জিপিএ-৫ খুবই ভয়ংকর ব্যাপার : ড. জাফর ইকবাল - বিশ্ববিদ্যালয় - দৈনিকশিক্ষা

জিপিএ-৫ খুবই ভয়ংকর ব্যাপার : ড. জাফর ইকবাল

নিজস্ব প্রতিবেদক |

শিক্ষাবিদ ও লেখক মুহম্মদ জাফর ইকবাল দেশের মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের গ্রেডিং পদ্ধতি জিপিএ-৫ নিয়ে আক্ষেপ প্রকাশ করেছেন। তিনি জিপিএ-৫–কে ‘খুবই ভয়ংকর ব্যাপার’ বলে মন্তব্য করেছেন।

বুধবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) মিলনায়তনে পঞ্চম বাংলাদেশ রোবট অলিম্পিয়াড ২০২২-এর সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেন, একটা সময় ছিল, যখন কেউ আমাকে বলত, এই যে আমার ছেলে বা মেয়েটা জিপিএ-৫ পেয়েছে। বলতাম বাহ্ কী চমৎকার! তারপর আস্তে আস্তে দেখতে লাগলাম, জিপিএ-৫ পাওয়াটা আসলে খুবই ভয়ংকর ব্যাপার। কোনো মা-বোন যখন বলেন যে আমার ছেলে বা মেয়েটা জিপিএ-৫ পেয়েছে, আমি বলি যে আহারে, বাচ্চাটাকে কত কষ্ট করতে হইছেরে, স্কুলে যেতে হইছেরে, কোচিং করতে হইছেরে, তারপর প্রাইভেট পড়তে হইছে, গাইড বই মুখস্থ করতে হইছেরে, পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস হইছেরে, বাপ-মা ফেসবুক থেকে প্রশ্ন ডাউনলোড করে সলভ করছেরে, তারপর সেটা মুখস্থ করাইছেরে...আহারে, বাচ্চাটার কষ্ট হইছে! আমার ভেতরে কোনো আনন্দ নেই৷ তারপরও কোনোভাবে যদি ফল একটু খারাপ হয়ে যায়, বাবা-মা, আত্মীয়স্বজন বাচ্চাটাকে বকে ও গালাগাল করে। আমার বুকটা একদম ভেঙে যায়, যখন দেখি যে পরীক্ষার ফল খারাপ হওয়ায় অমুক জায়গায় একটা ছেলে আত্মহত্যা করেছে। তোমরা এগুলো নিয়ে মাথা ঘামাবা না। তোমরা তোমাদের দেড় কেজি ওজনের মস্তিষ্কটাকে বাঁচিয়ে রাখো৷ ব্যস, আর কিছু লাগবে না৷

তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি অধিদপ্তর, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোবোটিকস অ্যান্ড মেকাট্রনিকস ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ এবং বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক যৌথভাবে দুই দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

মুহম্মদ জাফর ইকবাল অনুষ্ঠানের প্রতিযোগী ও তাঁদের অভিভাবকদের উদ্দেশে বলেন, ‘সবাই পুরস্কার পাবে না, কেউ কেউ পাবে। পুরস্কার পাওয়াটাই বড় কথা নয়, পুরস্কার না পেলে জীবন বৃথা যায় না। আমাদের দেশের এতগুলো ছেলেমেয়ে রোবট নিয়ে কাজ করেছেন। ৫০ বছর আগে আমরা যখন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তাম, তখন ভাবতাম যে রোবট কি আমরা কোনো দিন পাব, রোবট কি কোনো দিন দেখব? সে জন্য আমি বানিয়ে বানিয়ে রোবটের গল্প লিখতাম। আর এখন তোমরা (খুদে শিক্ষার্থী) নিজেরা রোবট তৈরি করছ। খুব চমৎকার লাগে দেখতে!’

