকারীকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে জনতা। গ্রেফতার হাবিবুর উপজেলার কিসমত চাকলা গ্রামের ওয়াজেদ গায়েনের ছেলে। তিনি সম্পর্কে কিশোরীর খালু। মাত্র ১৬ হাজার টাকায় ওই কিশোরীকে দালালের হাতে তুলে দেন তিনি। এ ঘটনায় শনিবার (১৫ জানুয়ারি) দুপুরে ওই কিশোরীর মা বাদী হয়ে মণিরামপুর থানায় মামলা করেছেন।

ওই ছাত্রীর মা দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, আমার স্বামী দিনমজুর। পারখাজুরা আশ্রয়ণ পল্লীতে আমরা থাকি। শুক্রবার বিকেলে আমার বোন জামাই হাবিবুর আমাদের পল্লীতে আসেন। তিনি আমার মেয়েকে বোরখা কিনে দেয়ার কথা বলে স্থানীয় কাঁঠালতলা বাজারে নিয়ে যান। ভাল বোরখা না পাওয়ার অজুহাত দিয়ে পরে মেয়েকে নিয়ে মোটরসাইকেল যোগে ঝিকরগাছার বাঁকড়ার উদ্দেশে রওয়ানা দেন হাবিবুর। পরে বাঁকড়া বাজারে না নিয়ে পাশের মুকুন্দুপুর মহিলা মাদরাসার সামনে নিয়ে যান। সেখানে থ্রি হুইলার (সিএনজি) নিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলো দুই দালাল। তখন তাদের কথায় সন্দেহ হলে আমার মেয়ে চিৎকার করে। পরে আশপাশের লোকজন জড়ো হয়ে হাবিবুরকে আটক করে পুলিশে দেয়।

মণিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূর-ই-আলম সিদ্দীকি দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, ১৬ হাজার টাকায় কলারোয়া এলাকার পাকুড়িয়া গ্রামের কবির হোসেনের কাছে স্কুলছাত্রীকে বিক্রি করে দেয় হাবিবুর। বিকেলে বাড়ি থেকে নিয়ে কিছুদূর যাওয়ার পর ঝিকরগাছার মুকুন্দুপুর এলাকায় দালাল কবির ও তার স্ত্রী মনোয়ারা হাবিবুরের সাথে যুক্ত হয়। সেখানে তাদের কথাবার্তায় সন্দেহ হলে কান্নাকাটি শুরু করে মেয়েটি। কান্নাকাটি শুনে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসেন। পরে তারা বাঁকড়া ফাঁড়িতে খবর দিলে পুলিশ হাবিবুরকে আটক করে এবং ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে হেফাজতে নেয়।

ওসি আরও বলেন, লোকজন জড়ো হতে দেখে কবির ও তার স্ত্রী পালিয়ে যায়। রাতে বাঁকড়া পুলিশ আমাদের খবর দিলে পুলিশ পাঠিয়ে ওদের থানায় নিয়ে আসি। এ ঘটনায় মেয়েটির মা বাদী হয়ে মানবপাচার আইনে মামলা করেছেন। শনিবার দুপুরে হাবিবুরকে আদালতে হাজির করা হয়েছে।

ফাজিল পরীক্ষা স্থগিত - dainik shiksha ফাজিল পরীক্ষা স্থগিত মাস্ক ছাড়া বের হলেই জরিমানা করা হবে : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী - dainik shiksha মাস্ক ছাড়া বের হলেই জরিমানা করা হবে : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের - dainik shiksha উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের মাদরাসায়ও অনলাইন ক্লাস, খোলা থাকবে অফিস - dainik shiksha মাদরাসায়ও অনলাইন ক্লাস, খোলা থাকবে অফিস কওমি মাদরাসাকে বোর্ডের অধীনে নিয়ে আসা প্রয়োজন : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha কওমি মাদরাসাকে বোর্ডের অধীনে নিয়ে আসা প্রয়োজন : শিক্ষামন্ত্রী ভিসির পদত্যাগের দাবি অযৌক্তিক, চাইলেই সরানো যায় না : শিক্ষা উপমন্ত্রী - dainik shiksha ভিসির পদত্যাগের দাবি অযৌক্তিক, চাইলেই সরানো যায় না : শিক্ষা উপমন্ত্রী উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের - dainik shiksha উপবৃত্তির টাকা পাঠানো শুরু, দ্রুত তুলতে হবে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের please click here to view dainikshiksha website