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন, বাচ্চাদের সুকুমার বৃত্তি-চিন্তার সক্ষমতার বিকাশ এবং পরীক্ষার চাপ কমানোর বিষয়টি নতুন পাঠ্যসূচিতে ইন্ট্রোডিউস করতে হবে। ষষ্ঠ শ্রেণি থেকে সেটি শুরু হচ্ছে। আমরা চেষ্টা করছি। এ ক্ষেত্রে বাবা-মা ও শিক্ষকদের সহযোগিতা লাগবে। 

তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. মোস্তফা কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও বক্তব্য দেন তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব এন এম জিয়াউল আলম। এতে স্বাগত বক্তব্য দেন বাংলাদেশ রোবট অলিম্পিয়াডের সভাপতি লাফিফা জামাল। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোবোটিকস অ্যান্ড মেকাট্রনিকস ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের চেয়ারপারসন সেঁজুতি রহমান। আলোচনা পর্ব শেষে পঞ্চম রোবট অলিম্পিয়াডে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন মুহম্মদ জাফর ইকবাল ও মহিবুল হাসান চৌধুরী।

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে মোট ছয়টি ক্যাটাগরিতে সিনিয়র ও জুনিয়র গ্রুপে অনুষ্ঠিত হয় এবারের রোবট অলিম্পিয়াড। এগুলো হলো ক্রিয়েটিভ ক্যাটাগরি (জুনিয়র), ক্রিয়েটিভ ক্যাটাগরি (চ্যালেঞ্জ), ফিজিক্যাল কম্পিউটিং (চ্যালেঞ্জ), রোবোটিকস কুইজ (জুনিয়র), রোবোটিকস কুইজ (চ্যালেঞ্জ) ও রোবট ইন মুভি৷ এর মধ্যে পাঁচটি ক্যাটাগরিতে (ফিজিক্যাল কম্পিউটিং বাদে) সোনা জিতেছেন যথাক্রমে চট্টগ্রামের উইলিয়াম কেরি একাডেমির জাইমা জাহিন ওয়ারা, ঢাকায় অবস্থিত চট্টগ্রাম গ্রামার স্কুলের তাফসির তাহরিম, বরিশাল জেলা স্কুলের মো. সামিন মুস্তাকিম, কুষ্টিয়ার জহির উদ্দিন উচ্চবিদ্যালয়ের মো. সাফায়েত উল্লাহ শান্ত এবং ঢাকার ধানমন্ডি সরকারি বালক উচ্চবিদ্যালয়ের আরেফিন আনোয়ার ও ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের রাগীব ইয়াসার রহমান।

অসৎ উদ্দেশ্যে পাঠ্যবইয়ে ডারউইন বিষয় ঢোকানো হয়েছে : এহছানুল হক মিলন - dainik shiksha অসৎ উদ্দেশ্যে পাঠ্যবইয়ে ডারউইন বিষয় ঢোকানো হয়েছে : এহছানুল হক মিলন দৈনিক শিক্ষাডটকম-এর যুগপূর্তির ম্যাগাজিনে লেখা আহ্বান - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষাডটকম-এর যুগপূর্তির ম্যাগাজিনে লেখা আহ্বান মিথ্যাচার না করে শিক্ষাক্রম নিয়ে গঠনমূলক আলোচনা করুন : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha মিথ্যাচার না করে শিক্ষাক্রম নিয়ে গঠনমূলক আলোচনা করুন : শিক্ষামন্ত্রী কলেজছাত্রীকে তুলে নিয়ে শ্লীলতাহানি, বিচার না পেয়ে বাবার আত্মহত্যা - dainik shiksha কলেজছাত্রীকে তুলে নিয়ে শ্লীলতাহানি, বিচার না পেয়ে বাবার আত্মহত্যা এবার মরণোত্তর কর্নিয়া দান করলেন শিক্ষক - dainik shiksha এবার মরণোত্তর কর্নিয়া দান করলেন শিক্ষক নতুন শিক্ষাক্রমে অভ্যস্ত হতে উন্নয়ন কর্মসূচির বই পড়তে হবে : শিক্ষা উপমন্ত্রী - dainik shiksha নতুন শিক্ষাক্রমে অভ্যস্ত হতে উন্নয়ন কর্মসূচির বই পড়তে হবে : শিক্ষা উপমন্ত্রী মাদরাসা শিক্ষকদের জানুয়ারির এমপিওর চেক ছাড় - dainik shiksha মাদরাসা শিক্ষকদের জানুয়ারির এমপিওর চেক ছাড় please click here to view dainikshiksha website Execution time: 0.004288911819458